ঢাকা , সোমবার, ১৩ মে ২০২৪, ২৯ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

গোমস্তাপুরে ৮ শিক্ষকের মাদ্রাসায় ২ পরীক্ষার্থী, পাশ করেনি কেউ

চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার বাঙ্গাবাড়ি ইউনিয়নের বজ্রনাথপুর দাখিল মাদ্রাসা থেকে এবারের এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল ২ পরীক্ষার্থী। তবে তাদের কেউ পাশ করতে পারেনি। মাদ্রাসা সূত্রে জানা গেছে, এবার দাখিল পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য বজ্রনাথপুর দাখিল মাদ্রাসা থেকে ৮ শিক্ষার্থী ফরম পূরণ করেছিল। এর মধ্য থেকে পরীক্ষায় অংশ নেয় মাত্র ২ জন। সেখানে দুজনই ফেল করেছে।

 

সংশ্লিষ্ট মাদ্রাসার শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, করোনার প্রাদুর্ভাবের পর থেকে বজ্রনাথপুর দাখিল মাদ্রাসায় শিক্ষার মান কমতে থাকে। মাদ্রাসাটি এমপিওভুক্ত না হওয়ায় শিক্ষকরা নিয়মিত ক্লাস নিতেন না। এ অনিয়মিতের কারণে ফলাফল খারাপ হয়েছে।

 

বজ্রনাথপুর দাখিল মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত সুপারিন্টেনটেন্ড এজাজুল জানান, এবার আমাদের প্রতিষ্ঠান থেকে ৮ শিক্ষার্থী ফরম পূরণ করলেও পরীক্ষায় অংশ নেয় ২ জন। ফলাফল প্রকাশ হলে দেখা যায়, তারা দুইজনই ফেল করেছে।

 

ফলাফল খারাপ হওয়ার বিষয়ে তার কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, প্রতিষ্ঠানটি এখনো এমপিওভুক্ত হয়নি। এখানে ৮ জন শিক্ষক আছেন, তবে তারা কেউ বেতন পান না। যে কারণে তারা অন্য কাজের সাথে জড়িয়ে পড়েন। ক্লাস নিতে খুব একটা আগ্রহী নন। মাদ্রাসাটি এমপিওভুক্ত হলে শিক্ষার মান আরও বাড়তো।

 

 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নিশাত আনজুম অনন্যা জানান, বিষয়টি সত্যিই দুঃখজনক। কেন এতো খারাপ ফলাফল হলো তা খতিয়ে দেখব।

Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

error: Content is protected !!

গোমস্তাপুরে ৮ শিক্ষকের মাদ্রাসায় ২ পরীক্ষার্থী, পাশ করেনি কেউ

আপডেট টাইম : ৪ ঘন্টা আগে

চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার বাঙ্গাবাড়ি ইউনিয়নের বজ্রনাথপুর দাখিল মাদ্রাসা থেকে এবারের এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল ২ পরীক্ষার্থী। তবে তাদের কেউ পাশ করতে পারেনি। মাদ্রাসা সূত্রে জানা গেছে, এবার দাখিল পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য বজ্রনাথপুর দাখিল মাদ্রাসা থেকে ৮ শিক্ষার্থী ফরম পূরণ করেছিল। এর মধ্য থেকে পরীক্ষায় অংশ নেয় মাত্র ২ জন। সেখানে দুজনই ফেল করেছে।

 

সংশ্লিষ্ট মাদ্রাসার শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, করোনার প্রাদুর্ভাবের পর থেকে বজ্রনাথপুর দাখিল মাদ্রাসায় শিক্ষার মান কমতে থাকে। মাদ্রাসাটি এমপিওভুক্ত না হওয়ায় শিক্ষকরা নিয়মিত ক্লাস নিতেন না। এ অনিয়মিতের কারণে ফলাফল খারাপ হয়েছে।

 

বজ্রনাথপুর দাখিল মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত সুপারিন্টেনটেন্ড এজাজুল জানান, এবার আমাদের প্রতিষ্ঠান থেকে ৮ শিক্ষার্থী ফরম পূরণ করলেও পরীক্ষায় অংশ নেয় ২ জন। ফলাফল প্রকাশ হলে দেখা যায়, তারা দুইজনই ফেল করেছে।

 

ফলাফল খারাপ হওয়ার বিষয়ে তার কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, প্রতিষ্ঠানটি এখনো এমপিওভুক্ত হয়নি। এখানে ৮ জন শিক্ষক আছেন, তবে তারা কেউ বেতন পান না। যে কারণে তারা অন্য কাজের সাথে জড়িয়ে পড়েন। ক্লাস নিতে খুব একটা আগ্রহী নন। মাদ্রাসাটি এমপিওভুক্ত হলে শিক্ষার মান আরও বাড়তো।

 

 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নিশাত আনজুম অনন্যা জানান, বিষয়টি সত্যিই দুঃখজনক। কেন এতো খারাপ ফলাফল হলো তা খতিয়ে দেখব।