ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

পৌরসভা নির্বাচন তৃতীয় ধাপ

আসন্ন পাংশা পৌরসভা নির্বাচনে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে মেয়র প্রার্থী ফরহাদ, হেভিওয়েট প্রার্থীরা দ্বিধাদ্বন্দ্বে

পাংশা পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী আওয়ামী যুবলীগের আহবায়ক ফজলুল হক ফরহাদ।

আগামী ৩০ জানুয়ারী অনুষ্ঠিতব্য পাংশা পৌরসভার নির্বাচনে মেয়র পদে প্রার্থী হয়ে আলোড়ন সৃষ্টি করেছেন পাংশা উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের আহবায়ক তরুণ সমাজসেবী ফজলুল হক ফরহাদ। গত ৩১ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র দাখিলের পরপরই তার প্রার্থীতার ব্যাপারে রাজনৈতিক অঙ্গনে আলোড়ন সৃষ্টি হয় এবং ক্রমাগত ভাবে দলমত নির্বিশেষে তার পক্ষে জনমত গড়ে উঠছে। আওয়ামী যুবলীগ নেতা ফরহাদ মেয়র পদে প্রার্থী হওয়ায় প্রতিদ্বন্দ্বি হেভিওয়েট প্রার্থীরা দ্বিধাদ্বন্দ্বে পড়েছেন।

জানা যায়, পাংশা পৌরসভার দলীয় নির্বাচনী কার্যক্রমের শুরুতে মেয়র পদে মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন ফজলুল হক ফরহাদ। কিন্তু দলীয় মনোনয়ন না পেলেও সামাজিক উন্নয়ন ও জনকল্যাণমূলক কাজে সম্পৃক্ততার কারণে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের আস্থায় মনোবল পেয়ে মেয়র পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন তিনি। আর মনোনয়নপত্র দাখিলের পর থেকেই রাজনৈতিক অঙ্গন, চায়ের দোকান ও বিভিন্ন আড্ডায় মেয়র পদে নতুন মুখের প্রত্যাশার গুঞ্জন শুরু হয়।

মেয়র প্রার্থী ফজলুল হক ফরহাদ পাংশা পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি, পাংশা কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি, পাংশা উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক এবং বর্তমানে পাংশা উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের আহবায়ক হিসেবে সুনামের সাথে সাংগঠনিক দায়িত্ব পালন করছেন।

তরুণ সমাজসেবী হিসেবে মেধাবী দরিদ্র শিক্ষার্থীদের সাহায্য সহযোগীতা, শিক্ষা ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠাসহ বিভিন্ন সামাজিক উন্নয়ন ও জনকল্যাণমূলক কাজের সাথে সম্পৃক্ত থেকে দলমত নির্বিশেষে সকল শ্রেণি পেশার মানুষের আস্থা অর্জণ করতে সক্ষম হয়েছেন তিনি।

জানা যায়, এবারে পাংশা পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী পাংশা পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক মেয়র ওয়াজেদ আলী মন্ডল, তার সহোদরভাই সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ইদ্রিস আলী মন্ডল, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী রইচ উদ্দিন খান এবং পাংশা উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের আহবায়ক ফজলুল হক ফরহাদ মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

তথ্যানুসন্ধ্যানে জানা যায়, ১৯৯০ সালে পাংশা পৌরসভা প্রতিষ্ঠিত হয়। তৎকালীন পাংশা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দ মাহবুব রহমান ১০/০৫/১৯৯০ থেকে ১৫/০৭/১৯৯১ ও ইউএনও মোহাম্মদ বারেক ১৬/০৭/১৯৯১ থেকে ২৯/০৩/১৯৯৩ পর্যন্ত প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এরপর পাংশা পৌরসভার প্রথম মেয়র নির্বাচিত হন বিএনপি নেতা মরহুম আব্দুল আজিজ সরদার।

২৯/০৩/১৯৯৩ থেকে ০৭/০৪/১৯৯৯ পর্যন্ত তিনি দায়িত্ব পালন করেন। পর্যায়ক্রমে মেয়র মোঃ ওয়াজেদ আলী ০৭/০৪//১৯৯৯ থেকে ১৫/০৬/২০০৪, সেরিনা আজিজ ১৫/০৬/২০০৪ থেকে ১৫/০২/২০১১, পুনরায় ওয়াজেদ আলী ১৫/০২/২০১১ থেকে ১৫/০২/২০১৬ পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমান মেয়র আব্দুল আল মাসুদ নির্বাচিত হয়ে ১৫/০২/২০১৬ থেকে দায়িত্ব পালন করছেন।

ধীরে ধীরে পাংশা পৌরসভার বয়স ৩০ বছর হয়েছে। ৩০ বছরে পৌরসভার বিভিন্ন পর্যায়ে উন্নয়ন হলেও আসন্ন পৌরসভার নির্বাচনকে সামনে রেখে উন্নয়নের প্রত্যাশা ও প্রাপ্তির চুলচেরা হিসেবে নিকেশ করছেন ভোটাররা। এ ক্ষেত্রে দলমত নির্বিশেষে নতুন মুখের প্রত্যাশা জোরালো হচ্ছে।

Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

জনপ্রিয় সংবাদ
error: Content is protected !!

পৌরসভা নির্বাচন তৃতীয় ধাপ

আসন্ন পাংশা পৌরসভা নির্বাচনে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে মেয়র প্রার্থী ফরহাদ, হেভিওয়েট প্রার্থীরা দ্বিধাদ্বন্দ্বে

আপডেট টাইম : ০৯:৪৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২ জানুয়ারী ২০২১

আগামী ৩০ জানুয়ারী অনুষ্ঠিতব্য পাংশা পৌরসভার নির্বাচনে মেয়র পদে প্রার্থী হয়ে আলোড়ন সৃষ্টি করেছেন পাংশা উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের আহবায়ক তরুণ সমাজসেবী ফজলুল হক ফরহাদ। গত ৩১ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র দাখিলের পরপরই তার প্রার্থীতার ব্যাপারে রাজনৈতিক অঙ্গনে আলোড়ন সৃষ্টি হয় এবং ক্রমাগত ভাবে দলমত নির্বিশেষে তার পক্ষে জনমত গড়ে উঠছে। আওয়ামী যুবলীগ নেতা ফরহাদ মেয়র পদে প্রার্থী হওয়ায় প্রতিদ্বন্দ্বি হেভিওয়েট প্রার্থীরা দ্বিধাদ্বন্দ্বে পড়েছেন।

জানা যায়, পাংশা পৌরসভার দলীয় নির্বাচনী কার্যক্রমের শুরুতে মেয়র পদে মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন ফজলুল হক ফরহাদ। কিন্তু দলীয় মনোনয়ন না পেলেও সামাজিক উন্নয়ন ও জনকল্যাণমূলক কাজে সম্পৃক্ততার কারণে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের আস্থায় মনোবল পেয়ে মেয়র পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন তিনি। আর মনোনয়নপত্র দাখিলের পর থেকেই রাজনৈতিক অঙ্গন, চায়ের দোকান ও বিভিন্ন আড্ডায় মেয়র পদে নতুন মুখের প্রত্যাশার গুঞ্জন শুরু হয়।

মেয়র প্রার্থী ফজলুল হক ফরহাদ পাংশা পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি, পাংশা কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি, পাংশা উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক এবং বর্তমানে পাংশা উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের আহবায়ক হিসেবে সুনামের সাথে সাংগঠনিক দায়িত্ব পালন করছেন।

তরুণ সমাজসেবী হিসেবে মেধাবী দরিদ্র শিক্ষার্থীদের সাহায্য সহযোগীতা, শিক্ষা ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠাসহ বিভিন্ন সামাজিক উন্নয়ন ও জনকল্যাণমূলক কাজের সাথে সম্পৃক্ত থেকে দলমত নির্বিশেষে সকল শ্রেণি পেশার মানুষের আস্থা অর্জণ করতে সক্ষম হয়েছেন তিনি।

জানা যায়, এবারে পাংশা পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী পাংশা পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক মেয়র ওয়াজেদ আলী মন্ডল, তার সহোদরভাই সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ইদ্রিস আলী মন্ডল, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী রইচ উদ্দিন খান এবং পাংশা উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের আহবায়ক ফজলুল হক ফরহাদ মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

তথ্যানুসন্ধ্যানে জানা যায়, ১৯৯০ সালে পাংশা পৌরসভা প্রতিষ্ঠিত হয়। তৎকালীন পাংশা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দ মাহবুব রহমান ১০/০৫/১৯৯০ থেকে ১৫/০৭/১৯৯১ ও ইউএনও মোহাম্মদ বারেক ১৬/০৭/১৯৯১ থেকে ২৯/০৩/১৯৯৩ পর্যন্ত প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এরপর পাংশা পৌরসভার প্রথম মেয়র নির্বাচিত হন বিএনপি নেতা মরহুম আব্দুল আজিজ সরদার।

২৯/০৩/১৯৯৩ থেকে ০৭/০৪/১৯৯৯ পর্যন্ত তিনি দায়িত্ব পালন করেন। পর্যায়ক্রমে মেয়র মোঃ ওয়াজেদ আলী ০৭/০৪//১৯৯৯ থেকে ১৫/০৬/২০০৪, সেরিনা আজিজ ১৫/০৬/২০০৪ থেকে ১৫/০২/২০১১, পুনরায় ওয়াজেদ আলী ১৫/০২/২০১১ থেকে ১৫/০২/২০১৬ পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমান মেয়র আব্দুল আল মাসুদ নির্বাচিত হয়ে ১৫/০২/২০১৬ থেকে দায়িত্ব পালন করছেন।

ধীরে ধীরে পাংশা পৌরসভার বয়স ৩০ বছর হয়েছে। ৩০ বছরে পৌরসভার বিভিন্ন পর্যায়ে উন্নয়ন হলেও আসন্ন পৌরসভার নির্বাচনকে সামনে রেখে উন্নয়নের প্রত্যাশা ও প্রাপ্তির চুলচেরা হিসেবে নিকেশ করছেন ভোটাররা। এ ক্ষেত্রে দলমত নির্বিশেষে নতুন মুখের প্রত্যাশা জোরালো হচ্ছে।