ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ৫ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

ঈশ্বরদীতে কোকেন ব্যবসায়ী আটক

ঈশ্বরদীতে কোকেন ব্যবসা এবং বহনের পুরো তথ্য প্রমান থাকার পরও মাদকের গডফাদারকে (ডিলার) ছেড়ে ৩ সহকারী মাদক ব্যবসায়ীতে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এতে ২০ লক্ষ টাকার নিষিদ্ধ ঘোষিত মাদক (কোকেন) উদ্ধার হলেও ডিলারের কাছে থাকা (৫০০ গ্রাম) ৬০ লক্ষ (ষাট লক্ষ) টাকার কোকেন নিয়ে সটকে পরেছেন ডিলার। ব্যবসায়ীদের গডফাদার (ডিলার) কে আটক করা নিয়ে ইঁদুর-বিড়াল খেলা হয়েছে বলে সমালোচনার ঝঁড় বইছে উপজেলা জুড়ে।

গত বুধবার (২৭ মার্চ) বিকেলে পাবনার ঈশ্বরদী বাজারের একটি সুপারসপের ভিতর থেকে রাজশাহীর বাঘা উপজেলার সমবায় সমিতির অফিসের দুই সহকারীসহ ৩ মাদক কারবারিকে ২০ লাখ টাকার নিষিদ্ধ ঘোষিত মাদকদ্রব্য কোকেনসহ আটক করেছে পুলিশ।

আটককৃত মাদক কারবারিরা হলেন, নাটোরের লালপুর উপজেলার অর্জুনপুরের কুজিপুকুর এলাকার মৃত মসলেম উদ্দিনের ছেলে আরিফুল ইসলাম (৩৮), একই এলাকার সিদ্দিকুর রহমানের ছেলে হাফিজুর রহমান (৩৭) ও একই উপজেলার তসলিম উদ্দিনের ছেলে আরিফ হোসেন (৩৬)।

আটকদের মধ্যে আরিফুল ইসলাম ও আরিফ হোসেন রাজশাহীর বাঘা উপজেলার সমবায় সমিতির অফিস সহকারী হিসেবে কর্মরত রয়েছেন। আর হাফিজুর রহমান নাটোরের লালপুর অর্জনপুর গ্রামের আব্দুল কাদেরের ছেলে কোকেন ডিলার রিগ্যান (৩৫) এর ম্যানেজার হিসেবে মাদক কারবারি দ্বায়িত্বরত আছেন।

ঘটনার সময় কোকেন ডিলার রিগ্যান ৬০ লাখ টাকার ৫শ গ্রাম কোকেনসহ অন্যত্র অবস্থান করার সুনির্দিষ্ট তথ্য পুলিশকে দেন আটককৃত তিন কারবারি ও সোর্স। কিন্তু রিগ্যানকে আটকের বিষয়ে কয়েক ঘন্টা ইঁদুর-বিড়াল খেলা করে সময়ক্ষেপন করা হয়। এরপর তার ভাড়া বাসায় অভিযান চালানো হয়। কিন্তু দীর্ঘ সময় পাওয়ায় ৬০ লাখ টাকার কোকেনসহ সটকে পড়ে রিগ্যান ।

ডিলারকে আটক করতে ইঁদুর-বিড়াল খেলা করা হয়েছে বলে সোর্সরা অভিযোগ করেছেন।

একাধিক সুত্রে জানা যায়, নাটোরের লালপুর অর্জনপুর গ্রামের আব্দুল কাদেরের ছেলে কোকেন ডিলার রিগ্যান পাবনার ঈশ্বরদী সরকারী কলেজের পেছনে বাসাভাড়া নিয়ে মাদকদ্রব্য কোকেনের ব্যবসা চালিয়ে আসছিল। ঘটনার দিন বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে আটক তিন মাদক কারবারি প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে সুকৌশলে ক্রেতার নিকট কোকেন বিক্রয়ের জন্য বাজারের একটি সুপারসপের ভিতরে ৩শ গ্রাম কোকেন নিয়ে অবস্থান করছিল।

খবর পেয়ে আমবাগান ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক হাসান বাসীর পুলিশ ফোর্সসহ এসে তাদের আটক করে। এই সময় তাদের নিকট থেকে কোকেন উদ্ধার করা হয়।

 

 

এসব ব্যাপারে শহরের আমবাগান পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক হাসান বাসীর জানান, ৩শ গ্রাম কোকেন নয়। তিনজনের নিকট থেকে ১৮০ গ্রাম কোকেন উদ্ধার করা হয়েছে। যার আনুমানিক বাজার মুল্য ২০ লাখ টাকা। আর কোকেন ডিলার রিগ্যানের বিষয়ে নিশ্চিত হয়ে তাকে আটকের জন্য অভিযান চালানো হয়। কিন্তু তাকে পাওয়া যায়নি। তবে তাকে শীঘ্রই আটক করা হবে। ঈশ্বরদী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোঃ মনিরুল ইসলাম জানান, মাদক কারবারীদের বিষয়ে কোন ছাড় হবে না। মাদকের অভিযান জোড়দার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে কোকেনসহ আটক তিন কারবারিকে পাবনা আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

জনপ্রিয় সংবাদ
error: Content is protected !!

ঈশ্বরদীতে কোকেন ব্যবসায়ী আটক

আপডেট টাইম : ০৪:৩৩ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৯ মার্চ ২০২৪

ঈশ্বরদীতে কোকেন ব্যবসা এবং বহনের পুরো তথ্য প্রমান থাকার পরও মাদকের গডফাদারকে (ডিলার) ছেড়ে ৩ সহকারী মাদক ব্যবসায়ীতে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এতে ২০ লক্ষ টাকার নিষিদ্ধ ঘোষিত মাদক (কোকেন) উদ্ধার হলেও ডিলারের কাছে থাকা (৫০০ গ্রাম) ৬০ লক্ষ (ষাট লক্ষ) টাকার কোকেন নিয়ে সটকে পরেছেন ডিলার। ব্যবসায়ীদের গডফাদার (ডিলার) কে আটক করা নিয়ে ইঁদুর-বিড়াল খেলা হয়েছে বলে সমালোচনার ঝঁড় বইছে উপজেলা জুড়ে।

গত বুধবার (২৭ মার্চ) বিকেলে পাবনার ঈশ্বরদী বাজারের একটি সুপারসপের ভিতর থেকে রাজশাহীর বাঘা উপজেলার সমবায় সমিতির অফিসের দুই সহকারীসহ ৩ মাদক কারবারিকে ২০ লাখ টাকার নিষিদ্ধ ঘোষিত মাদকদ্রব্য কোকেনসহ আটক করেছে পুলিশ।

আটককৃত মাদক কারবারিরা হলেন, নাটোরের লালপুর উপজেলার অর্জুনপুরের কুজিপুকুর এলাকার মৃত মসলেম উদ্দিনের ছেলে আরিফুল ইসলাম (৩৮), একই এলাকার সিদ্দিকুর রহমানের ছেলে হাফিজুর রহমান (৩৭) ও একই উপজেলার তসলিম উদ্দিনের ছেলে আরিফ হোসেন (৩৬)।

আটকদের মধ্যে আরিফুল ইসলাম ও আরিফ হোসেন রাজশাহীর বাঘা উপজেলার সমবায় সমিতির অফিস সহকারী হিসেবে কর্মরত রয়েছেন। আর হাফিজুর রহমান নাটোরের লালপুর অর্জনপুর গ্রামের আব্দুল কাদেরের ছেলে কোকেন ডিলার রিগ্যান (৩৫) এর ম্যানেজার হিসেবে মাদক কারবারি দ্বায়িত্বরত আছেন।

ঘটনার সময় কোকেন ডিলার রিগ্যান ৬০ লাখ টাকার ৫শ গ্রাম কোকেনসহ অন্যত্র অবস্থান করার সুনির্দিষ্ট তথ্য পুলিশকে দেন আটককৃত তিন কারবারি ও সোর্স। কিন্তু রিগ্যানকে আটকের বিষয়ে কয়েক ঘন্টা ইঁদুর-বিড়াল খেলা করে সময়ক্ষেপন করা হয়। এরপর তার ভাড়া বাসায় অভিযান চালানো হয়। কিন্তু দীর্ঘ সময় পাওয়ায় ৬০ লাখ টাকার কোকেনসহ সটকে পড়ে রিগ্যান ।

ডিলারকে আটক করতে ইঁদুর-বিড়াল খেলা করা হয়েছে বলে সোর্সরা অভিযোগ করেছেন।

একাধিক সুত্রে জানা যায়, নাটোরের লালপুর অর্জনপুর গ্রামের আব্দুল কাদেরের ছেলে কোকেন ডিলার রিগ্যান পাবনার ঈশ্বরদী সরকারী কলেজের পেছনে বাসাভাড়া নিয়ে মাদকদ্রব্য কোকেনের ব্যবসা চালিয়ে আসছিল। ঘটনার দিন বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে আটক তিন মাদক কারবারি প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে সুকৌশলে ক্রেতার নিকট কোকেন বিক্রয়ের জন্য বাজারের একটি সুপারসপের ভিতরে ৩শ গ্রাম কোকেন নিয়ে অবস্থান করছিল।

খবর পেয়ে আমবাগান ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক হাসান বাসীর পুলিশ ফোর্সসহ এসে তাদের আটক করে। এই সময় তাদের নিকট থেকে কোকেন উদ্ধার করা হয়।

 

 

এসব ব্যাপারে শহরের আমবাগান পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক হাসান বাসীর জানান, ৩শ গ্রাম কোকেন নয়। তিনজনের নিকট থেকে ১৮০ গ্রাম কোকেন উদ্ধার করা হয়েছে। যার আনুমানিক বাজার মুল্য ২০ লাখ টাকা। আর কোকেন ডিলার রিগ্যানের বিষয়ে নিশ্চিত হয়ে তাকে আটকের জন্য অভিযান চালানো হয়। কিন্তু তাকে পাওয়া যায়নি। তবে তাকে শীঘ্রই আটক করা হবে। ঈশ্বরদী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোঃ মনিরুল ইসলাম জানান, মাদক কারবারীদের বিষয়ে কোন ছাড় হবে না। মাদকের অভিযান জোড়দার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে কোকেনসহ আটক তিন কারবারিকে পাবনা আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।