ঢাকা , সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
Logo ফরিদপুর সদর উপজেলার শিবরামপুর এলাকায় অনুমোদনহীন ভেজাল গুড় কারখানায় অভিযান Logo কুমারখালীতে ভোটের দিনে প্রতিপক্ষের হামলা, আহত ব্যাক্তির মৃত্যু Logo কুষ্টিয়ায় হাতের রগ কাটা যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার Logo ফরিদপুরে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ‌১২৫ তম জন্মবার্ষিকী পালিত Logo কুষ্টিয়ায় শ্যালকের বিয়েতে গিয়ে দুলাভাইয়ের কারাদণ্ড Logo তানোরে কনিষ্ঠ প্রার্থীর সর্ববৃহৎ জয়, রাজনৈতিক অঙ্গনে চাঞ্চল্য Logo যশোরে পৃথক দুটি সড়ক দুর্ঘটনায় দুইজন নিহত Logo আমতলী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে জনপ্রিয়তায় এগিয়ে যুথী Logo হাতিয়ার সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যাপক ওয়ালী উল্যাহর মৃত্যুতে স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত Logo সুন্দরবন, বেনাপুল ও চিত্রা বন্ধ ট্রেন চালুর দাবিতে ভেড়ামারায় মানববন্ধন
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষঃ পিডি’র শার্টের কলার ধরার পর ঠিকাদারদের সঙ্গে আপস !

রাজশাহীতে বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিএমডিএ) এক প্রকল্পের খাল খননের কাজ না পেয়ে ক্ষুব্ধ হয়েছিলেন স্থানীয় ঠিকাদারেরা। তাদের একজন এ প্রকল্পের পরিচালক (পিডি) সুমন্ত কুমার বসাকের শার্টের কলারও চেপে ধরেছিলেন। অজ্ঞাত কারণে এখন ওই ঠিকাদারদের সঙ্গেই আপস করছে বিএমডিএ। এমনকি  যে কাজগুলো না পেয়ে রাজশাহীর ঠিকাদাররা পিডির ওপর চটেছিলেন সেই কাজের দরপত্র বাতিল করেছে কর্তৃপক্ষ। এখন আবার নতুন করে দরপত্র আহ্বান করা হবে। সেখানে সব ঠিকাদারদের অন্তত একটি করে কাজ দেওয়ার মৌখিক আশ্বাসও দেওয়া হয়েছে বলে একাধিক সুত্র নিশ্চিত করেছে।
এদিকে প্রকল্পের কার্যাদেশ বাতিল ও নতুন করে দরপত্র আহবানের খবর ছড়িয়ে পড়লে। কার্যাদেশ পাওয়া ঠিকাদারগণ বিক্ষুদ্ধ হয়ে উঠেছে। এসব ঠিকাদারগণ এবিষয়ে কৃষি মন্ত্রণালয়ের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএমডিএ’র এক কর্মকর্তা বলেন, ঘুষ দেয়া নেয়া দুটোই সমান অপরাধ। তিনি বলেন, ঘুষ দিয়ে কাজ না পেয়ে কর্মকর্তাকে লাঞ্ছিত করার পরেও  শাস্তি না পেয়ে উল্টো কার্যাদেশ বাতিলসহ তাদের সঙ্গেই আপোষ করতে হলো এটা পুরো বিএমডিএ’র লজ্জা।
জানা গেছে, বিএমডিএ’র তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী সুমন্ত কুমার বসাক ভূ-উপরিস্থ পানির সর্বোত্তম ব্যবহার ও বৃষ্টির পানি সংরক্ষণের মাধ্যমে নাটোর জেলায় সেচ সম্প্রসারণ’ প্রকল্পের পরিচালক। সম্প্রতি তিনি খাল খননের ২৫টি কাজের দরপত্র আহ্বান করেন। প্রতিটি কাজ ১৮ থেকে ২০ লাখ টাকার। এই কাজগুলো পান নাটোর, নওগাঁ ও ঈশ্বরদীর ঠিকাদাররা। রাজশাহীর কেউ কাজ পাননি।
এ কারণে রাজশাহীর ঠিকাদারদের তোপের মুখে পড়ার ভয়ে প্রায় ১০ দিন ধরে সুমন্ত কুমার বসাক অফিসেই যাচ্ছিলেন না। অবশেষে গত ২৮ এপ্রিল তিনি অফিসে যান। এ সময় ঠিকাদাররাও বরেন্দ্র ভবনে যান। তখন সুমন্ত কুমার বসাক অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী শামসুল হাদার কক্ষে ঠিকাদারদের নিয়ে বসেন। সেখানে রাজশাহী মহানগর  কৃষক লীগের এক নেতা ও বিএমডিএর ঠিকাদার প্রকৌশলী সুমন্ত কুমার বসাককে রীতিমতো ধমকাতে শুরু করেন। তাদের
তর্কবিতর্কের একপর্যায়ে পাশে বসে থাকা ঠিকাদার জনৈক রাসেল প্রকৌশলী সুমন্ত কুমার বসাকের শার্টের কলার চেপে ধরেন। শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন।
এঘটনার পর থেকে সুমন্ত কুমার বসাক সাংবাদিকদের ফোন ধরছেন না। সাক্ষাৎ দিচ্ছেন না অফিসে গেলেও। তবে বিএমডিএ’র নির্বাহী পরিচালক আবদুর রশিদ ও অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী শামসুল হোদা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। ঘটনার পর নির্বাহী পরিচালক জানিয়েছিলেন, এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে এক সপ্তাহ পরও কোনো আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। জানতে চাইলে নির্বাহী পরিচালক আবদুর রশিদ বলেন, যে মাইর খেয়েছে, সে যদি অভিযোগ করতে না চায় তাহলে আর কী করার আছে। সে তো কোনো অভিযোগ করতে চায় না। দরপত্র বাতিল করে দেওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, টেন্ডার প্রক্রিয়ায় ত্রুটি ছিল। সে জন্য বাতিল করে দেওয়া হয়েছে। নতুন করে টেন্ডার হবে। তিনি বলেন, টেন্ডার বাতিলের মাধ্যমে কারও সঙ্গে আপস করা হচ্ছে না।
এদিকে স্থানীয় একাধিক সুত্র জানায়, প্রকল্পের পরিচালক সুমন্ত কুমার বসাকের বিরুদ্ধে অনিয়ম-দুর্নীতি ও লুটপাটের মাধ্যমে বিপুল সম্পদ অর্জনের অভিযোগ রয়েছে। তিনি ঠিকাদারদের কাছ থেকে ‘পার্সেন্টেজ’ নেন বলেও অভিযোগ আছে। শার্টের কলার চেপে ধরার পর রাজশাহীর ঠিকাদাররা দাবি করেছিলেন, এই কাজগুলো দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে পিডি সুমন্ত কুমার বসাক তাদের কাছ থেকে নানা অনৈতিক সুবিধা নিয়েছেন। কিন্তু আরও বেশি সুবিধা পেয়ে তিনি নাটোর, নওগাঁ ও ঈশ্বরদীর ঠিকাদারদের কাজ দিয়েছেন। তারা এর প্রতিবাদ জানিয়েছেন।
এসব বিষয়ে জানতে সুমন্ত কুমার বসাককে ফোন দেওয়া হলেও তিনি ফোন ধরেননি।
Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

ফরিদপুর সদর উপজেলার শিবরামপুর এলাকায় অনুমোদনহীন ভেজাল গুড় কারখানায় অভিযান

error: Content is protected !!

বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষঃ পিডি’র শার্টের কলার ধরার পর ঠিকাদারদের সঙ্গে আপস !

আপডেট টাইম : ০৩:০১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৯ মে ২০২৪
রাজশাহীতে বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিএমডিএ) এক প্রকল্পের খাল খননের কাজ না পেয়ে ক্ষুব্ধ হয়েছিলেন স্থানীয় ঠিকাদারেরা। তাদের একজন এ প্রকল্পের পরিচালক (পিডি) সুমন্ত কুমার বসাকের শার্টের কলারও চেপে ধরেছিলেন। অজ্ঞাত কারণে এখন ওই ঠিকাদারদের সঙ্গেই আপস করছে বিএমডিএ। এমনকি  যে কাজগুলো না পেয়ে রাজশাহীর ঠিকাদাররা পিডির ওপর চটেছিলেন সেই কাজের দরপত্র বাতিল করেছে কর্তৃপক্ষ। এখন আবার নতুন করে দরপত্র আহ্বান করা হবে। সেখানে সব ঠিকাদারদের অন্তত একটি করে কাজ দেওয়ার মৌখিক আশ্বাসও দেওয়া হয়েছে বলে একাধিক সুত্র নিশ্চিত করেছে।
এদিকে প্রকল্পের কার্যাদেশ বাতিল ও নতুন করে দরপত্র আহবানের খবর ছড়িয়ে পড়লে। কার্যাদেশ পাওয়া ঠিকাদারগণ বিক্ষুদ্ধ হয়ে উঠেছে। এসব ঠিকাদারগণ এবিষয়ে কৃষি মন্ত্রণালয়ের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএমডিএ’র এক কর্মকর্তা বলেন, ঘুষ দেয়া নেয়া দুটোই সমান অপরাধ। তিনি বলেন, ঘুষ দিয়ে কাজ না পেয়ে কর্মকর্তাকে লাঞ্ছিত করার পরেও  শাস্তি না পেয়ে উল্টো কার্যাদেশ বাতিলসহ তাদের সঙ্গেই আপোষ করতে হলো এটা পুরো বিএমডিএ’র লজ্জা।
জানা গেছে, বিএমডিএ’র তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী সুমন্ত কুমার বসাক ভূ-উপরিস্থ পানির সর্বোত্তম ব্যবহার ও বৃষ্টির পানি সংরক্ষণের মাধ্যমে নাটোর জেলায় সেচ সম্প্রসারণ’ প্রকল্পের পরিচালক। সম্প্রতি তিনি খাল খননের ২৫টি কাজের দরপত্র আহ্বান করেন। প্রতিটি কাজ ১৮ থেকে ২০ লাখ টাকার। এই কাজগুলো পান নাটোর, নওগাঁ ও ঈশ্বরদীর ঠিকাদাররা। রাজশাহীর কেউ কাজ পাননি।
এ কারণে রাজশাহীর ঠিকাদারদের তোপের মুখে পড়ার ভয়ে প্রায় ১০ দিন ধরে সুমন্ত কুমার বসাক অফিসেই যাচ্ছিলেন না। অবশেষে গত ২৮ এপ্রিল তিনি অফিসে যান। এ সময় ঠিকাদাররাও বরেন্দ্র ভবনে যান। তখন সুমন্ত কুমার বসাক অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী শামসুল হাদার কক্ষে ঠিকাদারদের নিয়ে বসেন। সেখানে রাজশাহী মহানগর  কৃষক লীগের এক নেতা ও বিএমডিএর ঠিকাদার প্রকৌশলী সুমন্ত কুমার বসাককে রীতিমতো ধমকাতে শুরু করেন। তাদের
তর্কবিতর্কের একপর্যায়ে পাশে বসে থাকা ঠিকাদার জনৈক রাসেল প্রকৌশলী সুমন্ত কুমার বসাকের শার্টের কলার চেপে ধরেন। শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন।
এঘটনার পর থেকে সুমন্ত কুমার বসাক সাংবাদিকদের ফোন ধরছেন না। সাক্ষাৎ দিচ্ছেন না অফিসে গেলেও। তবে বিএমডিএ’র নির্বাহী পরিচালক আবদুর রশিদ ও অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী শামসুল হোদা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। ঘটনার পর নির্বাহী পরিচালক জানিয়েছিলেন, এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে এক সপ্তাহ পরও কোনো আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। জানতে চাইলে নির্বাহী পরিচালক আবদুর রশিদ বলেন, যে মাইর খেয়েছে, সে যদি অভিযোগ করতে না চায় তাহলে আর কী করার আছে। সে তো কোনো অভিযোগ করতে চায় না। দরপত্র বাতিল করে দেওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, টেন্ডার প্রক্রিয়ায় ত্রুটি ছিল। সে জন্য বাতিল করে দেওয়া হয়েছে। নতুন করে টেন্ডার হবে। তিনি বলেন, টেন্ডার বাতিলের মাধ্যমে কারও সঙ্গে আপস করা হচ্ছে না।
এদিকে স্থানীয় একাধিক সুত্র জানায়, প্রকল্পের পরিচালক সুমন্ত কুমার বসাকের বিরুদ্ধে অনিয়ম-দুর্নীতি ও লুটপাটের মাধ্যমে বিপুল সম্পদ অর্জনের অভিযোগ রয়েছে। তিনি ঠিকাদারদের কাছ থেকে ‘পার্সেন্টেজ’ নেন বলেও অভিযোগ আছে। শার্টের কলার চেপে ধরার পর রাজশাহীর ঠিকাদাররা দাবি করেছিলেন, এই কাজগুলো দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে পিডি সুমন্ত কুমার বসাক তাদের কাছ থেকে নানা অনৈতিক সুবিধা নিয়েছেন। কিন্তু আরও বেশি সুবিধা পেয়ে তিনি নাটোর, নওগাঁ ও ঈশ্বরদীর ঠিকাদারদের কাজ দিয়েছেন। তারা এর প্রতিবাদ জানিয়েছেন।
এসব বিষয়ে জানতে সুমন্ত কুমার বসাককে ফোন দেওয়া হলেও তিনি ফোন ধরেননি।