ঢাকা , শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
Logo ঢাকায় সংবাদ সম্মেলনে কান্নাজড়িত কণ্ঠে আঞ্জুমান আরা Logo দৌলতপুরে ব্র্যাক শাখা অফিসের উদ্বোধন Logo তানোরে ইউপি চেয়ারম্যানের মৃত্যুতে শোকসভা ও মিলাদ Logo তানোরে গরু মোটাতাজা করণে নিষিদ্ধ ওষুধের রমরমা বাণিজ্যে Logo উচ্চ আদালতে রিট পিটিশন দায়েরঃ ভোট গ্রহণের ৫ দিন আগে যশোর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন স্থগিত Logo যশোরে ৭০ লাখ টাকা ফেরত না দিয়ে প্রতারণার অভিযোগে আদালতে মামলা Logo তানোর পোস্ট অফিস থেকে টাকা গায়েবঃ ফেরত পেতে গ্রাহকের আত্মহত্যার হুমকি Logo নড়াইল সদর উপজেলা নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ ও বিতর্কিত করার চেষ্টার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন Logo বোয়ালমারীতে চেয়ারম্যান প্রার্থী লিটু শরীফের গণমাধ্যম কর্মীদের সাথে মতবিনিময় Logo প্রেম প্রস্তাবে ব্যর্থ হয়ে এডিস নিক্ষেপকারী যুবকের যাবজ্জীবন কারাদন্ড
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন লেখক হোসেনউদ্দীন হোসেনের জীবন সংকটাপন্ন

বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কারপ্রাপ্ত বরেণ্য প্রাবন্ধিক, ঔপন্যাসিক ও গবেষক হোসেন উদ্দীন হোসেন গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় সম্মিলিত সামরিক হাসপাতাল (সিএমএইচ) যশোরে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। সিটিস্ক্যান রিপোর্টে তার মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ ধরা পড়েছে। সিএমএইচের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) তার চিকিৎসা চলছে।
তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় চিকিৎসকেরা তাকে লাইফ সাপোর্টে নিয়েছেন। হোসেন উদ্দীন হোসেনের ছোট মেয়ে শাহানাজ রাহানা রত্না জানিয়েছেন, অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় আজ (১৬ মে) চিকিৎসকরা তাকে লাইফ সাপোর্টে নেন।
শাহানাজ রাহানা রত্না আরো জানান, ২০১৯ সালে বাবার ওপেন হার্ট সার্জারি করা হয়। পরবর্তীতে গলব্লাডারে পাথর ধরা পড়ে। এ ছাড়াও তিনি কিডনি রোগে ভুগছিলেন। এর মধ্যে গত মঙ্গলবার (১৪ মে) বাবা খুব অসুস্থ হয়ে পড়েন। এদিন তাকে যশোর শহরের কুইন্স হসপিটালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হওয়ায় সিএমইচে স্থানান্তর করা হয়।
তিনি জানান, আজ বৃহস্পতিবার বাবার শারীরিক অবস্থার আরো অবনতি হয়েছে। বেশিরভাগ সময় চেতনাহীন থাকছেন। কেউ ডাকলে একটু আধটু চোখ মেলছেন। রক্তে প্লাটিলেটের পরিমাণ কমে গেছে। যে কারণে প্রতিদিন ২ ব্যাগ রক্ত দেয়া লাগছে। তিনি আরো জানান, সিটিস্কান রিপোর্টে ধরা পড়েছে বাবার ব্রেইন ড্যামেজ হয়ে গেছে। এ ছাড়া বাবার ফুসফুসে পানি জমেছে।
উল্লেখ্য, হোসেন উদ্দীন হোসেন ১৯৪১ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার কৃষ্ণনগর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। গ্রামের স্কুলে প্রাথমিক শিক্ষা অর্জনের পর ঝিকরগাছা ইংরেজি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১৯৫৭ সালে ম্যাট্রিক পাস করেন। উচ্চ মাধ্যমিক সম্পন্ন করেন ১৯৫৯ সালে। ১৯৫৫ সালে তার প্রথম কবিতা কলকাতার দৈনিক পত্রিকা লোকসেবকে প্রকাশিত হয়। পরবর্তীতে তার বিভিন্ন প্রবন্ধ, গল্প, কবিতা ঢাকা ও কলকাতার বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশ হওয়া শুরু করে।
হোসেন উদ্দীন হোসেন ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধেও অংশ নেন। তার উল্লেখযোগ্য গ্রন্থগুলোর মধ্যে রয়েছে, ইঁদুর ও মানুষেরা, নষ্ট মানুষ, অমৃত বৈদেশিক, সাধুহাটির লোকজন, প্লাবন এবং একজন নুহ, ভলতেয়ার ফ্লবেয়ার কলসত্ব ত্রয়ী উপন্যাস ও যুগমানস, ঐতিহ্য আধুনিকতা ও আহসান হাবীব, বাংলার বিদ্রোহ, সমাজ সাহিত্য দর্শন প্রবন্ধ, রণক্ষেত্রে সারাবেলা মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি, লোকলোকোত্তর গাঁথা কিংবদন্তী, বনভূমি ও অন্যান্য গল্প, অনন্য রবীন্দ্রনাথ প্রমুখ। হোসেন উদ্দীন হোসেনের সৃষ্টি কালের গণ্ডির মধ্যে আবদ্ধ নয়- সর্বকালীন ও সর্বজনীন হিসেবে পাঠক মহলে সমাদৃত।
Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

ঢাকায় সংবাদ সম্মেলনে কান্নাজড়িত কণ্ঠে আঞ্জুমান আরা

error: Content is protected !!

আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন লেখক হোসেনউদ্দীন হোসেনের জীবন সংকটাপন্ন

আপডেট টাইম : ০৮:১৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ মে ২০২৪
বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কারপ্রাপ্ত বরেণ্য প্রাবন্ধিক, ঔপন্যাসিক ও গবেষক হোসেন উদ্দীন হোসেন গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় সম্মিলিত সামরিক হাসপাতাল (সিএমএইচ) যশোরে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। সিটিস্ক্যান রিপোর্টে তার মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ ধরা পড়েছে। সিএমএইচের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) তার চিকিৎসা চলছে।
তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় চিকিৎসকেরা তাকে লাইফ সাপোর্টে নিয়েছেন। হোসেন উদ্দীন হোসেনের ছোট মেয়ে শাহানাজ রাহানা রত্না জানিয়েছেন, অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় আজ (১৬ মে) চিকিৎসকরা তাকে লাইফ সাপোর্টে নেন।
শাহানাজ রাহানা রত্না আরো জানান, ২০১৯ সালে বাবার ওপেন হার্ট সার্জারি করা হয়। পরবর্তীতে গলব্লাডারে পাথর ধরা পড়ে। এ ছাড়াও তিনি কিডনি রোগে ভুগছিলেন। এর মধ্যে গত মঙ্গলবার (১৪ মে) বাবা খুব অসুস্থ হয়ে পড়েন। এদিন তাকে যশোর শহরের কুইন্স হসপিটালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হওয়ায় সিএমইচে স্থানান্তর করা হয়।
তিনি জানান, আজ বৃহস্পতিবার বাবার শারীরিক অবস্থার আরো অবনতি হয়েছে। বেশিরভাগ সময় চেতনাহীন থাকছেন। কেউ ডাকলে একটু আধটু চোখ মেলছেন। রক্তে প্লাটিলেটের পরিমাণ কমে গেছে। যে কারণে প্রতিদিন ২ ব্যাগ রক্ত দেয়া লাগছে। তিনি আরো জানান, সিটিস্কান রিপোর্টে ধরা পড়েছে বাবার ব্রেইন ড্যামেজ হয়ে গেছে। এ ছাড়া বাবার ফুসফুসে পানি জমেছে।
উল্লেখ্য, হোসেন উদ্দীন হোসেন ১৯৪১ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার কৃষ্ণনগর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। গ্রামের স্কুলে প্রাথমিক শিক্ষা অর্জনের পর ঝিকরগাছা ইংরেজি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১৯৫৭ সালে ম্যাট্রিক পাস করেন। উচ্চ মাধ্যমিক সম্পন্ন করেন ১৯৫৯ সালে। ১৯৫৫ সালে তার প্রথম কবিতা কলকাতার দৈনিক পত্রিকা লোকসেবকে প্রকাশিত হয়। পরবর্তীতে তার বিভিন্ন প্রবন্ধ, গল্প, কবিতা ঢাকা ও কলকাতার বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশ হওয়া শুরু করে।
হোসেন উদ্দীন হোসেন ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধেও অংশ নেন। তার উল্লেখযোগ্য গ্রন্থগুলোর মধ্যে রয়েছে, ইঁদুর ও মানুষেরা, নষ্ট মানুষ, অমৃত বৈদেশিক, সাধুহাটির লোকজন, প্লাবন এবং একজন নুহ, ভলতেয়ার ফ্লবেয়ার কলসত্ব ত্রয়ী উপন্যাস ও যুগমানস, ঐতিহ্য আধুনিকতা ও আহসান হাবীব, বাংলার বিদ্রোহ, সমাজ সাহিত্য দর্শন প্রবন্ধ, রণক্ষেত্রে সারাবেলা মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি, লোকলোকোত্তর গাঁথা কিংবদন্তী, বনভূমি ও অন্যান্য গল্প, অনন্য রবীন্দ্রনাথ প্রমুখ। হোসেন উদ্দীন হোসেনের সৃষ্টি কালের গণ্ডির মধ্যে আবদ্ধ নয়- সর্বকালীন ও সর্বজনীন হিসেবে পাঠক মহলে সমাদৃত।