ঢাকা , শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

তানোরে জমি জবর দখলের অভিযোগ

রাজশাহীর তানোরের কলমা ইউনিয়নের (ইউপি) চৈতপুর মৌজায় প্রায় ৫বিঘা ফসলি জমি জবর দখলের অভিযোগ উঠেছে।স্থানীয়রা কোনো কাজপত্র ছাড়াই গ্রামের প্রভাবশালী মতিউর রহমান জোরপুর্বক এসব জমি জবর দখলে মরিয়া হয়ে উঠেছে। এ ঘটনায় গ্রামবাসির মাঝে চরম উত্তেজনাকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে।
এদিকে এ ঘটনায় জাকারিয়া ইসলাম বাদি হয়ে তানোর থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন। কিন্ত্ত বিবাদী মতিউর রহমান দিগর থানায় উপস্থিত হয়নি।
স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার কলমা ইউনিয়নের (ইউপি) জেল নম্বর ২৯ মৌজা চৈতপুর দাগ নম্বর ১২২ জমির পরিমান ৫০ শতক শ্রেণী পুকুর-কৃষি। উক্ত সম্পত্তির মালিক চৈতপুর গ্রামের আমেনা বেগম। তার নামে খাজনা-খারিজ করা আছে।
একই মৌজায় ১২১ নম্বর দাগে ৩৫ শতক সম্পত্তি একই গ্রামের সাগরী বেগমের নামে খাজনা-খারিজ করা আছে। একই মৌজায় ১২২ নম্বর দাগে ৩৩ শতক সম্পত্তি একই গ্রামের শিরিনা বেগমের নামে খাজনা-খারিজ করা আছে। একই মৌজায় ৭২ নম্বর দাগে ৩১ শতক ও ৭৩ নম্বর দাগে ২১ শতক সম্পত্তি একই গ্রামের পলাশের নামে খাজনা-খারিজ করা আছে। তাদের ৪ জনের নামে মোট ১৭০ শতক সম্পত্তি খাজনা-খারিজ করা আছে।
কিন্ত্ত  চৈতপুর গ্রামের মমতাজ আলী সোনারের পুত্র মতিউর রহমান, মৃত রবু  মন্ডলের পুত্র মফিজুল ইসলাম ও একই গ্রামের জমির মন্ডল। তারা সিন্ডিকেট সৃষ্টি করে এসব জমি জবরদখল করেছে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে মতিউর রহমান অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, জমি তাদের দখলে আছে যা হবার তা কোর্টে হবে।
Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

জনপ্রিয় সংবাদ
error: Content is protected !!

তানোরে জমি জবর দখলের অভিযোগ

আপডেট টাইম : ০৭:৩৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪
রাজশাহীর তানোরের কলমা ইউনিয়নের (ইউপি) চৈতপুর মৌজায় প্রায় ৫বিঘা ফসলি জমি জবর দখলের অভিযোগ উঠেছে।স্থানীয়রা কোনো কাজপত্র ছাড়াই গ্রামের প্রভাবশালী মতিউর রহমান জোরপুর্বক এসব জমি জবর দখলে মরিয়া হয়ে উঠেছে। এ ঘটনায় গ্রামবাসির মাঝে চরম উত্তেজনাকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে।
এদিকে এ ঘটনায় জাকারিয়া ইসলাম বাদি হয়ে তানোর থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন। কিন্ত্ত বিবাদী মতিউর রহমান দিগর থানায় উপস্থিত হয়নি।
স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার কলমা ইউনিয়নের (ইউপি) জেল নম্বর ২৯ মৌজা চৈতপুর দাগ নম্বর ১২২ জমির পরিমান ৫০ শতক শ্রেণী পুকুর-কৃষি। উক্ত সম্পত্তির মালিক চৈতপুর গ্রামের আমেনা বেগম। তার নামে খাজনা-খারিজ করা আছে।
একই মৌজায় ১২১ নম্বর দাগে ৩৫ শতক সম্পত্তি একই গ্রামের সাগরী বেগমের নামে খাজনা-খারিজ করা আছে। একই মৌজায় ১২২ নম্বর দাগে ৩৩ শতক সম্পত্তি একই গ্রামের শিরিনা বেগমের নামে খাজনা-খারিজ করা আছে। একই মৌজায় ৭২ নম্বর দাগে ৩১ শতক ও ৭৩ নম্বর দাগে ২১ শতক সম্পত্তি একই গ্রামের পলাশের নামে খাজনা-খারিজ করা আছে। তাদের ৪ জনের নামে মোট ১৭০ শতক সম্পত্তি খাজনা-খারিজ করা আছে।
কিন্ত্ত  চৈতপুর গ্রামের মমতাজ আলী সোনারের পুত্র মতিউর রহমান, মৃত রবু  মন্ডলের পুত্র মফিজুল ইসলাম ও একই গ্রামের জমির মন্ডল। তারা সিন্ডিকেট সৃষ্টি করে এসব জমি জবরদখল করেছে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে মতিউর রহমান অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, জমি তাদের দখলে আছে যা হবার তা কোর্টে হবে।