ঢাকা , শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

শ্যামনগরে সিসিডিব এনগেজ প্রকল্পের কৃষকদের জলবায়ু সহনশীল কৃষি বিষয়ক প্রশিক্ষণের সমাপনী

সিসিডিবি একটি উন্নয়নমুলক বেসরকারি সংস্থা। সংস্থাটি মানুষের উন্নয়নের লক্ষ্যে কাজ করে চলেছে। সিসিডিবি-এনগেজ প্রকল্প নারীদের নেতৃত্ব উন্নয়নের লক্ষ্যে কাজ করছে।
সেই লক্ষ্যে  ২১ মে  ২০২৪ তারিখ বিকাল ৪ ঘটিকায় শ্যামনগর উপজেলার মুন্সিগঞ্জে সিসিডিবি-এনগেজ প্রকল্প অফিসে প্রকল্পের  নারী কৃষক ও সদস্যদের স্বামী এবং ছেলে দের  নিয়ে ২ দিন ব্যাপী  জলবায়ু সহনশীল কৃষি বিষয়ক প্রশিক্ষণের সমাপনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
প্রশিক্ষক হিসাবে উপস্থিত ছিলেন উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোঃ জামাল হোসেন, সিসিআরসির সহকারী সাংগঠনিক সম্পাদক  কৃষ্ণেন্দু রায় ,  প্রশিক্ষক হিসেবে আরও  উপস্থিত ছিলেন দোয়েল দলের নারী সদস্য পূর্ণিমা মন্ডল এবং প্রতিমা জোয়ারদার   আরও উপস্থিত  ছিলেন এনগেজ-প্রকল্পের প্রোগ্রাম অফিসার নিলীমা রাণী ও প্রকল্পের অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ প্রমূখ।
উক্ত প্রশিক্ষণে সভাপতিত্ব করেন এবং শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন এনগেজ-প্রকল্পের প্রোগ্রাম অফিসার নিলীমা রানী।
উপসহকারী  কৃষি কর্মকর্তা মোঃ জালাল হোসেন  বিভিন্ন মালচিং ও ঘরোয়া পদ্ধতিতে জৈব নিয়ে আলোচনা করেন। দোয়েল নারী দলের  সদস্য প্রশিক্ষক পূর্ণিমা মন্ডল ভার্মি কম্পোস্ট কিভাবে তৈরি করতে  হয় তা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন।
দোয়েল নারী দলের সদস্য প্রশিক্ষক প্রতিমা জোয়ারদার অল্প জায়গায় কিভাবে সবজি চাষ করা যায় তা নিয়ে আলোচনা করেন। সিসিআরসির সাংগঠনিক  সম্পাদক কৃষ্ণেন্দু রায় ঘেরের রাস্তায় সবজি চাষ এবং তার খামারবাড়ি নিয়ে হাতে কলমে প্রশিক্ষণ দেন।
প্রশিক্ষণার্থী বিথীকা মন্ডল  বলেন, আমরা তো প্রশিক্ষণ পায় খাতা কলমে এমন হাতে কলমে প্রশিক্ষণ পেয়ে আমরা অনেক কিছু জানতে পেরেছি এর জন্য সিসিটিভির এঙ্গেজ প্রকল্প কে ধন্যবাদ।
প্রশিক্ষণার্থী সুজিত মন্ডল বলেন আমিও ঘিরে যাচ্ছে সবজি চাষ করি এমন একটি প্রশিক্ষণ পেয়ে আমার অনেক উপকার হলো।
উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোঃ জামাল হোসেন প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণকারীদের মনোযোগ ও উৎসাহ দেখে  সরকারিভাবে যেসব কৃষি প্রশিক্ষণ আসে তাতে এনগেজ-প্রকল্পের নারী সদস্যদের নাম দিতে বলেন এবং আজ আইডি কার্ড চান।এবং  প্রশিক্ষনারীদের উৎসাহ বাড়ানোর জন্য সবজি বীজও প্রদান করা হয়।
Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

জনপ্রিয় সংবাদ
error: Content is protected !!

শ্যামনগরে সিসিডিব এনগেজ প্রকল্পের কৃষকদের জলবায়ু সহনশীল কৃষি বিষয়ক প্রশিক্ষণের সমাপনী

আপডেট টাইম : ০৯:২৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪
সিসিডিবি একটি উন্নয়নমুলক বেসরকারি সংস্থা। সংস্থাটি মানুষের উন্নয়নের লক্ষ্যে কাজ করে চলেছে। সিসিডিবি-এনগেজ প্রকল্প নারীদের নেতৃত্ব উন্নয়নের লক্ষ্যে কাজ করছে।
সেই লক্ষ্যে  ২১ মে  ২০২৪ তারিখ বিকাল ৪ ঘটিকায় শ্যামনগর উপজেলার মুন্সিগঞ্জে সিসিডিবি-এনগেজ প্রকল্প অফিসে প্রকল্পের  নারী কৃষক ও সদস্যদের স্বামী এবং ছেলে দের  নিয়ে ২ দিন ব্যাপী  জলবায়ু সহনশীল কৃষি বিষয়ক প্রশিক্ষণের সমাপনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
প্রশিক্ষক হিসাবে উপস্থিত ছিলেন উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোঃ জামাল হোসেন, সিসিআরসির সহকারী সাংগঠনিক সম্পাদক  কৃষ্ণেন্দু রায় ,  প্রশিক্ষক হিসেবে আরও  উপস্থিত ছিলেন দোয়েল দলের নারী সদস্য পূর্ণিমা মন্ডল এবং প্রতিমা জোয়ারদার   আরও উপস্থিত  ছিলেন এনগেজ-প্রকল্পের প্রোগ্রাম অফিসার নিলীমা রাণী ও প্রকল্পের অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ প্রমূখ।
উক্ত প্রশিক্ষণে সভাপতিত্ব করেন এবং শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন এনগেজ-প্রকল্পের প্রোগ্রাম অফিসার নিলীমা রানী।
উপসহকারী  কৃষি কর্মকর্তা মোঃ জালাল হোসেন  বিভিন্ন মালচিং ও ঘরোয়া পদ্ধতিতে জৈব নিয়ে আলোচনা করেন। দোয়েল নারী দলের  সদস্য প্রশিক্ষক পূর্ণিমা মন্ডল ভার্মি কম্পোস্ট কিভাবে তৈরি করতে  হয় তা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন।
দোয়েল নারী দলের সদস্য প্রশিক্ষক প্রতিমা জোয়ারদার অল্প জায়গায় কিভাবে সবজি চাষ করা যায় তা নিয়ে আলোচনা করেন। সিসিআরসির সাংগঠনিক  সম্পাদক কৃষ্ণেন্দু রায় ঘেরের রাস্তায় সবজি চাষ এবং তার খামারবাড়ি নিয়ে হাতে কলমে প্রশিক্ষণ দেন।
প্রশিক্ষণার্থী বিথীকা মন্ডল  বলেন, আমরা তো প্রশিক্ষণ পায় খাতা কলমে এমন হাতে কলমে প্রশিক্ষণ পেয়ে আমরা অনেক কিছু জানতে পেরেছি এর জন্য সিসিটিভির এঙ্গেজ প্রকল্প কে ধন্যবাদ।
প্রশিক্ষণার্থী সুজিত মন্ডল বলেন আমিও ঘিরে যাচ্ছে সবজি চাষ করি এমন একটি প্রশিক্ষণ পেয়ে আমার অনেক উপকার হলো।
উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোঃ জামাল হোসেন প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণকারীদের মনোযোগ ও উৎসাহ দেখে  সরকারিভাবে যেসব কৃষি প্রশিক্ষণ আসে তাতে এনগেজ-প্রকল্পের নারী সদস্যদের নাম দিতে বলেন এবং আজ আইডি কার্ড চান।এবং  প্রশিক্ষনারীদের উৎসাহ বাড়ানোর জন্য সবজি বীজও প্রদান করা হয়।