ঢাকা , শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

কুষ্টিয়ায় কৃষককে পিটিয়ে হত্যা, ছেলে হাসপাতালে

প্রতীকী ছবি।

মনির হোসেন (৫০) নামে এক কৃষককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে প্রতিপক্ষ চাচাতো ভাইদের বিরুদ্ধে। সোমবার রাত ৯টার দিকে কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার আমবাড়িয়া ইউনিয়নের হালসা গ্রামের নিজ বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত মনির হোসেন ওই এলাকার মৃত আব্দুর রহিমের ছেলে ও পেশায় একজন কৃষক। এ ঘটনায় গুরুতর আহত অবস্থায় নিহত মনিরের ছেলে আব্দুল্লাহকে (২৫) কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

নিহতের মেয়ে মিলি খাতুনের অভিযোগ, আমার ভাই আব্দুল্লাহ ঘরের দরজা ও জানালা তৈরি করতে দেন চাচা আমিরুলের কাছে। দরজা কেনার পরে টাকার অভাবে আব্দুল্লাহ জানালা নেবেন না বলে চাচা আমিরুলকে জানান। কিন্তু জানালা নিতে হবে বলে চাচা তাদের বাড়িতে আসেন। এ সময় জানালা না নেয়ায় আব্দুল্লাহকে মারধর করে বাড়ি ফিরে যান আমিরুল।

এ ঘটনার পরে আবারো রাত ৯টার সময় মনির হোসেনের চাচাতো ভাই মৃত আমেদ আলীর ছেলে আমিরুল তার ভাই নাজমুল, এনামুল, মিনা ও কালু লাঠি নিয়ে বাড়িতে এসে আব্দুল্লাহকে মারধর করেন। এ সময় আমার বাবা মনির হোসেন ঠেকাতে গেলে তাকেও মারধর করেন।এতে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে ঘটনাস্থলেই আমার বাবা মারা যান। পরিবারের লোক প্রতিবেশীদের সহযোগিতায় আব্দুল্লাহকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন।

মিরপুর থানার ওসি রফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্তরা পলাতক রয়েছেন।

Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

জনপ্রিয় সংবাদ
error: Content is protected !!

কুষ্টিয়ায় কৃষককে পিটিয়ে হত্যা, ছেলে হাসপাতালে

আপডেট টাইম : ০১:২৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৫ ডিসেম্বর ২০২৩
মনির হোসেন (৫০) নামে এক কৃষককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে প্রতিপক্ষ চাচাতো ভাইদের বিরুদ্ধে। সোমবার রাত ৯টার দিকে কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার আমবাড়িয়া ইউনিয়নের হালসা গ্রামের নিজ বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত মনির হোসেন ওই এলাকার মৃত আব্দুর রহিমের ছেলে ও পেশায় একজন কৃষক। এ ঘটনায় গুরুতর আহত অবস্থায় নিহত মনিরের ছেলে আব্দুল্লাহকে (২৫) কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

নিহতের মেয়ে মিলি খাতুনের অভিযোগ, আমার ভাই আব্দুল্লাহ ঘরের দরজা ও জানালা তৈরি করতে দেন চাচা আমিরুলের কাছে। দরজা কেনার পরে টাকার অভাবে আব্দুল্লাহ জানালা নেবেন না বলে চাচা আমিরুলকে জানান। কিন্তু জানালা নিতে হবে বলে চাচা তাদের বাড়িতে আসেন। এ সময় জানালা না নেয়ায় আব্দুল্লাহকে মারধর করে বাড়ি ফিরে যান আমিরুল।

এ ঘটনার পরে আবারো রাত ৯টার সময় মনির হোসেনের চাচাতো ভাই মৃত আমেদ আলীর ছেলে আমিরুল তার ভাই নাজমুল, এনামুল, মিনা ও কালু লাঠি নিয়ে বাড়িতে এসে আব্দুল্লাহকে মারধর করেন। এ সময় আমার বাবা মনির হোসেন ঠেকাতে গেলে তাকেও মারধর করেন।এতে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে ঘটনাস্থলেই আমার বাবা মারা যান। পরিবারের লোক প্রতিবেশীদের সহযোগিতায় আব্দুল্লাহকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন।

মিরপুর থানার ওসি রফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্তরা পলাতক রয়েছেন।