ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ৫ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

নিজ বসত ভিটায় বসবাসের অধিকার ফিরে পেতে ৫টি পরিবারের সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত

দীর্ঘ প্রায় দুই বছর ধরে নিজ বসত ভিটা থেকে উচ্ছেদ হয়ে যাযাবরের মত জীবন যাপন করছেন ফরিদপুর সদর উপজেলার মাচ্চর ইউনিয়নের দয়ারামপুর গ্রামের ৫ টি পরিবারের নাবালক শিশুসহ প্রায় ২৫ জন সদস্য। মিথ্যা মামলা দিয়ে তাদের বাড়ি থেকে উচ্ছেদ করে লুটপাট করা হয় তাদের ঘরবাড়ি।ঘরের টিন, বেড়া, জানালা, দরজা, আসবাবপত্রসহ লুঠপাট করে প্রায় ২ কোটি টাকার ক্ষতি করে প্রতিপক্ষরা। শনিবার দুপুরে নিজ বসত ভিটায় বসবাসের অধিকার ফিরে পেতে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে এই ৫ টি পরিবারের সদস্যরা অসহায় ৫ টি পরিবার হলো মোঃ হারুন শেখের পরিবার, সহিদ শেখের পরিবার, লিয়াকত শেখের পরিবার, জাহিদ শেখের পরিবার এবং তাদের ভাগনে সাছু মৃধার পরিবার।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে পাঠ করেন হারুন শেখের মেয়ে নাছরিন আক্তার। তিনি লিখিত বক্তব্যে বলেন, প্রতিপক্ষ দয়ারামপুর গ্রামের আক্কাছ শেখ (৪০), সাখাওয়াত শেখ (৩৫), ওহাব শেখ (৬০), সালাম শেখ (৬২), মঞ্জ শেখ (২৭), নুরুল ইসলাম টুলু (৩৫), এবং আনোয়ার খান (৫০), আবুল কালাম (৫০), কাউছার মোল্যা (২১), অজ্ঞাতনামা আরো ১০/১৫ জন আমার পিতা হারুন শেখ ও আমার নামসহ আমার পরিবারের নারী সদস্য এবং আরো ৪ টি পরিবারের বিরুদ্ধে একটি মিথ্যা মামলা করে দলবল নিয়ে হামলা চালিয়ে প্রান নাশের চেষ্টা করে। আমরা আমাদের ৫ টি পরিবারের প্রায় ২৫ জন সদস্যই জীবন বাঁচাতে বাড়ি থেকে পালিয়ে আত্মিয়ের বাড়িতে আশ্রয় নেই। আমাদের বাড়ি থেকে বিতারিত করে প্রতিপক্ষরা রাতের আধারে তাদের দলবলসহ আমাদের ৫ টি বসত ভিটার বাড়ী-ঘর ভাংচুর করে ঘরের টিন কাঠসহ সকল মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। আমরা প্রায় দুই কোটি টাকার মালামাল নিয়া যায় ও ক্ষতি সাধন করে। কয়েকটি ঘরে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়।
তিনি বলেন, আমরা বিবাদীদের ভয়ে বর্তমানে আমাদের নিজ নিজ ভিটায় প্রায় ২ বছর যাবত বসবাস করিতে পারছিনা। আমিসহ আমাদের ৫টি পরিবারের সমস্ত লোকগুলো ফেরারী অবস্থায় এলোমেলোভাবে অর্ধাহারে অনাহারে দিনাতিপাত করছি। আমাদের পরিবারের প্রায় ৩০ বিঘা জমি আমরা চাষাবাদ করতে পারছি না। কিছু জমি বিবাদীগণ জোরপূর্বক দখল করে রেখেছে।
তিনি বলেন, বর্তমানে আমাদের ৫টি পরিবারের ছোট বড় নাবালক শিশুসহ আনুমানিক ২৫ জন সদস্য বিবাদীদের ভয়ে জীবনের নিরাপত্তাহীনতায় ভুগিতেছি। আমরা আমাদের নিজ নিজ বসত ভিটায় নতুন করিয়া ঘর তুলিয়া শান্তিতে বসবাস করতে পারি এবং আমাদের চাষের জমিতে চাষাবাদ করে ফসলাদী বুনান করে ভোগ করে জীবন যাপন করতে পারি  তার জন্য সরকার, প্রশাসন ও সাংবাদিকদের কাছে আকুল আবেদন করছি।
সংবাদ সম্মেলনে এসময় আরো কথা বলেন, জাহিদ শেখে স্ত্রী আকলিমা বেগম। তিনি বলেন, তিল তিল করে গড়ে তোলা আমার ঘরের একটা টিনও রাখে নাই তারা। সব লুটে নিয়ে গেছে। টিভি ফ্রিজ, পেঁয়াজ টিন দরজা জানালাসব নিয়ে গেছে। আমার হাতে লাগানো গাছগুলো কেটে রেখে গেছে। আমি এর সঠিক বিচার চাই, আমরা আমাদের ক্ষতি পূরন চাই।
হারুন শেখ বলেন, আমাদের পারিবারিক জমিজমা নিয়ে আমাদের ফুপাতো ভাইদের সাথে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ ছিল। তা নিয়ে দফায় দফায় শালিশ ও মামলা চলমান রয়েছে। ২০২২ সালের ৩০ আগষ্ট জমি নিয়ে ফডপাতো ভাই মোহাম্মদ শেখ, ভাজতে আক্কাস শেখ, সাখাওয়াত শেখ তাদের সাথে একটি মারমারির ঘটনা ঘটে। সে ঘটনায় তাদেরই ভারাটে গুন্ডার লাটির আঘাতে মোহাম্মদ শেখ আহত হলে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিন দিন মারা যায়। তবে মারামারির ঘটনাস্থলে আমি বা আমার পরিবারের কেউ ছিল না। তবুর আমাকে মামলার আসামি করা হয়েছে। আমি মামলায় আত্মসমর্পন করে স্থায়ী জামিনে আছি। সে সময় আক্কাস, সাখাওয়াত, ওহাব শেখরা আমাদের বাড়িতে হামলা চালায়, আমাদের মারধোর করে। আমরা জীবন বাঁচাতে বাড়ি থেকে পালিয়ে গেলে প্রতিপক্ষরা আমাদের পরিবারের ৫ সদস্যর বসত বাড়িতে লুটপাট চালায়।
তিনি বলেন, আমি নির্দোশ। তাই আমি নিজে আত্ম সমর্পন করেছি। আমি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। আইন আমাকে যে শাস্তি দেবে তা মাথা পেতে নিবো। কিন্তু আমরা আমাদের নিজ নিজ বসত ভিটায় শান্তিতে বসবাসের অধিকার চাই এবং নিজেদের জমিতে চাষাবাদ করে ফসল বুনতে চাই।
এসময় তাদের ৫ টি পরিবারের সকল সদস্য, সাংবাদিকবৃন্দ ও স্থানীয় এলাকাবাসী উপস্থিত ছিলেন।
Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

জনপ্রিয় সংবাদ
error: Content is protected !!

নিজ বসত ভিটায় বসবাসের অধিকার ফিরে পেতে ৫টি পরিবারের সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত

আপডেট টাইম : ০৬:৪১ অপরাহ্ন, শনিবার, ৯ মার্চ ২০২৪
দীর্ঘ প্রায় দুই বছর ধরে নিজ বসত ভিটা থেকে উচ্ছেদ হয়ে যাযাবরের মত জীবন যাপন করছেন ফরিদপুর সদর উপজেলার মাচ্চর ইউনিয়নের দয়ারামপুর গ্রামের ৫ টি পরিবারের নাবালক শিশুসহ প্রায় ২৫ জন সদস্য। মিথ্যা মামলা দিয়ে তাদের বাড়ি থেকে উচ্ছেদ করে লুটপাট করা হয় তাদের ঘরবাড়ি।ঘরের টিন, বেড়া, জানালা, দরজা, আসবাবপত্রসহ লুঠপাট করে প্রায় ২ কোটি টাকার ক্ষতি করে প্রতিপক্ষরা। শনিবার দুপুরে নিজ বসত ভিটায় বসবাসের অধিকার ফিরে পেতে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে এই ৫ টি পরিবারের সদস্যরা অসহায় ৫ টি পরিবার হলো মোঃ হারুন শেখের পরিবার, সহিদ শেখের পরিবার, লিয়াকত শেখের পরিবার, জাহিদ শেখের পরিবার এবং তাদের ভাগনে সাছু মৃধার পরিবার।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে পাঠ করেন হারুন শেখের মেয়ে নাছরিন আক্তার। তিনি লিখিত বক্তব্যে বলেন, প্রতিপক্ষ দয়ারামপুর গ্রামের আক্কাছ শেখ (৪০), সাখাওয়াত শেখ (৩৫), ওহাব শেখ (৬০), সালাম শেখ (৬২), মঞ্জ শেখ (২৭), নুরুল ইসলাম টুলু (৩৫), এবং আনোয়ার খান (৫০), আবুল কালাম (৫০), কাউছার মোল্যা (২১), অজ্ঞাতনামা আরো ১০/১৫ জন আমার পিতা হারুন শেখ ও আমার নামসহ আমার পরিবারের নারী সদস্য এবং আরো ৪ টি পরিবারের বিরুদ্ধে একটি মিথ্যা মামলা করে দলবল নিয়ে হামলা চালিয়ে প্রান নাশের চেষ্টা করে। আমরা আমাদের ৫ টি পরিবারের প্রায় ২৫ জন সদস্যই জীবন বাঁচাতে বাড়ি থেকে পালিয়ে আত্মিয়ের বাড়িতে আশ্রয় নেই। আমাদের বাড়ি থেকে বিতারিত করে প্রতিপক্ষরা রাতের আধারে তাদের দলবলসহ আমাদের ৫ টি বসত ভিটার বাড়ী-ঘর ভাংচুর করে ঘরের টিন কাঠসহ সকল মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। আমরা প্রায় দুই কোটি টাকার মালামাল নিয়া যায় ও ক্ষতি সাধন করে। কয়েকটি ঘরে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়।
তিনি বলেন, আমরা বিবাদীদের ভয়ে বর্তমানে আমাদের নিজ নিজ ভিটায় প্রায় ২ বছর যাবত বসবাস করিতে পারছিনা। আমিসহ আমাদের ৫টি পরিবারের সমস্ত লোকগুলো ফেরারী অবস্থায় এলোমেলোভাবে অর্ধাহারে অনাহারে দিনাতিপাত করছি। আমাদের পরিবারের প্রায় ৩০ বিঘা জমি আমরা চাষাবাদ করতে পারছি না। কিছু জমি বিবাদীগণ জোরপূর্বক দখল করে রেখেছে।
তিনি বলেন, বর্তমানে আমাদের ৫টি পরিবারের ছোট বড় নাবালক শিশুসহ আনুমানিক ২৫ জন সদস্য বিবাদীদের ভয়ে জীবনের নিরাপত্তাহীনতায় ভুগিতেছি। আমরা আমাদের নিজ নিজ বসত ভিটায় নতুন করিয়া ঘর তুলিয়া শান্তিতে বসবাস করতে পারি এবং আমাদের চাষের জমিতে চাষাবাদ করে ফসলাদী বুনান করে ভোগ করে জীবন যাপন করতে পারি  তার জন্য সরকার, প্রশাসন ও সাংবাদিকদের কাছে আকুল আবেদন করছি।
সংবাদ সম্মেলনে এসময় আরো কথা বলেন, জাহিদ শেখে স্ত্রী আকলিমা বেগম। তিনি বলেন, তিল তিল করে গড়ে তোলা আমার ঘরের একটা টিনও রাখে নাই তারা। সব লুটে নিয়ে গেছে। টিভি ফ্রিজ, পেঁয়াজ টিন দরজা জানালাসব নিয়ে গেছে। আমার হাতে লাগানো গাছগুলো কেটে রেখে গেছে। আমি এর সঠিক বিচার চাই, আমরা আমাদের ক্ষতি পূরন চাই।
হারুন শেখ বলেন, আমাদের পারিবারিক জমিজমা নিয়ে আমাদের ফুপাতো ভাইদের সাথে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ ছিল। তা নিয়ে দফায় দফায় শালিশ ও মামলা চলমান রয়েছে। ২০২২ সালের ৩০ আগষ্ট জমি নিয়ে ফডপাতো ভাই মোহাম্মদ শেখ, ভাজতে আক্কাস শেখ, সাখাওয়াত শেখ তাদের সাথে একটি মারমারির ঘটনা ঘটে। সে ঘটনায় তাদেরই ভারাটে গুন্ডার লাটির আঘাতে মোহাম্মদ শেখ আহত হলে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিন দিন মারা যায়। তবে মারামারির ঘটনাস্থলে আমি বা আমার পরিবারের কেউ ছিল না। তবুর আমাকে মামলার আসামি করা হয়েছে। আমি মামলায় আত্মসমর্পন করে স্থায়ী জামিনে আছি। সে সময় আক্কাস, সাখাওয়াত, ওহাব শেখরা আমাদের বাড়িতে হামলা চালায়, আমাদের মারধোর করে। আমরা জীবন বাঁচাতে বাড়ি থেকে পালিয়ে গেলে প্রতিপক্ষরা আমাদের পরিবারের ৫ সদস্যর বসত বাড়িতে লুটপাট চালায়।
তিনি বলেন, আমি নির্দোশ। তাই আমি নিজে আত্ম সমর্পন করেছি। আমি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। আইন আমাকে যে শাস্তি দেবে তা মাথা পেতে নিবো। কিন্তু আমরা আমাদের নিজ নিজ বসত ভিটায় শান্তিতে বসবাসের অধিকার চাই এবং নিজেদের জমিতে চাষাবাদ করে ফসল বুনতে চাই।
এসময় তাদের ৫ টি পরিবারের সকল সদস্য, সাংবাদিকবৃন্দ ও স্থানীয় এলাকাবাসী উপস্থিত ছিলেন।