ঢাকা , শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

ঢাকায় নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত

বাংলাদেশে মার্কিন নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে থাকবে রাশিয়া

-ছবিঃ সংগৃহীত।

জাতিসংঘ ছাড়া অন্য কোনো দেশের নিষেধাজ্ঞা আমলে নেয়ার কিছু নেই। পশ্চিমা বিশ্ব বাংলাদেশকে অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা দিলে ওই পরিস্থিতি বিবেচনায় ঢাকা-মস্কো আলোচনা করবে। বাংলাদেশে যেকোনো ধরনের মার্কিন নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে থাকবে রাশিয়া।

 

বৃহস্পতিবার (৭ ডিসেম্বর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের তোফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে স্বাধীনতা সাংবাদিক ফোরাম আয়োজিত ‘টকস উইথ অ্যাম্বাসাডর’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন ঢাকায় নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আলেকজান্ডার ভি মান্টিটস্কি।

 

এতে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক খায়রুল আলম। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বাংলা ট্রিবিউনের কূটনৈতিক রিপোর্টার শেখ শাহরিয়ার জামান।

 

অনুষ্ঠানে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও ভোরের কাগজ সম্পাদক শ্যামল দত্ত বলেন, ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে রাশিয়া যে অবদান রেখেছিল, সেই অবদান কোনোভাবেই পরিশোধ করা যাবে না। বর্তমান ভূরাজনীতিতে আমাদের পক্ষে রাশিয়াকে প্রয়োজন।

 

রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত বলেন, পশ্চিমাসহ অন্য যেকোনো দেশের নিষেধাজ্ঞাকে আমরা স্বীকৃতি দিই না। আমরা যেকোনো ধরনের অবৈধ নিষেধাজ্ঞার বিপক্ষে। আমরা শুধু জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের নিষেধাজ্ঞা হলে সেটিকে স্বীকৃতি দিই। যদি ওই ধরনের কোনো সমস্যা হয়, আমরা আলোচনা করব। আমরা কী ধরনের সহযোগিতা করতে পারি সেটি রাশিয়ান সরকার এবং আমাদের অন্যান্য ইনস্টিটিউশন মিলে আলোচনা করব।

 

তিনি আরো বলেন, ইউক্রেন ইস্যুতে পশ্চিমারা সরব থাকলেও ফিলিস্তিন ইস্যুতে তারা ডাবল স্ট্যান্ডার্ড ভূমিকা নিয়েছে। কেননা তারা অভিযোগ করেছিলেন, ইউক্রেনে অনেক মানুষ মারা যাচ্ছে, এটা নিয়ে তারা উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন। তবে অক্টোবর থেকে ইসরায়েলে ছয় হাজারেরও বেশি মানুষ মারা গেছে। এটা নিয়ে তাদের কোনো উদ্বেগ নেই। তিনি বলেন, ফিলিস্তিন ইস্যুতে রাশিয়া ও বাংলাদেশের পজিশন একই।

 

এক প্রশ্নের জবাবে রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত বলেন, স্যাটেলাইট স্থাপনে বাংলাদেশ সরকার যে দেশকে ভালো অংশীদার মনে করবে, তাকেই বেছে নেবে। এ ক্ষেত্রে আমাদের কিছু বলার নেই।

 

রাষ্ট্রদূত মান্টিটস্কি বলেন, কিছুদিন আগে রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভা যুক্তরাষ্ট্রের এ ধরনের হস্তক্ষেপের বিরুদ্ধে রাশিয়ার অবস্থান সুস্পষ্ট করেছেন। বাংলাদেশের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র ও পশ্চিমা বিশ্বের যে কোনো অন্যায় অন্যায্য নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে অবস্থান নেবে রাশিয়া। পাশাপাশি এ ধরনের নিষেধাজ্ঞা মোকাবিলায় বাংলাদেশের পাশে থাকবে রাশিয়া। সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি আরও বলেন, গাজা উপত্যকায় যখন মানুষ হতাহত হচ্ছে তখন পশ্চিমারা কিছু বলেন না, অথচ ইউক্রেনে কিছু হলেই তারা ফলাও করে প্রচার করে। এই ধরনের অবস্থান দ্বিচারিতা ছাড়া কিছুই না।

 

রাশিয়ার অর্থায়নে বাংলাদেশে নির্মাণাধীন রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের সার্বিক পরিস্থিতি তুলে ধরে রাষ্ট্রদূত বলেন, যথেষ্ট সুরক্ষা ও নিরাপত্তা বজায় রেখে দ্রুততার সঙ্গে কাজ এগিয়ে চলছে। দিন দিন বাণিজ্যের বিভিন্ন ক্ষেত্রসহ অর্থনীতির সব খাতে দুই দেশের সহযোগিতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। ভবিষ্যতে দুই দেশের মধ্যে সহযোগিতা আরও বাড়বে বলে আশাবাদ জানান আলেকজান্ডার ভি মান্টিটস্কি।

 

 

তিনি আরও বলেন, ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলে দ্বন্দ্ব-সংঘাতের বদলে এ অঞ্চলের দেশগুলোর মধ্যে শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান ও সহযোগিতাময় সম্পর্ক দেখতে চায় রাশিয়া। মার্কিন নেতৃত্বাধীন গোষ্ঠী এ অঞ্চলের শান্তি ও স্থিতিশীলতা বিনষ্টের চেষ্টা করছে। এর অংশ হিসেবে তারা কোয়াড, অকাসের মতো সামরিক জোট করছে।

Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

জনপ্রিয় সংবাদ

খেলাধুলা মানসিক বিকাশ ও শরীর গঠনে সহায়তা করেঃ -লিয়াকত সিকদার

error: Content is protected !!

ঢাকায় নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত

বাংলাদেশে মার্কিন নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে থাকবে রাশিয়া

আপডেট টাইম : ০৫:৫০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০২৩

জাতিসংঘ ছাড়া অন্য কোনো দেশের নিষেধাজ্ঞা আমলে নেয়ার কিছু নেই। পশ্চিমা বিশ্ব বাংলাদেশকে অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা দিলে ওই পরিস্থিতি বিবেচনায় ঢাকা-মস্কো আলোচনা করবে। বাংলাদেশে যেকোনো ধরনের মার্কিন নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে থাকবে রাশিয়া।

 

বৃহস্পতিবার (৭ ডিসেম্বর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের তোফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে স্বাধীনতা সাংবাদিক ফোরাম আয়োজিত ‘টকস উইথ অ্যাম্বাসাডর’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন ঢাকায় নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আলেকজান্ডার ভি মান্টিটস্কি।

 

এতে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক খায়রুল আলম। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বাংলা ট্রিবিউনের কূটনৈতিক রিপোর্টার শেখ শাহরিয়ার জামান।

 

অনুষ্ঠানে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও ভোরের কাগজ সম্পাদক শ্যামল দত্ত বলেন, ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে রাশিয়া যে অবদান রেখেছিল, সেই অবদান কোনোভাবেই পরিশোধ করা যাবে না। বর্তমান ভূরাজনীতিতে আমাদের পক্ষে রাশিয়াকে প্রয়োজন।

 

রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত বলেন, পশ্চিমাসহ অন্য যেকোনো দেশের নিষেধাজ্ঞাকে আমরা স্বীকৃতি দিই না। আমরা যেকোনো ধরনের অবৈধ নিষেধাজ্ঞার বিপক্ষে। আমরা শুধু জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের নিষেধাজ্ঞা হলে সেটিকে স্বীকৃতি দিই। যদি ওই ধরনের কোনো সমস্যা হয়, আমরা আলোচনা করব। আমরা কী ধরনের সহযোগিতা করতে পারি সেটি রাশিয়ান সরকার এবং আমাদের অন্যান্য ইনস্টিটিউশন মিলে আলোচনা করব।

 

তিনি আরো বলেন, ইউক্রেন ইস্যুতে পশ্চিমারা সরব থাকলেও ফিলিস্তিন ইস্যুতে তারা ডাবল স্ট্যান্ডার্ড ভূমিকা নিয়েছে। কেননা তারা অভিযোগ করেছিলেন, ইউক্রেনে অনেক মানুষ মারা যাচ্ছে, এটা নিয়ে তারা উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন। তবে অক্টোবর থেকে ইসরায়েলে ছয় হাজারেরও বেশি মানুষ মারা গেছে। এটা নিয়ে তাদের কোনো উদ্বেগ নেই। তিনি বলেন, ফিলিস্তিন ইস্যুতে রাশিয়া ও বাংলাদেশের পজিশন একই।

 

এক প্রশ্নের জবাবে রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত বলেন, স্যাটেলাইট স্থাপনে বাংলাদেশ সরকার যে দেশকে ভালো অংশীদার মনে করবে, তাকেই বেছে নেবে। এ ক্ষেত্রে আমাদের কিছু বলার নেই।

 

রাষ্ট্রদূত মান্টিটস্কি বলেন, কিছুদিন আগে রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভা যুক্তরাষ্ট্রের এ ধরনের হস্তক্ষেপের বিরুদ্ধে রাশিয়ার অবস্থান সুস্পষ্ট করেছেন। বাংলাদেশের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র ও পশ্চিমা বিশ্বের যে কোনো অন্যায় অন্যায্য নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে অবস্থান নেবে রাশিয়া। পাশাপাশি এ ধরনের নিষেধাজ্ঞা মোকাবিলায় বাংলাদেশের পাশে থাকবে রাশিয়া। সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি আরও বলেন, গাজা উপত্যকায় যখন মানুষ হতাহত হচ্ছে তখন পশ্চিমারা কিছু বলেন না, অথচ ইউক্রেনে কিছু হলেই তারা ফলাও করে প্রচার করে। এই ধরনের অবস্থান দ্বিচারিতা ছাড়া কিছুই না।

 

রাশিয়ার অর্থায়নে বাংলাদেশে নির্মাণাধীন রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের সার্বিক পরিস্থিতি তুলে ধরে রাষ্ট্রদূত বলেন, যথেষ্ট সুরক্ষা ও নিরাপত্তা বজায় রেখে দ্রুততার সঙ্গে কাজ এগিয়ে চলছে। দিন দিন বাণিজ্যের বিভিন্ন ক্ষেত্রসহ অর্থনীতির সব খাতে দুই দেশের সহযোগিতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। ভবিষ্যতে দুই দেশের মধ্যে সহযোগিতা আরও বাড়বে বলে আশাবাদ জানান আলেকজান্ডার ভি মান্টিটস্কি।

 

 

তিনি আরও বলেন, ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলে দ্বন্দ্ব-সংঘাতের বদলে এ অঞ্চলের দেশগুলোর মধ্যে শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান ও সহযোগিতাময় সম্পর্ক দেখতে চায় রাশিয়া। মার্কিন নেতৃত্বাধীন গোষ্ঠী এ অঞ্চলের শান্তি ও স্থিতিশীলতা বিনষ্টের চেষ্টা করছে। এর অংশ হিসেবে তারা কোয়াড, অকাসের মতো সামরিক জোট করছে।