ঢাকা , রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

সিলিং ফ্যানের সাথে ঝুলে ছিল শাহিনের মরদেহ

-ছবিঃ প্রতীকী।

ফরিদপুরের সালথা উপজেলায় নিজ ঘরের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলছিল মো. শাহীন শেখ (৪০) নামে এক ভ্যানচালকের মরদেহ।
আজ শনিবার   সকালে সালথা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আওলাদ হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
এর আগে শুক্রবার   রাত সাড়ে ৮ টার দিকে উপজেলার মুরাটিয়া পোড়াগদী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। শাহীন ওই গ্রামের আব্দুস ছোবাহানের ছেলে বলে জানা যায়।
স্থানীয়রা জানান, শাহীন ঢাকাতে ভ্যানে হকারি করে বিস্কুট ও চানাচুর বিক্রি করতেন। গত বৃহস্পতিবার  তার বাবা মারা যাওয়ায় গ্রামের বাড়িতে আসেন। সে জুয়া খেলায় আসক্ত থাকায় ঋণগ্রস্ত ছিলেন। এছাড়া স্ত্রী পরকীয়ায় আসক্ত ছিলেন বলে সন্দেহ করতেন। পরে এসব বিষয় নিয়ে শুক্রবার সকাল ও দুপুরে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কয়েকদফা ঝগড়া হলে স্ত্রী তার বাবার বাড়ি নগরকান্দাতে চলে যান। বাড়িতে একা থাকায় রাত সাড়ে ৮ টার দিকে সবার অজান্তে শাড়ি কাপড় দিয়ে ঘরের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ফাঁস দেন। পরে তাকে উদ্ধার করে পাশের ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত্যু ঘোষণা করেন।
সালথা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আওলাদ হোসেন বলেন, খবর পেয়ে আমরা শুক্রবার দিনগত রাত দুইটার দিকে নগরকান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে শাহীনের মরদেহটি উদ্ধার করি। ধারণা করা হচ্ছে, ঋণগ্রস্ত থাকা ও স্ত্রীর পরকীয়া সন্দেহে হতাশাগ্রস্ত হয়ে সে আত্মহত্যা করেছেন। তবে, ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পর মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে। এব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছেও বলে জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা।
Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

জনপ্রিয় সংবাদ

খেলাধুলা মানসিক বিকাশ ও শরীর গঠনে সহায়তা করেঃ -লিয়াকত সিকদার

error: Content is protected !!

সিলিং ফ্যানের সাথে ঝুলে ছিল শাহিনের মরদেহ

আপডেট টাইম : ০৫:৫৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ ডিসেম্বর ২০২২
ফরিদপুরের সালথা উপজেলায় নিজ ঘরের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলছিল মো. শাহীন শেখ (৪০) নামে এক ভ্যানচালকের মরদেহ।
আজ শনিবার   সকালে সালথা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আওলাদ হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
এর আগে শুক্রবার   রাত সাড়ে ৮ টার দিকে উপজেলার মুরাটিয়া পোড়াগদী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। শাহীন ওই গ্রামের আব্দুস ছোবাহানের ছেলে বলে জানা যায়।
স্থানীয়রা জানান, শাহীন ঢাকাতে ভ্যানে হকারি করে বিস্কুট ও চানাচুর বিক্রি করতেন। গত বৃহস্পতিবার  তার বাবা মারা যাওয়ায় গ্রামের বাড়িতে আসেন। সে জুয়া খেলায় আসক্ত থাকায় ঋণগ্রস্ত ছিলেন। এছাড়া স্ত্রী পরকীয়ায় আসক্ত ছিলেন বলে সন্দেহ করতেন। পরে এসব বিষয় নিয়ে শুক্রবার সকাল ও দুপুরে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কয়েকদফা ঝগড়া হলে স্ত্রী তার বাবার বাড়ি নগরকান্দাতে চলে যান। বাড়িতে একা থাকায় রাত সাড়ে ৮ টার দিকে সবার অজান্তে শাড়ি কাপড় দিয়ে ঘরের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ফাঁস দেন। পরে তাকে উদ্ধার করে পাশের ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত্যু ঘোষণা করেন।
সালথা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আওলাদ হোসেন বলেন, খবর পেয়ে আমরা শুক্রবার দিনগত রাত দুইটার দিকে নগরকান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে শাহীনের মরদেহটি উদ্ধার করি। ধারণা করা হচ্ছে, ঋণগ্রস্ত থাকা ও স্ত্রীর পরকীয়া সন্দেহে হতাশাগ্রস্ত হয়ে সে আত্মহত্যা করেছেন। তবে, ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পর মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে। এব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছেও বলে জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা।