ঢাকা , শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

তারেককে দেশে এনে শাস্তি দিলে বিএনপির অরাজকতা বন্ধ হবে: হানিফ

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেছেন, ‌‌‌‌‌‌‘তারেক রহমানকে দেশে এনে বিচার করে শাস্তি দিতে পারলে বিএনপির যে অরাজকতা তা বন্ধ হয়ে যাবে। কারণ, এ দেশে যতো সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড সব বিএনপির নেতৃত্বে হয় এবং লন্ডনে বসে তারেক রহমানের নেতৃত্বেই হয়।’

শুক্রবার (৩১ মে) বেলা ১১টার দিকে কুষ্টিয়া শহরের পিটিআই রোডের নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি।

মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, বাংলাদেশের রাজনীতিতে যে অবক্ষয়, রাজনীতিতে যে দুর্বৃত্তায়ন এর সবকিছুই সৃষ্টি হয়েছিল জিয়াউর রহমানের হাত ধরে। ১৯৭৫ সালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার পর রাষ্ট্র ক্ষমতা দখল করেন জিয়াউর রহমান। তখনই তিনি এই দেশের রাজনীতিকে ধ্বংস করে দিয়েছিলেন। সেটা জিয়াউর রহমান বহুবার বলেছিলেন। আওয়ামী লীগকে ধ্বংস করতে তিনি সেই সময় মিজান চৌধুরীসহ অনেক রাজনীতিবিদদের টাকা দিয়ে দল ভেঙে ছিলেন। সেই দলের একজন কর্মী মির্জা ফখরুলের এতো বড় গলায় কথা বলার কোনো সুযোগ নেই।

তিনি আরও বলেন, একটা প্রবাদ আছে, চোরের মায়ের বড় গলা, মির্জা ফখরুলের এখন সেটাই হয়েছেন। এই বাংলাদেশে যতো অন্যায়-অনিয়ম, হত্যা-খুন ও রাহাজানি সবই হয়েছে ২০০১ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত বিএনপি রাষ্ট্র ক্ষমতায় থাকতে।

জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধি নিয়ে হানিফ বলেন, তেলের দাম ১ টাকা আর ২টাকা বৃদ্ধি পাক তা সাধারণ মানুষের ওপর চাপ হয়। আমদানি মূল্য বৃদ্ধি পাওয়ায় সরকারকে দাম বাড়াতে হচ্ছে।

 

এ সময় অন্যদের মধ্যে কুষ্টিয়া-২ আসনের সংসদ সদস্য কামারুল আরেফিন, কুষ্টিয়া সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক শিশির কুমার রায়, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আমজাদ হোসেন রাজু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

জনপ্রিয় সংবাদ
error: Content is protected !!

তারেককে দেশে এনে শাস্তি দিলে বিএনপির অরাজকতা বন্ধ হবে: হানিফ

আপডেট টাইম : ০৭:০৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১ জুন ২০২৪

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেছেন, ‌‌‌‌‌‌‘তারেক রহমানকে দেশে এনে বিচার করে শাস্তি দিতে পারলে বিএনপির যে অরাজকতা তা বন্ধ হয়ে যাবে। কারণ, এ দেশে যতো সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড সব বিএনপির নেতৃত্বে হয় এবং লন্ডনে বসে তারেক রহমানের নেতৃত্বেই হয়।’

শুক্রবার (৩১ মে) বেলা ১১টার দিকে কুষ্টিয়া শহরের পিটিআই রোডের নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি।

মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, বাংলাদেশের রাজনীতিতে যে অবক্ষয়, রাজনীতিতে যে দুর্বৃত্তায়ন এর সবকিছুই সৃষ্টি হয়েছিল জিয়াউর রহমানের হাত ধরে। ১৯৭৫ সালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার পর রাষ্ট্র ক্ষমতা দখল করেন জিয়াউর রহমান। তখনই তিনি এই দেশের রাজনীতিকে ধ্বংস করে দিয়েছিলেন। সেটা জিয়াউর রহমান বহুবার বলেছিলেন। আওয়ামী লীগকে ধ্বংস করতে তিনি সেই সময় মিজান চৌধুরীসহ অনেক রাজনীতিবিদদের টাকা দিয়ে দল ভেঙে ছিলেন। সেই দলের একজন কর্মী মির্জা ফখরুলের এতো বড় গলায় কথা বলার কোনো সুযোগ নেই।

তিনি আরও বলেন, একটা প্রবাদ আছে, চোরের মায়ের বড় গলা, মির্জা ফখরুলের এখন সেটাই হয়েছেন। এই বাংলাদেশে যতো অন্যায়-অনিয়ম, হত্যা-খুন ও রাহাজানি সবই হয়েছে ২০০১ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত বিএনপি রাষ্ট্র ক্ষমতায় থাকতে।

জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধি নিয়ে হানিফ বলেন, তেলের দাম ১ টাকা আর ২টাকা বৃদ্ধি পাক তা সাধারণ মানুষের ওপর চাপ হয়। আমদানি মূল্য বৃদ্ধি পাওয়ায় সরকারকে দাম বাড়াতে হচ্ছে।

 

এ সময় অন্যদের মধ্যে কুষ্টিয়া-২ আসনের সংসদ সদস্য কামারুল আরেফিন, কুষ্টিয়া সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক শিশির কুমার রায়, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আমজাদ হোসেন রাজু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।