ঢাকা , শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
Logo ফরিদপুর জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান Logo কোটা আন্দোলন : শিবগঞ্জে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ-সমাবেশ Logo মাগুরায় চাকরির প্রলোভনে টাকা হাতিয়ে উল্টো ভুক্তভোগীর বিরুদ্ধেই মামলার অভিযোগ Logo খোকসায় উপজেলা ছাত্র কল্যাণ পরিষদ মেধাবী শিক্ষার্থী মারিয়াকে সংবর্ধনা প্রদান Logo চাঁপাইনবাবগঞ্জে বজ্রপাতে দুই কৃষক নিহত Logo কালুখালীতে ফুটবল টুর্ণামেন্টের ফাইনাল খেলা Logo ১২০ কেজি অবৈধ পলিথিন জব্দ, ১২ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত Logo তানোরে সড়ক দূর্ঘটনায় শোডাউনের এক মাইক্রোবাস চালক নিহত Logo যৌতুকের দাবিতে কলেজছাত্রীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ Logo সদরপুরে ৪ কেজি গাঁজা সহ ব্যবসায়ী কে আটক করেছে ডি বি পুলিশ
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

কালুখালীতে রাসেল’স ভাইপার গুজব, দিশেহারা মানুষ

রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলার চরাঞ্চলে দু  একটা রাসেল’স ভাইপার থাকলেও বিভিন্ন মিডিয়া প্রচারনা তা অনেকগুন বেড়ে গেছে। ফলে কালুখালীর মানুষ এর আতংকে দিশেহারা হয়ে পড়েছে। গুজব ছড়ানোর কারনে অনেক জায়গায় ফসল পরিচর্যার শ্রমিক সংকট দেখা দিয়েছে। হাট বাজার, চা দোকান সর্বত্র চলছে রাসেল’স ভাইপার এর গুজব ছড়ানো গল্প।
প্রথম ২০২০ সালে কালুখালীর লস্করদিয়া নায়াপুর চরে রাসেল’স ভাইপার বা চন্দ্রবোড়া সাপের সন্ধান মেলে। ওই সময় সাপটি মারতে গেলে কালুখালী প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক শহিদুল ইসলাম সাপটি না মারার জন্য চরের মানুষদের অনুরোধ করেন। তারা সাপটি জীবীত ধরে। পরে তা কালুখালীর সর্প খামারে পালন করতে দেয়। এর ২ বছর পর ২০২২ সালে বেলগাছীর পুরাতন বাজার এলাকায় এক জেলের মাছ ধরা  দুয়ারীতে ১টি রাসেল’স ভাইপার ধরা পরে। সেটি ধরার পরই স্থানীয়রা সাপটি মেরে মাটিতে পুতে রাখে। এরপর আর কখনো কালুখালীর চরাঞ্চলে রাসেল’স ভাইপার বা চন্দ্র বোড়া সাপের দেখা মেলেনি। তারপর প্রতিদিন নদীর স্রোতের গতিতে ছড়িয়ে পড়ছে সাপ আতংক।
সোমবার বিকেলে কালুখালীর নজরুলের চা দোকানে গল্প চলছিলো রাসেল’স ভাইপার নিয়ে। গল্পে অংশগ্রহনকারীদের বয়স ৫০ থেকে ৭০ বছর। তারা জানায়, জীবনে এ সাপ দেখিনি। মোবাইলে দেখছি তাই ভয় লাগে।
কালুখালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মহুয়া আফরোজ জানান, আদিকাল থেকেই চন্দ্রবোড়া সাপ আমাদের দেশে আছে। এ নিয়ে আতংকিত হবার কিছু নেই। কালুখালীর বিভিন্ন এলাকায় রাসেল’স ভাইপার বা চন্দ্রবোড়া সাপ খোজা হচ্ছে কিন্তু দেখা মেলেনি।
কালুখালী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা ইশরাত জাহান উম্মন জানান, সাপে দংশন করা রোগী পেয়েছি কিন্তু রাসেল’স ভাইপার বা চন্দ্রবোড়া সাপের রোগী পাইনি। এ সাপে কারো কামড় দিলে দ্রুত হাসপাতালে ভর্তি করার পরামর্শ দেন তিনি ।
তিনি জানান,  কালুখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পর্যাপ্ত এন্টি বেনম আছে। সময় মতো হাসপাতালে আনলে রোগীকে বাঁচানো সম্ভব। তিনি বলেন, সাপে কামড় দিলে ক্ষতস্থান নাড়াচাড়া, ধুয়া মুছা না করে হাসপাতালে আনলে বেশি ভালো হয়।
Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

জনপ্রিয় সংবাদ

ফরিদপুর জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান

error: Content is protected !!

কালুখালীতে রাসেল’স ভাইপার গুজব, দিশেহারা মানুষ

আপডেট টাইম : ০৫:৩৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪
রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলার চরাঞ্চলে দু  একটা রাসেল’স ভাইপার থাকলেও বিভিন্ন মিডিয়া প্রচারনা তা অনেকগুন বেড়ে গেছে। ফলে কালুখালীর মানুষ এর আতংকে দিশেহারা হয়ে পড়েছে। গুজব ছড়ানোর কারনে অনেক জায়গায় ফসল পরিচর্যার শ্রমিক সংকট দেখা দিয়েছে। হাট বাজার, চা দোকান সর্বত্র চলছে রাসেল’স ভাইপার এর গুজব ছড়ানো গল্প।
প্রথম ২০২০ সালে কালুখালীর লস্করদিয়া নায়াপুর চরে রাসেল’স ভাইপার বা চন্দ্রবোড়া সাপের সন্ধান মেলে। ওই সময় সাপটি মারতে গেলে কালুখালী প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক শহিদুল ইসলাম সাপটি না মারার জন্য চরের মানুষদের অনুরোধ করেন। তারা সাপটি জীবীত ধরে। পরে তা কালুখালীর সর্প খামারে পালন করতে দেয়। এর ২ বছর পর ২০২২ সালে বেলগাছীর পুরাতন বাজার এলাকায় এক জেলের মাছ ধরা  দুয়ারীতে ১টি রাসেল’স ভাইপার ধরা পরে। সেটি ধরার পরই স্থানীয়রা সাপটি মেরে মাটিতে পুতে রাখে। এরপর আর কখনো কালুখালীর চরাঞ্চলে রাসেল’স ভাইপার বা চন্দ্র বোড়া সাপের দেখা মেলেনি। তারপর প্রতিদিন নদীর স্রোতের গতিতে ছড়িয়ে পড়ছে সাপ আতংক।
সোমবার বিকেলে কালুখালীর নজরুলের চা দোকানে গল্প চলছিলো রাসেল’স ভাইপার নিয়ে। গল্পে অংশগ্রহনকারীদের বয়স ৫০ থেকে ৭০ বছর। তারা জানায়, জীবনে এ সাপ দেখিনি। মোবাইলে দেখছি তাই ভয় লাগে।
কালুখালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মহুয়া আফরোজ জানান, আদিকাল থেকেই চন্দ্রবোড়া সাপ আমাদের দেশে আছে। এ নিয়ে আতংকিত হবার কিছু নেই। কালুখালীর বিভিন্ন এলাকায় রাসেল’স ভাইপার বা চন্দ্রবোড়া সাপ খোজা হচ্ছে কিন্তু দেখা মেলেনি।
কালুখালী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা ইশরাত জাহান উম্মন জানান, সাপে দংশন করা রোগী পেয়েছি কিন্তু রাসেল’স ভাইপার বা চন্দ্রবোড়া সাপের রোগী পাইনি। এ সাপে কারো কামড় দিলে দ্রুত হাসপাতালে ভর্তি করার পরামর্শ দেন তিনি ।
তিনি জানান,  কালুখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পর্যাপ্ত এন্টি বেনম আছে। সময় মতো হাসপাতালে আনলে রোগীকে বাঁচানো সম্ভব। তিনি বলেন, সাপে কামড় দিলে ক্ষতস্থান নাড়াচাড়া, ধুয়া মুছা না করে হাসপাতালে আনলে বেশি ভালো হয়।