ঢাকা , রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

নড়াইল শহরের মধ্য দিয়ে চারলেনর সড়ক বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন

বক্তব্য রাখছেন জেলা যুবলীগের আহবায়ক আলহাজ্জ্ব মোহাম্মদ ওয়াহিদুজ্জামান।

নড়াইলের বানিজ্যিক এলাকা রুপগঞ্জ বাজারের পৌর সুপার মার্কেটসহ অন্যান্য ব্যবসায়ী স্থাপনা ভেঙ্গে প্রস্তাবিত চারলেন সড়ক নির্মাণের প্রতিবাদে ব্যবসায়ীদের মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত নড়াইল-যশোর সড়কের রুপগঞ্জ এলাকায় ঘন্টাব্যাপী চলা মানববন্ধনে ক্ষতির সম্মূখীন নারী-পুরুষ দোকান মালিক ও ব্যবসায়ীরা অংশগ্রহণ করেন।
 মানববন্ধন চলাকালীন সময়ে বক্তৃতা রাখেন জেলা যুবলীগের আহবায়ক আলহাজ্জ্ব মোহাম্মদ ওয়াহিদুজ্জামান, কাউন্সিলর মো: সাইফুল আলম বাচ্চু,মো: নবীর হোসেন, সৈয়দ আহসান কবীর।
বক্তৃতাকালে কয়েকজন দোকানদার শেষ সম্বল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান হারানোর আশংকায় কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। মানববন্ধন শেষে রুপগঞ্জ বাজারের পৌর সুপার মার্কেটসহ অন্যান্য দোকানপাট না ভাঙ্গার জন্য জেলা প্রশাসকের কাছে স্বারকলিপি প্রদান করেন দোকান মালিক ও ব্যবসায়ীরা।
বক্তারা জাতীয় মহাসড়ক (এন-৮০৬) এর ২২তম কিলোমিটারে অবস্থিত সীমাখালী মোড় হতে ২৯তম কিলোমিটারে অবস্থিত সীতারামপুর পর্যন্ত নড়াইল শহরাংশের সড়ক প্রশস্তকরণ ও উন্নীতকরণ শীর্ষক প্রকল্পের চারলেন রাস্তা নির্মাণ করা হলে যে ক্ষয়-ক্ষতি হবে তার বিস্তারিত তুলে ধরেন।
ব্যবসায়ীরা বলেন, গত ১৪ জানুয়ারি প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটির সভায় সীমাখালী মোড় হতে শেখ রাসেল ব্রীজ পর্যন্ত ২৪ফুট প্রশস্তকরণ, শেখ রাসেল ব্রীজ ১৮ফুট প্রশস্তকরণ,এরপর ১.২ কিলোমিটার সড়কের ৫৮০মিটার প্রশস্তকরণ করা হয়েছে। ২৫০মিটার লম্বা ও ১৮ফুট চওড়া শেখ রাসেল ব্রীজটি আঁকাবাকা থাকায় শহরের মধ্যে এবং রুপগঞ্জ এলাকায় চারলেনের সড়ক নির্মাণের প্রস্তাব সম্পূর্ণ অযৌক্তিক।
প্রস্তাবিত চারলেন সড়ক নির্মিত হলে ১, ২, ৩ ও ৪নং পৌর সুপার মার্কেটের ৭০টি দোকান,উত্তরা ব্যাংক ভবন ,প্রেসক্লাব, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কার্যালয়, জেলা পরিষদ মার্কেট,রুপগঞ্জ টাউন ক্লাবসহ অন্য স্থাপনা ভেঙ্গে ফেলতে হবে।ফলে ব্যবসায়ীদের পথে বসতে হবে।প্রস্তাবিত প্রকল্পে ভাটিয়াপাড়া-লোহাগড়া-নড়াইল-যশোর-বেনাপোল সড়কটির নড়াইল শহরের বাইপাস দিয়ে (এসএম সুলতান ব্রীজ) চারলেন নির্মিত হলে এবং শহরের দূর্গাপুর থেকে সীতারাপুর পর্যন্ত চারলেন বাইপাস সড়ক নির্মিত হলে রুপগঞ্জ বাজারের কোন দোকানপাট বা স্থাপনার ক্ষতি হবে না।ব্যবসায়ীরা নির্বিঘ্নে ব্যবসা করতে পারবেন।
নড়াইল শহরের মধ্য দিয়ে চারলেন সড়ক বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন।
Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

জনপ্রিয় সংবাদ
error: Content is protected !!

নড়াইল শহরের মধ্য দিয়ে চারলেনর সড়ক বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন

আপডেট টাইম : ০৬:৩৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১
নড়াইলের বানিজ্যিক এলাকা রুপগঞ্জ বাজারের পৌর সুপার মার্কেটসহ অন্যান্য ব্যবসায়ী স্থাপনা ভেঙ্গে প্রস্তাবিত চারলেন সড়ক নির্মাণের প্রতিবাদে ব্যবসায়ীদের মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত নড়াইল-যশোর সড়কের রুপগঞ্জ এলাকায় ঘন্টাব্যাপী চলা মানববন্ধনে ক্ষতির সম্মূখীন নারী-পুরুষ দোকান মালিক ও ব্যবসায়ীরা অংশগ্রহণ করেন।
 মানববন্ধন চলাকালীন সময়ে বক্তৃতা রাখেন জেলা যুবলীগের আহবায়ক আলহাজ্জ্ব মোহাম্মদ ওয়াহিদুজ্জামান, কাউন্সিলর মো: সাইফুল আলম বাচ্চু,মো: নবীর হোসেন, সৈয়দ আহসান কবীর।
বক্তৃতাকালে কয়েকজন দোকানদার শেষ সম্বল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান হারানোর আশংকায় কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। মানববন্ধন শেষে রুপগঞ্জ বাজারের পৌর সুপার মার্কেটসহ অন্যান্য দোকানপাট না ভাঙ্গার জন্য জেলা প্রশাসকের কাছে স্বারকলিপি প্রদান করেন দোকান মালিক ও ব্যবসায়ীরা।
বক্তারা জাতীয় মহাসড়ক (এন-৮০৬) এর ২২তম কিলোমিটারে অবস্থিত সীমাখালী মোড় হতে ২৯তম কিলোমিটারে অবস্থিত সীতারামপুর পর্যন্ত নড়াইল শহরাংশের সড়ক প্রশস্তকরণ ও উন্নীতকরণ শীর্ষক প্রকল্পের চারলেন রাস্তা নির্মাণ করা হলে যে ক্ষয়-ক্ষতি হবে তার বিস্তারিত তুলে ধরেন।
ব্যবসায়ীরা বলেন, গত ১৪ জানুয়ারি প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটির সভায় সীমাখালী মোড় হতে শেখ রাসেল ব্রীজ পর্যন্ত ২৪ফুট প্রশস্তকরণ, শেখ রাসেল ব্রীজ ১৮ফুট প্রশস্তকরণ,এরপর ১.২ কিলোমিটার সড়কের ৫৮০মিটার প্রশস্তকরণ করা হয়েছে। ২৫০মিটার লম্বা ও ১৮ফুট চওড়া শেখ রাসেল ব্রীজটি আঁকাবাকা থাকায় শহরের মধ্যে এবং রুপগঞ্জ এলাকায় চারলেনের সড়ক নির্মাণের প্রস্তাব সম্পূর্ণ অযৌক্তিক।
প্রস্তাবিত চারলেন সড়ক নির্মিত হলে ১, ২, ৩ ও ৪নং পৌর সুপার মার্কেটের ৭০টি দোকান,উত্তরা ব্যাংক ভবন ,প্রেসক্লাব, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কার্যালয়, জেলা পরিষদ মার্কেট,রুপগঞ্জ টাউন ক্লাবসহ অন্য স্থাপনা ভেঙ্গে ফেলতে হবে।ফলে ব্যবসায়ীদের পথে বসতে হবে।প্রস্তাবিত প্রকল্পে ভাটিয়াপাড়া-লোহাগড়া-নড়াইল-যশোর-বেনাপোল সড়কটির নড়াইল শহরের বাইপাস দিয়ে (এসএম সুলতান ব্রীজ) চারলেন নির্মিত হলে এবং শহরের দূর্গাপুর থেকে সীতারাপুর পর্যন্ত চারলেন বাইপাস সড়ক নির্মিত হলে রুপগঞ্জ বাজারের কোন দোকানপাট বা স্থাপনার ক্ষতি হবে না।ব্যবসায়ীরা নির্বিঘ্নে ব্যবসা করতে পারবেন।
নড়াইল শহরের মধ্য দিয়ে চারলেন সড়ক বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন।