1. somoyerprotyasha@gmail.com : A.S.M. Murshid :
  2. letusikder@gmail.com : Litu Sikder : Litu Sikder
  3. mokterreporter@gmail.com : Mokter Hossain : Mokter Hossain
  4. tussharpress@gmail.com : Tusshar Bhattacharjee : Tusshar Bhattacharjee
গাছ তলায় বসে দুপুরের খাবার... - দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা ডটকম
শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৭:৫৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
সদরপুরে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ও ক্যাবের পক্ষ থেকে ইউএনও কে শুভেচ্ছা জ্ঞাপন গোমস্তাপুরে রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক রহনপুর শাখার গ্রাহক ও সুধী সমাবেশ অনুষ্ঠিত বোয়ালমারীতে অজ্ঞাত নারীর মাথা বিচ্ছিন্ন লাশ উদ্ধার বোয়ালমারীতে ইউএনও’র মত বিনিময় সভা চাটমোহরে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে শিশু নিহত  প্রধানমন্ত্রীর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে সালথায় আ’লীগের আলোচনা সভা ফরিদপুরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে ফরিদপুরে জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে কর্মসূচি  পালন কোটচাঁদপুরে ছোট ভাইকে মামলা দিয়ে ফাঁসাতে গিয়ে বড় দুই ভাই জেলহাজতে! ঝিনাইদহে মেয়র পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে হিজল’র মনোনয়নপত্র জমা নগরকান্দায় প্রতারক ‘জ্বীনের বাদশা’ দলের এক সদস্য আটক

গাছ তলায় বসে দুপুরের খাবার…

মোঃ শফিকুল ইসলাম জীবন, মহম্মদপুর, মাগুরা প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ৪ মার্চ, ২০২১
  • ১৮৮ বার পঠিত
মাথার উপর ফ্যান নেই, নেই ডাইনিং টেবিল-চেয়ার। নেই জগ-মগ-গ্লাস-প্লেট। নেই খবারের রকমারী আয়োজন। একটি পাত্রে ভাত আর নিরামিষ তরকারি।
গাছ তলায় মাটির উপর বসে খেয়ে নিচ্ছেন দুপুরের খাবার। খাবারের পর নেই আয়েসি বিশ্রাম। আবার কাজে লেগে যেতে হবে। স্থানীয় একটি ইটভাটার শ্রমিক তিনি। কাক ডাকা ভোর থেকে কাজ শুরু হয়। বাড়ি যেতে সন্ধ্যা নামে। দুপুরের খাবার নিয়ে আসেন। এক ফাঁকে ইটভাটার এক কোনে বসে খেয়ে নেন।
কী তরকারি দিয়ে ভাত খেলেন? লজ্জা পেলেন। ভাই গরীব মানসির আবার খাওয়া। কোনোমতো বাঁচে থাহা। মাছ দৈনিক খাতি পারিনে। মাছের দাম মেলা। খালি হাটের দিন মাছ কিনি। ডাল আর শাকসবজি খাই বেশি।
আমাদের ভাত থাকলি হলো। সাথে কি থাকল সিডা বিষয় না। মরিচ-পিযেজ দিয়ে দুই থাল ভাত খায়ে ফেলতি পারি।
দিন ৪০০ টাকায় ভাটায় কাজ করি। সপ্তায় ১৩০০ টাকা দিতি হয় এনজিওর কিস্তি। চার জনের সংসার কোনমতো চলে যায়। কিছু পয়সা জমাই। অসুখ বিসুখ হলি কামে আসতি পারিনে। তহন পুঁজি ভাঙ্গে খাতি হয়।
এর মধ্যেই দরাজ কন্ঠ। খাতি এতো সুমায় লাগে?  খাতিই দিন চলে গিলি কাম করবানে কোনসুমা। হয়ে গেছে ভাই।  আসতেছি… শ্রমিক সর্দারের তাগাদা…
কোনোমতে হাতমুখ ধুয়ে না ধুয়ে মুখ মুছতে মুছতে কাজে চলে গেলেন তিনি।
নামটিও শোনা হলো না।নানা ব্যাঞ্জনায় কেউ দশ তলায় আবার কেউ গাছ তলায় নুন ভাত খায়। কতো মানুষের ভাগ্যে তিন বেলা খাবারই জোটেনা। দিনে শেষে সবাই সমান।
মহান আল্লাহর সৃষ্টির অমোঘ নিয়মে দিনের পর রাত আসে। একদিন  গাছতলা আর দশতলার সব বৈষম্য ঘুচে যায়। শেষ গন্তব্য হয় সবার এক ও অভিন্ন।
Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..

 

 

Copyright August, 2020-2022 @ somoyerprotyasha.com
Website Hosted by: Bdwebs.com
themesbazarsomoyerpr1
error: Content is protected !!