ঢাকা , সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৪ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
খোকসায় অবশেষে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে অসহায় বৃদ্ধ হারুন-অর-রশিদ প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়নের ঘর ফিরে পেলেন ১ লক্ষ ২৯ হাজার টাকা পরিশোধ না করায় নড়াইলে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষন অধিদপ্তরে প্রতারনার অভিযোগ করে নিজেই প্রতারনায় ফেঁসে গেলেন জামী সাংবাদিক নড়াইলের লোহাগড়ার দুই সন্তানের জননী কে গলা কেটে হত্যার অভিযোগ নড়াইলে দুগ্রুপের সংঘর্ষে অন্তত ১২জন আহত বাস্তব কাহিনীতে ইউএনও’র লেখায় নির্মিত হচ্ছে নাটক ‘স্বপ্নের ঠিকানা’ সালথায় ঘরের আড়ার সঙ্গে ঝুলছিল গৃহবধূর মরদেহ,পরিবারের দাবি হত্যা ভালোবাসা দিবসে উপহার নিয়ে এলো ইনফিনিক্স লাভ ফেস্ট জাতীয় গ্রন্থগার দিবস উপলক্ষে আলফাডাঙ্গায় গুণীজন সংবর্ধনা সক্ষম সবাইকে কর প্রদানের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর শ্রীলঙ্কাকে দেওয়া ঋণ সেপ্টেম্বরে ফেরত পাওয়ার আশায় মোমেন

অবশেষে স্ট্যান্ডরিলিজ নড়াইল পৌরসভার প্রভাবশালী হিসাবরক্ষকের

নড়াইল পৌরসভার ক্ষমতাশালী হিসাবরক্ষক সাইফুজ্জামান এর বদলি এবং পরবর্তীতে বদলী স্থগিত নিয়ে তোলপাড় পুরো নড়াইল শহর। এরই মধ্যে ১১ মার্চ মন্ত্রনালয় থেকে ২য় দফা বদলীর আদেশ কার্যকর না হলে ১৬ মার্চ থেকে স্ট্যান্ড রিলিজ করা হয়েছে ঐ কর্মকর্তাকে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে,গত ১ মার্চ স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয়ের উপ সচিব মোহাম্মদ ফারুক হোসেন স্বাক্ষরিত (স্মারক-৪৬.০০.০০০০.০৬৩.১৯.০০৭.১৯-২২৭) পত্রে মো. সাইফুজ্জামান কে টাঙ্গাইলের বাসাইল পৌরসভায় বদলীর আদেশ প্রদান করা হয়েছে।
এরই মধ্যে গুঞ্জন ওঠে নানা জায়গা ম্যানেজ করে মোটা অংকের বিনিময়ে ঐ হিসাবরক্ষক বদলী স্থগিত করেছেন। হিসাবরক্ষক কয়েকদফা স্বীকার ও করেছেন তা। বদলীর ব্যাপারে নড়াইল পৌরসভার হিসাবরক্ষক সাইফুজ্জামান বলেন, বদলী একটা হইছিলো কিন্তু সেটা স্থগিত হয়েছে আশা করা যায়।
কোন প্রক্রিয়ার বাতিল হলো এই প্রশ্নের জবাবে সাইফুজ্জামান বলেন,এটা পরে বলি,আপাতত মেয়র চাচ্ছেন না তাই বদলী ঠেকে যাচ্ছে। ১২ মার্চ হিসাবরক্ষক সাইফুজ্জামানের সাথে কথা বললে তিনি স্ট্যান্ড রিলিজের কথা স্বীকার করেন।
১ মার্চ বদলীর আদেশ আসার পরও ক্ষমতাধর এই হিসাবরক্ষক ১১ মার্চ পর্যন্ত পৌরসভার নিয়মিত সকল কাজই করে গেছেন।
৪ মার্চ পৌরসভা নিয়মিত পরিদর্শনে যান নড়াইলের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ও স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক মো.ইয়ারুল ইসলাম। তার সাথে কথা বললেও তিনিও এ ব্যাপারে কিছুই জানেন না বলে জানান।বলেন,আমার কাছে এ বিষয়ে কোন তথ্য নেই।
এদিকে ১১ মার্চ স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয়ের উপ সচিব মোহাম্মদ ফারুক হোসেন স্বাক্ষরিত(স্মারক-৪৬.০০.০০০০.০৬৩.১৯.০০৭.১৯-২৬০) ২য় দফা প্রেরিত পত্রে ১৫ মার্চে মো. সাইফুজ্জামান কে টাঙ্গাইলের বাসাইল পৌরসভায় বদলীর আদেশ প্রদান করা হয়েছে,অন্যথায় ১৬ মার্চ থেকে তাকে স্ট্যান্ড রিলিজ ঘোষনা করা হয়েছে।হিসাবরক্ষক সাইফুজ্জামান ১৯৯৭ সালে হিসাব সহকারী হিসেবে যোগদান করেন।
২০০৩ সালে সহকারী হিসাবরক্ষক এবং ২০০৮ সালে হিসাবরক্ষক হিসেবে প্রায় ২৫ বছর ধরে নড়াইল পৌরসভায় চাকুরী করছেন। প্রভাবশালী এই হিসাবরক্ষকের অর্থে নড়াইল পৌরসভার চলমান অন্ততঃ ১১ টি ঠিকাদারী কাজ পরিচালিত হচ্ছে।
এছাড়া নড়াইলে তার বাড়ি আউড়িয়ায় অন্ততঃ ১’শ একর জমি সহ নড়াইলে ৩টি বাড়ি রয়েছে। তার শ্বশুরবাড়ি ঝিনাইদহে শ্বাশুড়ি এবং স্ত্রীর নামে বাড়ি এবং জমি রয়েছে। এখানেই শেষ নয়,নিজের ভাগ্নে শালা সহ অন্ততঃ ৫জন কে পৌরসভায় চাকুরি দিয়েছেন নিজ ক্ষমতাবলে।
দুর্নীতি বিষয়ে কথা বললে সাইফুজ্জামান সবকিছু এড়িয়ে যান,তবে ঠিকাদারী কাজ বিষয়ে বলেন, এগুলো সবই টেন্ডারের মাধ্যমে হয়েছে,আর নিয়মিত বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমেই তার আত্নীয় স্বজনেরা পৌরসভায় চাকুরী করছেন।
Tag :

এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

খোকসায় অবশেষে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে অসহায় বৃদ্ধ হারুন-অর-রশিদ প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়নের ঘর ফিরে পেলেন

error: Content is protected !!

অবশেষে স্ট্যান্ডরিলিজ নড়াইল পৌরসভার প্রভাবশালী হিসাবরক্ষকের

আপডেট টাইম : ০৮:২৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ মার্চ ২০২১
নড়াইল পৌরসভার ক্ষমতাশালী হিসাবরক্ষক সাইফুজ্জামান এর বদলি এবং পরবর্তীতে বদলী স্থগিত নিয়ে তোলপাড় পুরো নড়াইল শহর। এরই মধ্যে ১১ মার্চ মন্ত্রনালয় থেকে ২য় দফা বদলীর আদেশ কার্যকর না হলে ১৬ মার্চ থেকে স্ট্যান্ড রিলিজ করা হয়েছে ঐ কর্মকর্তাকে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে,গত ১ মার্চ স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয়ের উপ সচিব মোহাম্মদ ফারুক হোসেন স্বাক্ষরিত (স্মারক-৪৬.০০.০০০০.০৬৩.১৯.০০৭.১৯-২২৭) পত্রে মো. সাইফুজ্জামান কে টাঙ্গাইলের বাসাইল পৌরসভায় বদলীর আদেশ প্রদান করা হয়েছে।
এরই মধ্যে গুঞ্জন ওঠে নানা জায়গা ম্যানেজ করে মোটা অংকের বিনিময়ে ঐ হিসাবরক্ষক বদলী স্থগিত করেছেন। হিসাবরক্ষক কয়েকদফা স্বীকার ও করেছেন তা। বদলীর ব্যাপারে নড়াইল পৌরসভার হিসাবরক্ষক সাইফুজ্জামান বলেন, বদলী একটা হইছিলো কিন্তু সেটা স্থগিত হয়েছে আশা করা যায়।
কোন প্রক্রিয়ার বাতিল হলো এই প্রশ্নের জবাবে সাইফুজ্জামান বলেন,এটা পরে বলি,আপাতত মেয়র চাচ্ছেন না তাই বদলী ঠেকে যাচ্ছে। ১২ মার্চ হিসাবরক্ষক সাইফুজ্জামানের সাথে কথা বললে তিনি স্ট্যান্ড রিলিজের কথা স্বীকার করেন।
১ মার্চ বদলীর আদেশ আসার পরও ক্ষমতাধর এই হিসাবরক্ষক ১১ মার্চ পর্যন্ত পৌরসভার নিয়মিত সকল কাজই করে গেছেন।
৪ মার্চ পৌরসভা নিয়মিত পরিদর্শনে যান নড়াইলের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ও স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক মো.ইয়ারুল ইসলাম। তার সাথে কথা বললেও তিনিও এ ব্যাপারে কিছুই জানেন না বলে জানান।বলেন,আমার কাছে এ বিষয়ে কোন তথ্য নেই।
এদিকে ১১ মার্চ স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয়ের উপ সচিব মোহাম্মদ ফারুক হোসেন স্বাক্ষরিত(স্মারক-৪৬.০০.০০০০.০৬৩.১৯.০০৭.১৯-২৬০) ২য় দফা প্রেরিত পত্রে ১৫ মার্চে মো. সাইফুজ্জামান কে টাঙ্গাইলের বাসাইল পৌরসভায় বদলীর আদেশ প্রদান করা হয়েছে,অন্যথায় ১৬ মার্চ থেকে তাকে স্ট্যান্ড রিলিজ ঘোষনা করা হয়েছে।হিসাবরক্ষক সাইফুজ্জামান ১৯৯৭ সালে হিসাব সহকারী হিসেবে যোগদান করেন।
২০০৩ সালে সহকারী হিসাবরক্ষক এবং ২০০৮ সালে হিসাবরক্ষক হিসেবে প্রায় ২৫ বছর ধরে নড়াইল পৌরসভায় চাকুরী করছেন। প্রভাবশালী এই হিসাবরক্ষকের অর্থে নড়াইল পৌরসভার চলমান অন্ততঃ ১১ টি ঠিকাদারী কাজ পরিচালিত হচ্ছে।
এছাড়া নড়াইলে তার বাড়ি আউড়িয়ায় অন্ততঃ ১’শ একর জমি সহ নড়াইলে ৩টি বাড়ি রয়েছে। তার শ্বশুরবাড়ি ঝিনাইদহে শ্বাশুড়ি এবং স্ত্রীর নামে বাড়ি এবং জমি রয়েছে। এখানেই শেষ নয়,নিজের ভাগ্নে শালা সহ অন্ততঃ ৫জন কে পৌরসভায় চাকুরি দিয়েছেন নিজ ক্ষমতাবলে।
দুর্নীতি বিষয়ে কথা বললে সাইফুজ্জামান সবকিছু এড়িয়ে যান,তবে ঠিকাদারী কাজ বিষয়ে বলেন, এগুলো সবই টেন্ডারের মাধ্যমে হয়েছে,আর নিয়মিত বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমেই তার আত্নীয় স্বজনেরা পৌরসভায় চাকুরী করছেন।