ঢাকা , বুধবার, ১৫ মে ২০২৪, ১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

বাড়িতে ফিরলেন জিম্মি নাবিক জয়, পরিবারে মধ্যে বইছে ঈদ আনন্দ

সোমালি জলদস্যুদের হাতে জিম্মি জাহাজ এমভি আবদুল্লাহর নাবিক নাটোরের বাগাতিপাড়ার জয় মাহমুদের ফিরে আসায় পরিবারে বইছে ঈদের আনন্দ। গত ১২ মার্চ ভারত মহাসাগরে সোমালিয়ান জলদস্যুদের হাতে জিম্মি বাংলাদেশী পণ্যবাহী জাহাজ এবং ২৩ নাবিক ও ক্রুদের মধ্যে তিনি ওই জাহাজের সাধারণ নাবিক (ওএস) হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

বুধবার( ১৫ মে) সকালে তিনি তার নিজ বাড়িতে ফিরে আসেন। জয় মাহমুদ উপজেলার বাগাতিপাড়ার ১নং পাঁকা ইউনিয়নের  সালাইনগর দক্ষিণপাড়া গ্রামের জিয়াউর রহমানের ও আরিফা বেগম দম্পতির ছেলে।

জয়ের মা আরিফা বেগম (৫০) জানান, তার ছেলে ফিরে আসায় তিনি খুব খুশি। ঈদের আগে জলদস্যুদের হাতে আটক হওয়ার খবর পাওয়ায় তাদের পরিবারে ঈদের আনন্দ হারিয়ে গিয়েছিল। কিন্তু ছেলে ফিরে আসায় তার মনে হচ্ছে আজকে ঈদের দিন। তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও জাহাজ কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানান।

জয়ের বাবা জিয়াউর রহমান জানান, তার ছেলে প্রথম রোজায় জলদস্যুদের হাতে আটক হয়েছিল। তারপর থেকে তারা খুব কষ্টে দিন কেটেছে তাদের।

 

জয় মাহমুদ বলেন, সোমালিয়াতে ৩৩ দিন আটক ছিলেন, গত কালকেই সাইন আপ করছেন। আটক হওয়ার পর আর বাড়ি ফিরতে পারবেন কিনা সেই আতঙ্কে ও কষ্টে ছিলেন। দস্যুরা সবসময় তাদের দিকে বন্দুক তাক করে রাখত। জিম্মি অবস্থায়ও তারা সেখানে রোজা পালন করছেন। সবার দোয়ায় ৩৩ দিন পর তাদের ছেড়ে দেয় দস্যুরা।

Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

error: Content is protected !!

বাড়িতে ফিরলেন জিম্মি নাবিক জয়, পরিবারে মধ্যে বইছে ঈদ আনন্দ

আপডেট টাইম : ৭ ঘন্টা আগে
সোমালি জলদস্যুদের হাতে জিম্মি জাহাজ এমভি আবদুল্লাহর নাবিক নাটোরের বাগাতিপাড়ার জয় মাহমুদের ফিরে আসায় পরিবারে বইছে ঈদের আনন্দ। গত ১২ মার্চ ভারত মহাসাগরে সোমালিয়ান জলদস্যুদের হাতে জিম্মি বাংলাদেশী পণ্যবাহী জাহাজ এবং ২৩ নাবিক ও ক্রুদের মধ্যে তিনি ওই জাহাজের সাধারণ নাবিক (ওএস) হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

বুধবার( ১৫ মে) সকালে তিনি তার নিজ বাড়িতে ফিরে আসেন। জয় মাহমুদ উপজেলার বাগাতিপাড়ার ১নং পাঁকা ইউনিয়নের  সালাইনগর দক্ষিণপাড়া গ্রামের জিয়াউর রহমানের ও আরিফা বেগম দম্পতির ছেলে।

জয়ের মা আরিফা বেগম (৫০) জানান, তার ছেলে ফিরে আসায় তিনি খুব খুশি। ঈদের আগে জলদস্যুদের হাতে আটক হওয়ার খবর পাওয়ায় তাদের পরিবারে ঈদের আনন্দ হারিয়ে গিয়েছিল। কিন্তু ছেলে ফিরে আসায় তার মনে হচ্ছে আজকে ঈদের দিন। তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও জাহাজ কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানান।

জয়ের বাবা জিয়াউর রহমান জানান, তার ছেলে প্রথম রোজায় জলদস্যুদের হাতে আটক হয়েছিল। তারপর থেকে তারা খুব কষ্টে দিন কেটেছে তাদের।

 

জয় মাহমুদ বলেন, সোমালিয়াতে ৩৩ দিন আটক ছিলেন, গত কালকেই সাইন আপ করছেন। আটক হওয়ার পর আর বাড়ি ফিরতে পারবেন কিনা সেই আতঙ্কে ও কষ্টে ছিলেন। দস্যুরা সবসময় তাদের দিকে বন্দুক তাক করে রাখত। জিম্মি অবস্থায়ও তারা সেখানে রোজা পালন করছেন। সবার দোয়ায় ৩৩ দিন পর তাদের ছেড়ে দেয় দস্যুরা।