ঢাকা , বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
Logo পূর্বভাটদী মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন বহাল রাখার দাবীতে সংবাদ সম্মেলন Logo বিভিন্ন অভিযোগ এনে ভোট বর্জন করলেন চেয়ারম্যান প্রার্থী Logo সালথা ও নগরকান্দা উপজেলা নির্বাচনী কেন্দ্র পরিদর্শন করলেন জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার Logo ভোটার ২৪৮০, এক ঘণ্টায় ভোট পড়েছে ১২টি, একটি বুথে শূন্য ভোট Logo নিরবছিন্ন বিদ্যুৎ নিশ্চিতে বিদ্যুৎ বিভাগের অনলাইন কর্মশালা Logo প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগঃ শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রের বড় ব্যবধানে জয়লাভ Logo আলিপুরে আরসিসি ড্রেন নির্মাণ প্রকল্পের উদ্বোধন করলেন পৌর মেয়র Logo কেন্দ্রে শুধু ভোটার নেই, অন্য সব ঠিক আছে Logo নাটোরে চেয়ারম্যান প্রার্থীর প্রধান সমন্বয়কারীকে হাতুড়িপেটার অভিযোগ Logo ভূরুঙ্গামারীতে স্মার্টফোন কিনে না দেওয়ায় মাদ্রাসা ছাত্রীর আত্মহত্যা
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

একটি ছবি অজস্র কথা

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • আপডেট টাইম : ০৭:৫৯ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪
  • ৭০ বার পঠিত

সেদিনের অনুষ্ঠান শেষে কলকাতায় রওনা হয়েছিলেন মাহবুব উদ্দিন আর তৌফিক-ই-ইলাহী। পথে পথে যুদ্ধ করে ২০ এপ্রিল তারা কয়েকজন কলকাতার ৯ নম্বর থিয়েটার রোডে গিয়ে হাজির হন। সেদিন তারা রাত কাটান থার্ড সেক্রেটারি আনোয়ারুল করিম জয়ের বাসভবনে। পরদিন সকালবেলা তারা একসঙ্গে নাশতা সেরেছেন। তখন আনোয়ারুল করিম তার সামনে ইলাস্ট্রেটেড উইকলি অব ইন্ডিয়া সাময়িকীটি এগিয়ে দিয়ে বললেন, ‘এই দেখ মাহবুব, তোর কী বিরাট ছবি ছাপা হয়েছে!’ সাময়িকীর প্রচ্ছদ জুড়ে ছবিটির ক্যাপশনে লেখা ছিল, ‘এ ইউথফুল সোলজার গিভিং গার্ড অব অনার টু মুজিবনগর গভর্নমেন্ট।’ ছবিটা দেখে আনন্দে তার বুক ভরে ওঠে। তিনি পত্রিকাটি তার কাছে রাখলেন। ২৭ এপ্রিল সাব-সেক্টর কমান্ডার হিসেবে চলে এলেন সাতক্ষীরায়। এরপর আট মাস কেটে গেল রণক্ষেত্রে। শত্রুদের আক্রমণ আর তাদের মোকাবিলা করতে গিয়ে কোথায় যেন হারিয়ে যায় পত্রিকাটি!

লেখকঃ সাহাদাত পারভেজ, দেশ রূপান্তরের আলোকচিত্র সম্পাদক

সংগৃহীতঃ দেশ রূপান্তর, ১৭ এপ্রিল, ২০২৪

Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

পূর্বভাটদী মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন বহাল রাখার দাবীতে সংবাদ সম্মেলন

error: Content is protected !!

একটি ছবি অজস্র কথা

আপডেট টাইম : ০৭:৫৯ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪

সেদিনের অনুষ্ঠান শেষে কলকাতায় রওনা হয়েছিলেন মাহবুব উদ্দিন আর তৌফিক-ই-ইলাহী। পথে পথে যুদ্ধ করে ২০ এপ্রিল তারা কয়েকজন কলকাতার ৯ নম্বর থিয়েটার রোডে গিয়ে হাজির হন। সেদিন তারা রাত কাটান থার্ড সেক্রেটারি আনোয়ারুল করিম জয়ের বাসভবনে। পরদিন সকালবেলা তারা একসঙ্গে নাশতা সেরেছেন। তখন আনোয়ারুল করিম তার সামনে ইলাস্ট্রেটেড উইকলি অব ইন্ডিয়া সাময়িকীটি এগিয়ে দিয়ে বললেন, ‘এই দেখ মাহবুব, তোর কী বিরাট ছবি ছাপা হয়েছে!’ সাময়িকীর প্রচ্ছদ জুড়ে ছবিটির ক্যাপশনে লেখা ছিল, ‘এ ইউথফুল সোলজার গিভিং গার্ড অব অনার টু মুজিবনগর গভর্নমেন্ট।’ ছবিটা দেখে আনন্দে তার বুক ভরে ওঠে। তিনি পত্রিকাটি তার কাছে রাখলেন। ২৭ এপ্রিল সাব-সেক্টর কমান্ডার হিসেবে চলে এলেন সাতক্ষীরায়। এরপর আট মাস কেটে গেল রণক্ষেত্রে। শত্রুদের আক্রমণ আর তাদের মোকাবিলা করতে গিয়ে কোথায় যেন হারিয়ে যায় পত্রিকাটি!

লেখকঃ সাহাদাত পারভেজ, দেশ রূপান্তরের আলোকচিত্র সম্পাদক

সংগৃহীতঃ দেশ রূপান্তর, ১৭ এপ্রিল, ২০২৪