ঢাকা , সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
Logo ফরিদপুর সদর উপজেলার শিবরামপুর এলাকায় অনুমোদনহীন ভেজাল গুড় কারখানায় অভিযান Logo কুমারখালীতে ভোটের দিনে প্রতিপক্ষের হামলা, আহত ব্যাক্তির মৃত্যু Logo কুষ্টিয়ায় হাতের রগ কাটা যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার Logo ফরিদপুরে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ‌১২৫ তম জন্মবার্ষিকী পালিত Logo কুষ্টিয়ায় শ্যালকের বিয়েতে গিয়ে দুলাভাইয়ের কারাদণ্ড Logo তানোরে কনিষ্ঠ প্রার্থীর সর্ববৃহৎ জয়, রাজনৈতিক অঙ্গনে চাঞ্চল্য Logo যশোরে পৃথক দুটি সড়ক দুর্ঘটনায় দুইজন নিহত Logo আমতলী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে জনপ্রিয়তায় এগিয়ে যুথী Logo হাতিয়ার সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যাপক ওয়ালী উল্যাহর মৃত্যুতে স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত Logo সুন্দরবন, বেনাপুল ও চিত্রা বন্ধ ট্রেন চালুর দাবিতে ভেড়ামারায় মানববন্ধন
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

নাটোরের বাগাতিপাড়া কুড়িয়ে পাওয়া টাকা ফিরত দিলেন এক দম্পতি

রেলের ধারে কুড়িয়ে পাওয়া টাকাসহ পোশাকভর্তি ব্যাগ ফেরত দিয়ে মহানুভবতার পরিচয় দিলেন নাটোরের বাগাতিপাড়ার সেই শিরিন-জিয়া দম্পতি। বুধবার পৌরসভার পেড়াবাড়িয়া মহল্লার নিজের বাড়িতে টাকাসহ পোশাকভর্তি ব্যাগ মালিকের হাতে তুলে দেন এ দম্পতি।

এর আগে করোনাকালে চিকিৎসার জন্য জমানো পুরো ১ লাখ টাকা কর্মহীন অসহায়দের মাঝে বিলিয়ে সাড়া ফেলেছিলেন এ দম্পতি। এমনকি নিজেদের বাড়ি নির্মাণের জন্য কেনা ইট বিক্রি করে সেই সময় ইফতারসামগ্রী বিতরণ করে আলোচিত হয়েছিলেন তারা। শিরিন-জিয়া বাগাতিপাড়া পৌরসভার মালঞ্চি রেলগেট এলাকায় রেলের পরিত্যক্ত জমিতে বসবাস করেন। পেশায় স্বামী জিয়াউর রহমান ঠিকাদারির সহযোগী এবং শিরিন আক্তার আনসার-ভিডিপির পৌর ওয়ার্ড লিডার।

 

শিরিন জানান, তার স্বামী জিয়াউর রহমান মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে বাড়িসংলগ্ন রেললাইনের ধারে লেবুবাগানে একটি ব্যাগ কুড়িয়ে পান। সেই ব্যাগে নগদ সাড়ে ৮ হাজার টাকা, নষ্ট মোবাইল ফোন, নতুন পোশাকসহ ব্যবহারের বিভিন্ন সামগ্রী ছিল। পরে দুজনের সিদ্ধান্ত মোতাবেক ব্যাগের মালিককে খুঁজতে শুরু করেন। নষ্ট মোবাইলের ভেতরে থাকা সিমকার্ডের সূত্রধরে তারা ব্যাগের মালিক মো. শাকিলের সন্ধান পান।

শাকিল রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার ভাংনী গ্রামের সাদেক আলীর ছেলে। পরে শিরিন বিষয়টি থানা ও স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীদের অবহিত করেন। পর দিন সকালে ব্যাগের মালিকসহ লোকজন তার বাড়িতে এলে ব্যাগের ভেতরের মানিব্যাগে থাকা ছবি দেখে মালিককে নিশ্চিত করেন এবং পুলিশের অনুমতিতে স্থানীয়দের উপস্থিতিতে টাকাসহ মালামাল তুলে দেন।

ব্যাগের মালিক মো. শাকিল জানান, তিনি ঢাকার মতিঝিলে একটি ছাপাখানায় কাজ করেন। ঈদের ছুটিতে বাড়ির সদস্যদের জন্য নতুন পোশাক কিনে গত ৯ এপ্রিল লালমনি এক্সপ্রেস ট্রেনযোগে রংপুরে বাড়িতে যাচ্ছিলেন। ট্রেনটি বাগাতিপাড়ার ওই এলাকা অতিক্রম করার সময় হঠাৎ করেই ব্যাগটি ট্রেন থেকে নিচে পড়ে যায়। পরে বাগাতিপাড়া এলাকায় এসে খুঁজেছেন কিন্তু পাননি।

অবশেষে মঙ্গলবার রাতে শিরিনের ফোন পান। রংপুর থেকে দুই বন্ধুকে সঙ্গে নিয়ে এসে বুধবার সকালে টাকাসহ ব্যাগের সব মালামাল ফেরত পান। এ জন্য তিনি শিরিন-জিয়া দম্পতির প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। এ সময় তাদের হাতে উপহারস্বরূপ অর্থ তুলে দিতে চাইলে এই দম্পতি নিতে অস্বীকৃতি জানান।

 

উল্লেখ্য, শিরিন আক্তার দীর্ঘদিন থেকে হার্ট, কিডনি ও মেরুদণ্ডের অসুখে ভুগছেন। ভারতে নিয়মিত চিকিৎসা নেন। ব্যক্তিগতজীবনে তাদের দুটি সন্তান রয়েছে।

Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

ফরিদপুর সদর উপজেলার শিবরামপুর এলাকায় অনুমোদনহীন ভেজাল গুড় কারখানায় অভিযান

error: Content is protected !!

নাটোরের বাগাতিপাড়া কুড়িয়ে পাওয়া টাকা ফিরত দিলেন এক দম্পতি

আপডেট টাইম : ০৪:২৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪
রেলের ধারে কুড়িয়ে পাওয়া টাকাসহ পোশাকভর্তি ব্যাগ ফেরত দিয়ে মহানুভবতার পরিচয় দিলেন নাটোরের বাগাতিপাড়ার সেই শিরিন-জিয়া দম্পতি। বুধবার পৌরসভার পেড়াবাড়িয়া মহল্লার নিজের বাড়িতে টাকাসহ পোশাকভর্তি ব্যাগ মালিকের হাতে তুলে দেন এ দম্পতি।

এর আগে করোনাকালে চিকিৎসার জন্য জমানো পুরো ১ লাখ টাকা কর্মহীন অসহায়দের মাঝে বিলিয়ে সাড়া ফেলেছিলেন এ দম্পতি। এমনকি নিজেদের বাড়ি নির্মাণের জন্য কেনা ইট বিক্রি করে সেই সময় ইফতারসামগ্রী বিতরণ করে আলোচিত হয়েছিলেন তারা। শিরিন-জিয়া বাগাতিপাড়া পৌরসভার মালঞ্চি রেলগেট এলাকায় রেলের পরিত্যক্ত জমিতে বসবাস করেন। পেশায় স্বামী জিয়াউর রহমান ঠিকাদারির সহযোগী এবং শিরিন আক্তার আনসার-ভিডিপির পৌর ওয়ার্ড লিডার।

 

শিরিন জানান, তার স্বামী জিয়াউর রহমান মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে বাড়িসংলগ্ন রেললাইনের ধারে লেবুবাগানে একটি ব্যাগ কুড়িয়ে পান। সেই ব্যাগে নগদ সাড়ে ৮ হাজার টাকা, নষ্ট মোবাইল ফোন, নতুন পোশাকসহ ব্যবহারের বিভিন্ন সামগ্রী ছিল। পরে দুজনের সিদ্ধান্ত মোতাবেক ব্যাগের মালিককে খুঁজতে শুরু করেন। নষ্ট মোবাইলের ভেতরে থাকা সিমকার্ডের সূত্রধরে তারা ব্যাগের মালিক মো. শাকিলের সন্ধান পান।

শাকিল রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার ভাংনী গ্রামের সাদেক আলীর ছেলে। পরে শিরিন বিষয়টি থানা ও স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীদের অবহিত করেন। পর দিন সকালে ব্যাগের মালিকসহ লোকজন তার বাড়িতে এলে ব্যাগের ভেতরের মানিব্যাগে থাকা ছবি দেখে মালিককে নিশ্চিত করেন এবং পুলিশের অনুমতিতে স্থানীয়দের উপস্থিতিতে টাকাসহ মালামাল তুলে দেন।

ব্যাগের মালিক মো. শাকিল জানান, তিনি ঢাকার মতিঝিলে একটি ছাপাখানায় কাজ করেন। ঈদের ছুটিতে বাড়ির সদস্যদের জন্য নতুন পোশাক কিনে গত ৯ এপ্রিল লালমনি এক্সপ্রেস ট্রেনযোগে রংপুরে বাড়িতে যাচ্ছিলেন। ট্রেনটি বাগাতিপাড়ার ওই এলাকা অতিক্রম করার সময় হঠাৎ করেই ব্যাগটি ট্রেন থেকে নিচে পড়ে যায়। পরে বাগাতিপাড়া এলাকায় এসে খুঁজেছেন কিন্তু পাননি।

অবশেষে মঙ্গলবার রাতে শিরিনের ফোন পান। রংপুর থেকে দুই বন্ধুকে সঙ্গে নিয়ে এসে বুধবার সকালে টাকাসহ ব্যাগের সব মালামাল ফেরত পান। এ জন্য তিনি শিরিন-জিয়া দম্পতির প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। এ সময় তাদের হাতে উপহারস্বরূপ অর্থ তুলে দিতে চাইলে এই দম্পতি নিতে অস্বীকৃতি জানান।

 

উল্লেখ্য, শিরিন আক্তার দীর্ঘদিন থেকে হার্ট, কিডনি ও মেরুদণ্ডের অসুখে ভুগছেন। ভারতে নিয়মিত চিকিৎসা নেন। ব্যক্তিগতজীবনে তাদের দুটি সন্তান রয়েছে।