ঢাকা , রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
Logo উপজেলা নির্বাচন পরবর্তী হামলা-ভাংচুরের অভিযোগ, আসামী গ্রেপ্তারের দাবি Logo খাগড়াছড়িতে জেলা পুলিশের উদ্যোগে বৃক্ষরোপন কর্মসূচী উদ্বোধন Logo ঈদকে সামনে রেখে হাতিয়ার গুরুত্বপূর্ণ ঘাটে কোস্টগার্ডের নিরাপত্তার জোরদার Logo সদরপুর ক্যাডেট স্কিম মাদরাসায় কুরআনের সবক Logo বোয়ালমারীতে ট্রাকের সংঘর্ষে মোটরসাইকেল চালক নিহত Logo জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা নাগরপুর উপজেলা ইউনিটের নতুন কার্যালয় উদ্বোধন Logo সদরপুরে ঠেঙ্গামারী আলিয়া মাদরাসা ও এতিমখানার শুভ উদ্বোধন Logo ডাকাত সর্দারকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব Logo নড়াইলে মোটরসাইকেলের বেপরোয়া গতি কেঁড়ে নিলো কিশোরের প্রাণ Logo ভুয়া পরিচয়ে চার বছর ধরে দন্ত চিকিৎসকের জেল ও জরিমানা
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

শাবনূরের ওপর নাখোশ!

  • বিনোদন ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : ০১:০৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ জানুয়ারী ২০২৪
  • ১৬০ বার পঠিত

 

তরুণ নির্মাতা আরাফাত হোসাইন শাবনূরকে নিয়ে নির্মাণ করতে যাচ্ছেন ‘রঙ্গনা’। এর ফার্স্ট লুক পোস্টার প্রকাশিত হয়েছে ৫ জানুয়ারি। সেখানে তিনটি লুকে দেখা গেছে নব্বই দশকের এই শীর্ষ নায়িকাকে। পোস্টারটি প্রকাশের পর যেমন ইতিবাচক মন্তব্য এসেছে, তেমনি নেগেটিভ মন্তব্যও এসেছে। তবে ভক্তদের একটি অংশ চান না যে তিনি এ সিনেমায় অভিনয় করুক। অনেকেই শাবনূরেরে এমন আবির্ভাবে নাখোশ।

শাবনূরের অভিনয়ে ফেরা এবং ‘রঙ্গনা’ ইস্যুতে পরিচালক হিসেবে নয় শাবনূরভক্ত হিসেবে তার প্রতি কিছু আহ্বান জানিয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার বিজয়ী নির্মাতা মোস্তাফিজুর রহমান মানিক। এর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে- অন্য শাবনূর ভক্তদের মতো তিনিও চান ‘মানহীন’ সিনেমায় যেন শাবনূর অভিনয় না করেন।

 

মোস্তাফিজুর রহমান মানিক চান প্রয়োজনে তার ‘দুই নয়নের আলো ২’ সিনেমাটি বাদ দিয়ে হলেও শাবনূর যেন সিনেমা নির্বাচনে সতর্ক হন। দীর্ঘদিন পর তিনি আবার অভিনয়ে নিয়মিত হতে যাচ্ছেন, এ সময়ে ভুল করলে ভক্তরা মুখ ফিরিয়ে নিবে। তিনি লিখেন- এটা ১৯২৪ সাল না, ২০২৪ সাল।

 

মানিক লিখেছেন- গত কয়েক দিনে একটি পোস্টারকে কেন্দ্র করে, সবার প্রিয় অভিনেত্রী শাবনূরকে যেভাবে ট্রল করা হয়েছে, তা মনে হয় শাবনূরের এত বছরের অভিনয় জীবনে কোনোদিন করা হয়নি। একজন শাবনূর ভক্ত হিসেবে এটা মেনে নেওয়া কষ্টকর। খোদ শাবনূর ভক্তরা একে বয়কটের ডাক দিয়েছে।

 

যাই হোক, এই ট্রলের যুগে শাবনূরের যদি আবার মুভি করতেই হয়, বুঝে শুনে করা উচিত। আমি বিশ্বাস করি, বর্তমান সময়ের অনেক মেধাবী এবং জনপ্রিয় পরিচালক তার সঙ্গে কাজ করতে আগ্রহী। চয়নিকা চৌধুরী, রায়হান রাফি, নিয়ামূল মুক্তা, বুলবুল বিশ্বাস ইতোমধ্যে তার সঙ্গে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। কেউ কেউ আমাকে নিজে বলেছেন তাকে নিয়ে কাজ করার কথা।

 

আমার মনে হয় নিজেকে ফিট করে আরও সময় নিয়ে এসব পরিচালকদের সাথে রাজকীয়ভাবে তার ফেরা উচিত। এক্সপেরিমেন্টের কোনো সুযোগ নেই এ সময়ে। মনে রাখতে হবে এটা ১৯২৪ না, এটা ২০২৪। বিখ্যাত সব পরিচালক, প্রযোজক, কাহিনিকার, ডিওপি, এমনকি অসংখ্য স্পট বয়ের প্রচেষ্টার সঙ্গে শক্তিশালী অভিনয় দক্ষতার মিশেলে গড়ে উঠেছে শাবনুরের আজকের সার্বজনীন ইমেজ। কিছু লোকের অদক্ষতা, ভাইরাল হওয়ার প্রচেষ্টা আর শাবনুরের নিজের খামখেয়ালির জন্য, এই ইমেজ, এই জনপ্রিয়তা, এই প্রতিমা ধ্বংস হোক, আমিসহ সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা অগনিত শাবনূর ভক্ত তা কোনোদিন চায় না।

 

প্রয়োজনে আমার মুভিও রিজেক্ট করুন, তবু কাউকে নিজের ইমেজ শেষ করার সুযোগ দিবেন না, প্লিজ। মুর্খ অদক্ষ কোনো মেকাপম্যান যদি আপনার উপদেষ্টা হয় তাহলে বলার কিছু নাই। আপনি এদের ব্যাক্তিগতভাবে ভালোবাসুন কোনো সমস্যা নাই; কিন্তু নিজের ক্যারিয়ারের ক্ষেত্রে এদের বর্জন করুন, দরকারে আমাকেও বর্জন করুন।

 

আপনাকে ব্যক্তিগত এই কথাগুলো বলতে না পেরে এই পোস্ট দিলাম। আশা করি ভুল বুঝবেন না।

Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

জনপ্রিয় সংবাদ

উপজেলা নির্বাচন পরবর্তী হামলা-ভাংচুরের অভিযোগ, আসামী গ্রেপ্তারের দাবি

error: Content is protected !!

শাবনূরের ওপর নাখোশ!

আপডেট টাইম : ০১:০৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ জানুয়ারী ২০২৪

 

তরুণ নির্মাতা আরাফাত হোসাইন শাবনূরকে নিয়ে নির্মাণ করতে যাচ্ছেন ‘রঙ্গনা’। এর ফার্স্ট লুক পোস্টার প্রকাশিত হয়েছে ৫ জানুয়ারি। সেখানে তিনটি লুকে দেখা গেছে নব্বই দশকের এই শীর্ষ নায়িকাকে। পোস্টারটি প্রকাশের পর যেমন ইতিবাচক মন্তব্য এসেছে, তেমনি নেগেটিভ মন্তব্যও এসেছে। তবে ভক্তদের একটি অংশ চান না যে তিনি এ সিনেমায় অভিনয় করুক। অনেকেই শাবনূরেরে এমন আবির্ভাবে নাখোশ।

শাবনূরের অভিনয়ে ফেরা এবং ‘রঙ্গনা’ ইস্যুতে পরিচালক হিসেবে নয় শাবনূরভক্ত হিসেবে তার প্রতি কিছু আহ্বান জানিয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার বিজয়ী নির্মাতা মোস্তাফিজুর রহমান মানিক। এর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে- অন্য শাবনূর ভক্তদের মতো তিনিও চান ‘মানহীন’ সিনেমায় যেন শাবনূর অভিনয় না করেন।

 

মোস্তাফিজুর রহমান মানিক চান প্রয়োজনে তার ‘দুই নয়নের আলো ২’ সিনেমাটি বাদ দিয়ে হলেও শাবনূর যেন সিনেমা নির্বাচনে সতর্ক হন। দীর্ঘদিন পর তিনি আবার অভিনয়ে নিয়মিত হতে যাচ্ছেন, এ সময়ে ভুল করলে ভক্তরা মুখ ফিরিয়ে নিবে। তিনি লিখেন- এটা ১৯২৪ সাল না, ২০২৪ সাল।

 

মানিক লিখেছেন- গত কয়েক দিনে একটি পোস্টারকে কেন্দ্র করে, সবার প্রিয় অভিনেত্রী শাবনূরকে যেভাবে ট্রল করা হয়েছে, তা মনে হয় শাবনূরের এত বছরের অভিনয় জীবনে কোনোদিন করা হয়নি। একজন শাবনূর ভক্ত হিসেবে এটা মেনে নেওয়া কষ্টকর। খোদ শাবনূর ভক্তরা একে বয়কটের ডাক দিয়েছে।

 

যাই হোক, এই ট্রলের যুগে শাবনূরের যদি আবার মুভি করতেই হয়, বুঝে শুনে করা উচিত। আমি বিশ্বাস করি, বর্তমান সময়ের অনেক মেধাবী এবং জনপ্রিয় পরিচালক তার সঙ্গে কাজ করতে আগ্রহী। চয়নিকা চৌধুরী, রায়হান রাফি, নিয়ামূল মুক্তা, বুলবুল বিশ্বাস ইতোমধ্যে তার সঙ্গে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। কেউ কেউ আমাকে নিজে বলেছেন তাকে নিয়ে কাজ করার কথা।

 

আমার মনে হয় নিজেকে ফিট করে আরও সময় নিয়ে এসব পরিচালকদের সাথে রাজকীয়ভাবে তার ফেরা উচিত। এক্সপেরিমেন্টের কোনো সুযোগ নেই এ সময়ে। মনে রাখতে হবে এটা ১৯২৪ না, এটা ২০২৪। বিখ্যাত সব পরিচালক, প্রযোজক, কাহিনিকার, ডিওপি, এমনকি অসংখ্য স্পট বয়ের প্রচেষ্টার সঙ্গে শক্তিশালী অভিনয় দক্ষতার মিশেলে গড়ে উঠেছে শাবনুরের আজকের সার্বজনীন ইমেজ। কিছু লোকের অদক্ষতা, ভাইরাল হওয়ার প্রচেষ্টা আর শাবনুরের নিজের খামখেয়ালির জন্য, এই ইমেজ, এই জনপ্রিয়তা, এই প্রতিমা ধ্বংস হোক, আমিসহ সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা অগনিত শাবনূর ভক্ত তা কোনোদিন চায় না।

 

প্রয়োজনে আমার মুভিও রিজেক্ট করুন, তবু কাউকে নিজের ইমেজ শেষ করার সুযোগ দিবেন না, প্লিজ। মুর্খ অদক্ষ কোনো মেকাপম্যান যদি আপনার উপদেষ্টা হয় তাহলে বলার কিছু নাই। আপনি এদের ব্যাক্তিগতভাবে ভালোবাসুন কোনো সমস্যা নাই; কিন্তু নিজের ক্যারিয়ারের ক্ষেত্রে এদের বর্জন করুন, দরকারে আমাকেও বর্জন করুন।

 

আপনাকে ব্যক্তিগত এই কথাগুলো বলতে না পেরে এই পোস্ট দিলাম। আশা করি ভুল বুঝবেন না।