ঢাকা , শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

জনমনে আতংক

নাটোরের নলডাঙ্গায় গভীর রাতে ৮ খড়ের গাদায় আগুন

ছবি- প্রতীকী।

নাটোরের নলডাঙ্গায় একই গ্রামের ৮টি খড়ের গাদায় একযোগে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। গত রাতে উপজেলার পুর্ব মাধনগর গ্রামে এই আগুন লাগানোর ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে নলডাঙ্গা ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে দেড় ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিভিয়ে ফেলে। এ ঘটনার পর থেকে এলাকার মানুষ আতঙ্কে রয়েছেন।
ক্ষতিগ্রস্ত ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার গভীর রাতে দুর্বৃত্তরা পুর্ব মাধনগর গ্রামের ৮ কৃষকের বাড়ির সামনের ৮টি খড়ের গাদায় আগুন ধরিয়ে দেয়। আগুন দেখে লোকজন নেভানোর চেষ্টা করে। পরে দমকল বাহিনীর সদস্যরা গিয়ে আগুন নিভিয়ে ফেলে। ক্ষতিগ্রস্তদের অভিযোগ, গোটা গ্রাম পুড়িয়ে দেওয়ার উদ্দেশ্যে বিভিন্ন স্থানের ৮টি খড়ের গাদায় আগুন ধরিয়ে দেয় দুর্বৃত্তরা।
আগুন লাগানো হয় পূর্ব মাধনগর (হাজিপাড়া) গ্রামের প্রয়াত মকবুল হোসেন প্রাংয়ের ছেলে মাসুদ রানা, পূর্ব মাধনগর (হাড়িগাড়ি পাড়া) গ্রামের প্রয়াত কালাই সিকদারের ছেলে করম আলী, পূর্ব মাধনগর (হাইস্কুল পাড়া) গ্রামের প্রয়াত বাদল সরদারের ছেলে নজরুল ইসলাম, একই পাড়ার প্রয়াত গহর আলীর ছেলে মিলন এবং পূর্ব মাধনগর হিন্দুপাড়া এলাকার প্রয়াত সুরেন্দ্রনাথ মন্ডলের ছেলে অজিদ মন্ডল, মৃত দুলালের ছেলে পিতন ও রমেশের ছেলে সনজিতের খড়ের গদায়।
স্থানীয় বাসিন্দা আনন্দ ও নিতাই দাস জানান, ধান কাটা মৌসুমে তীব্র গরমের মধ্যে দিনভর ধান কাটার পর সবাই অলস শরীর নিয়ে রাতে ঘুমিয়ে পড়েন। এই সুযোগে রাত ২টার দিকে কে বা কারা একই গ্রামের ৮ কৃষকের খড়ের গাদায় একের পর আগুন ধরিয়ে দেয়। চিৎকার চেচা-মেচিতে ঘুম ভেঙ্গে গেলে তারা আগুন আগুন বলে চিৎকার শুনতে পান। ছুটে গিয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা করেন। একটি গাদার আগুন নেভানোর সময় অন্য পাড়ায় অপর খড়ের গাদায় আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। খবর পেয়ে নলডাঙ্গা থেকে ফায়ার কর্মীরা এসে প্রায় দেড় ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এই আগুন লাগানোর ঘটনার পর থেকে এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে। ঘটনাটি আতঙ্ক বা নাশকতা সৃষ্টির জন্য এই আগুন লাগানো হয়েছে বলে তারা মনে করছেন। কেননা, খড়ের গাদার পাশেই সবার বাড়ি রয়েছে। বাড়ি-ঘরে আগুন ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা ছিল। কেউ কেউ মনে করছেন, গ্রামের বখাটেরা তামাশা করার জন্য এই আগুন লাগিয়ে থাকতে পারে।
নলডাঙ্গা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ইনচার্জ হাবিবুর রহমান জানান, অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে ফায়ার কর্মীরা দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রায় দেড় ঘণ্টা চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। খড়ের গাদায় আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে।
নলডাঙ্গা থানার ওসি মনোয়ারুজ্জামান জানান, রাতেই খবর পাওয়ার পর পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। তদন্ত করে দেখে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ঘটনাটি নাশকতা কিনা, তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।
Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

জনপ্রিয় সংবাদ
error: Content is protected !!

জনমনে আতংক

নাটোরের নলডাঙ্গায় গভীর রাতে ৮ খড়ের গাদায় আগুন

আপডেট টাইম : ০৯:২৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩ মে ২০২৪
নাটোরের নলডাঙ্গায় একই গ্রামের ৮টি খড়ের গাদায় একযোগে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। গত রাতে উপজেলার পুর্ব মাধনগর গ্রামে এই আগুন লাগানোর ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে নলডাঙ্গা ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে দেড় ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিভিয়ে ফেলে। এ ঘটনার পর থেকে এলাকার মানুষ আতঙ্কে রয়েছেন।
ক্ষতিগ্রস্ত ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার গভীর রাতে দুর্বৃত্তরা পুর্ব মাধনগর গ্রামের ৮ কৃষকের বাড়ির সামনের ৮টি খড়ের গাদায় আগুন ধরিয়ে দেয়। আগুন দেখে লোকজন নেভানোর চেষ্টা করে। পরে দমকল বাহিনীর সদস্যরা গিয়ে আগুন নিভিয়ে ফেলে। ক্ষতিগ্রস্তদের অভিযোগ, গোটা গ্রাম পুড়িয়ে দেওয়ার উদ্দেশ্যে বিভিন্ন স্থানের ৮টি খড়ের গাদায় আগুন ধরিয়ে দেয় দুর্বৃত্তরা।
আগুন লাগানো হয় পূর্ব মাধনগর (হাজিপাড়া) গ্রামের প্রয়াত মকবুল হোসেন প্রাংয়ের ছেলে মাসুদ রানা, পূর্ব মাধনগর (হাড়িগাড়ি পাড়া) গ্রামের প্রয়াত কালাই সিকদারের ছেলে করম আলী, পূর্ব মাধনগর (হাইস্কুল পাড়া) গ্রামের প্রয়াত বাদল সরদারের ছেলে নজরুল ইসলাম, একই পাড়ার প্রয়াত গহর আলীর ছেলে মিলন এবং পূর্ব মাধনগর হিন্দুপাড়া এলাকার প্রয়াত সুরেন্দ্রনাথ মন্ডলের ছেলে অজিদ মন্ডল, মৃত দুলালের ছেলে পিতন ও রমেশের ছেলে সনজিতের খড়ের গদায়।
স্থানীয় বাসিন্দা আনন্দ ও নিতাই দাস জানান, ধান কাটা মৌসুমে তীব্র গরমের মধ্যে দিনভর ধান কাটার পর সবাই অলস শরীর নিয়ে রাতে ঘুমিয়ে পড়েন। এই সুযোগে রাত ২টার দিকে কে বা কারা একই গ্রামের ৮ কৃষকের খড়ের গাদায় একের পর আগুন ধরিয়ে দেয়। চিৎকার চেচা-মেচিতে ঘুম ভেঙ্গে গেলে তারা আগুন আগুন বলে চিৎকার শুনতে পান। ছুটে গিয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা করেন। একটি গাদার আগুন নেভানোর সময় অন্য পাড়ায় অপর খড়ের গাদায় আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। খবর পেয়ে নলডাঙ্গা থেকে ফায়ার কর্মীরা এসে প্রায় দেড় ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এই আগুন লাগানোর ঘটনার পর থেকে এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে। ঘটনাটি আতঙ্ক বা নাশকতা সৃষ্টির জন্য এই আগুন লাগানো হয়েছে বলে তারা মনে করছেন। কেননা, খড়ের গাদার পাশেই সবার বাড়ি রয়েছে। বাড়ি-ঘরে আগুন ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা ছিল। কেউ কেউ মনে করছেন, গ্রামের বখাটেরা তামাশা করার জন্য এই আগুন লাগিয়ে থাকতে পারে।
নলডাঙ্গা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ইনচার্জ হাবিবুর রহমান জানান, অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে ফায়ার কর্মীরা দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রায় দেড় ঘণ্টা চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। খড়ের গাদায় আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে।
নলডাঙ্গা থানার ওসি মনোয়ারুজ্জামান জানান, রাতেই খবর পাওয়ার পর পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। তদন্ত করে দেখে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ঘটনাটি নাশকতা কিনা, তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।