ঢাকা , শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে ফরিদপুর প্রেসক্লাবের পাঁচজন প্রবীণ সাংবাদিক ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা প্রদান

মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে ফরিদপুর প্রেস ক্লাবের উদ্যোগে প্রেসক্লাবের   পাঁচ জন সদস্য ‌ প্রবীণ সাংবাদিক ও  মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা প্রদান অনুষ্ঠান শনিবার বিকেলে এডভোকেট শামসুদ্দিন  মোল্লা মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়।
ফরিদপুর প্রেসক্লাবের  সভাপতি হাবিবুর রহমান হাবিবের সভাপতিত্বে ‌ এবং আহবায়ক ‌কমিটির সদস্য প্রবীণ সাংবাদিক মফিজ ইমাম মিলনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক কামরুল আহসান তালুকদার।
বিশেষ অতিথি ছিলেন ফরিদপুরের পুলিশ সুপার ‌ মোহাম্মদ শাহজাহান।
সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ফরিদপুর প্রেসক্লাবের আহ্বায়ক বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও সাংবাদিক অধ্যাপক মোহাম্মদ শাজাহান সহ প্রেসক্লাবের সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানে ‌ ফরিদপুর পাঁচ জন ‌ বীর মুক্তিযোদ্ধা সাংবাদিক দের সংবর্ধনা দেয়া হয়। তারা হচ্ছেন প্রেসক্লাবের সদস্য প্রয়াত  সাংবাদিক লিয়াকত হোসেন, এডভোকেট শামসুদ্দিন মোল্লা ও আব্দুল মজিদ মিয়া,  বর্তমান সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আমিনুর রহমান ফরিদ ও  অধ্যাপক মিজানুর রহমান মানিক।
অনুষ্ঠানের সংবর্ধিত  সাংবাদিকবৃন্দ মহান মুক্তিযুদ্ধের তাদের ভূমিকা নিয়ে আলোকপাত করেন। অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন বিজয় দিবসের এই দিনে ‌ ফরিদপুর প্রেসক্লাব একটা দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করেছে।
এবং তারা ‌সময় উপযোগী ‌ সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা পাঁচজন বীর মুক্তিযোদ্ধা সদস্যদের সম্বর্ধনা দিচ্ছে এটা নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবি রাখে।
স্বাধীনতার ৫২ বছর পর ‌ পাঁচজন মুক্তিযোদ্ধা সাংবাদিক কে ফরিদপুর প্রেসক্লাব আজ যে সম্বর্ধনা দিচ্ছে তা দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে।।বক্তারা আর বলেন সাংবাদিকরা সঠিক তথ্য তুলে ধরেন বলেই ‌ আমরা সঠিক খবর জানতে পারি।আর তাই সমাজে সাংবাদিকদের ভূমিকা অপরিসীম।
বক্তারা বলেন মুক্তিযোদ্ধারা জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান ‌। তারা যুদ্ধ না করলে ‌ দেশ-স্বাধীন হতো না আমরা স্বাধীনতা পেতাম না। আজকে বিজয় দিনে ‌ সারাদেশে মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে সরকারি বেসরকারি পর্যায়ে   বিভিন্ন  কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। ফরিদপুর প্রেসক্লাব আজ বিজয়ের দিনে ‌ মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানিত করে যে অবদান সৃষ্টি করেছে তা নিঃসন্দেহে প্রশংসার  দাবি রাখে ‌ এজন্য প্রেসক্লাবে কর্মকর্তাদের ‌ বক্তারা ধন্যবাদ জানান।
অনুষ্ঠান শেষে প্রয়াত তিন  মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যদের হাতে ও জীবিত দুই মুক্তিযোদ্ধার হাতে সম্মাননা ক্রেস্ট  তুলে দেয়া হয়। এ সময় ফরিদপুর প্রেসক্লাবের ‌ সদস্যবৃন্দ এবং বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

জনপ্রিয় সংবাদ

খেলাধুলা মানসিক বিকাশ ও শরীর গঠনে সহায়তা করেঃ -লিয়াকত সিকদার

error: Content is protected !!

মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে ফরিদপুর প্রেসক্লাবের পাঁচজন প্রবীণ সাংবাদিক ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা প্রদান

আপডেট টাইম : ০৭:৫৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০২৩
মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে ফরিদপুর প্রেস ক্লাবের উদ্যোগে প্রেসক্লাবের   পাঁচ জন সদস্য ‌ প্রবীণ সাংবাদিক ও  মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা প্রদান অনুষ্ঠান শনিবার বিকেলে এডভোকেট শামসুদ্দিন  মোল্লা মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়।
ফরিদপুর প্রেসক্লাবের  সভাপতি হাবিবুর রহমান হাবিবের সভাপতিত্বে ‌ এবং আহবায়ক ‌কমিটির সদস্য প্রবীণ সাংবাদিক মফিজ ইমাম মিলনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক কামরুল আহসান তালুকদার।
বিশেষ অতিথি ছিলেন ফরিদপুরের পুলিশ সুপার ‌ মোহাম্মদ শাহজাহান।
সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ফরিদপুর প্রেসক্লাবের আহ্বায়ক বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও সাংবাদিক অধ্যাপক মোহাম্মদ শাজাহান সহ প্রেসক্লাবের সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানে ‌ ফরিদপুর পাঁচ জন ‌ বীর মুক্তিযোদ্ধা সাংবাদিক দের সংবর্ধনা দেয়া হয়। তারা হচ্ছেন প্রেসক্লাবের সদস্য প্রয়াত  সাংবাদিক লিয়াকত হোসেন, এডভোকেট শামসুদ্দিন মোল্লা ও আব্দুল মজিদ মিয়া,  বর্তমান সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আমিনুর রহমান ফরিদ ও  অধ্যাপক মিজানুর রহমান মানিক।
অনুষ্ঠানের সংবর্ধিত  সাংবাদিকবৃন্দ মহান মুক্তিযুদ্ধের তাদের ভূমিকা নিয়ে আলোকপাত করেন। অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন বিজয় দিবসের এই দিনে ‌ ফরিদপুর প্রেসক্লাব একটা দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করেছে।
এবং তারা ‌সময় উপযোগী ‌ সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা পাঁচজন বীর মুক্তিযোদ্ধা সদস্যদের সম্বর্ধনা দিচ্ছে এটা নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবি রাখে।
স্বাধীনতার ৫২ বছর পর ‌ পাঁচজন মুক্তিযোদ্ধা সাংবাদিক কে ফরিদপুর প্রেসক্লাব আজ যে সম্বর্ধনা দিচ্ছে তা দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে।।বক্তারা আর বলেন সাংবাদিকরা সঠিক তথ্য তুলে ধরেন বলেই ‌ আমরা সঠিক খবর জানতে পারি।আর তাই সমাজে সাংবাদিকদের ভূমিকা অপরিসীম।
বক্তারা বলেন মুক্তিযোদ্ধারা জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান ‌। তারা যুদ্ধ না করলে ‌ দেশ-স্বাধীন হতো না আমরা স্বাধীনতা পেতাম না। আজকে বিজয় দিনে ‌ সারাদেশে মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে সরকারি বেসরকারি পর্যায়ে   বিভিন্ন  কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। ফরিদপুর প্রেসক্লাব আজ বিজয়ের দিনে ‌ মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানিত করে যে অবদান সৃষ্টি করেছে তা নিঃসন্দেহে প্রশংসার  দাবি রাখে ‌ এজন্য প্রেসক্লাবে কর্মকর্তাদের ‌ বক্তারা ধন্যবাদ জানান।
অনুষ্ঠান শেষে প্রয়াত তিন  মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যদের হাতে ও জীবিত দুই মুক্তিযোদ্ধার হাতে সম্মাননা ক্রেস্ট  তুলে দেয়া হয়। এ সময় ফরিদপুর প্রেসক্লাবের ‌ সদস্যবৃন্দ এবং বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।