ঢাকা , শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

কুষ্টিয়া ধানের ফলনে খুশি কৃষক কাটা ও মাড়াইয়ে ব্যস্ত

কুষ্টিয়ায় চলতি মৌসুমে রোপা আমন ধানের ফলন ভাল হয়েছে। উৎপাদন খরচ বাদ দিয়ে কৃষকরা এবছর ধান চাষে লাভের মুখ দেখবেন। তাই মাঠ ভরা ধানের ক্ষেতের মৌ মৌ গন্ধ আর প্রাণজুড়ানো হাসি নিয়ে কৃষকরা মনের আনন্দে ধান কাটা ও মাড়াইয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন। তবে সরকারের কাছে ধানের ন্যায্য মূল্য প্রত্যাশা করেছেন তারা।

কুষ্টিয়ায় চলতি মৌসুমে ৮৮ হাজার ৮৬২ হেক্টর জমিতে রোপা আমন ধানের চাষ হয়েছে। যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশী। এরমধ্যে দৌলতপুরে চাষ হয়েছে ১৯ হাজার ৮৬০ হেক্টর জমিতে। আর চলতি মৌসুমে জেলায় ২ লক্ষ ৯৩ হাজার ২৪৫ মেট্রিক টন ধান অর্জিত হবে। এবছর আবহাওয়া অনুকলে থাকায় ধানের ফলনও ভাল হয়েছে।

এখন ধান কাটা-মাড়াই শেষে ঘরে তুলতে ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষক-কৃষানীরা। অগ্রহায়নের সেই ভরা ক্ষেতের মত ধানের ফলন ভাল হওয়ায় কৃষকদের মুখ ভরা রয়েছে মধুর হাসি। এবছর ধান চাষে কৃষকদের বিঘা প্রতি খরচ হয়েছে ৫ থেকে ৭ হাজার টাকা। আর বিঘা প্রতি ধান উৎপাদন হচ্ছে ২০ থেকে ২৫ মন।
ধানের ন্যায্য মূল্য পেলে উৎপাদন খরচ বাদ দিয়ে কৃষকদের দ্বিগুনেরও বেশী লাভ হবে বলে জানিয়েছেন দৌলতপুর উপজেলার রিফায়েতপুর ইউনিয়নের ঝাউদিয়া গ্রামের কৃষক নজিবুল ইসলাম।

একই কথা জানিয়েছেন উপজেলার বোয়ালিয়া ইউনিয়নের গোয়ালগ্রামের কৃষক এমদদুল হক। তিনি জানিয়েছেন, এবছর সে ৫বিঘা জমিতে রোপা আমন ধান চাষ করেছেন। আবহাওয়া অনুকলে থাকায় ধানের ফলনও ভাল হয়েছে। ধান কাটা শুরু হয়েছে। খরচ বাদ দিয়ে ধান চাষে এবার লাভ হবে জানান তিনি। তবে তিনি ধানের ন্যায্যমূল্য দাবি করেছেন সরকারের কাছে।

কৃষি বিভাগের পরামর্শ ও প্রাকৃতিক দূর্যোগ না হওয়ায় এবছর ধানের ফলন ভাল হয়েছে। কৃষিবান্ধব সরকার কৃষকদের কাছ থেকে সরাসরি ধান ক্রয় করবে সেক্ষেত্রে তারা ধানের ন্যায্য মূল্যও পাবে এমন আশা ব্যক্ত করেছেন দৌলতপুর কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মোঃ নুরুল ইসলাম ।

কৃষকরা এদেশের প্রাণ। তাই মাথার ঘাম পায়ে ফেলে তাদের পরিশ্রমের উৎপাদিত ফসল সোনালী ধান যেন মধ্য ত্বভোগীরা সব সুবিধা ভোগ না করতে পারে সেদিক খেয়াল রাখার দাবি কৃষকদের।

Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

জনপ্রিয় সংবাদ
error: Content is protected !!

কুষ্টিয়া ধানের ফলনে খুশি কৃষক কাটা ও মাড়াইয়ে ব্যস্ত

আপডেট টাইম : ০৯:১৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১০ নভেম্বর ২০২৩

কুষ্টিয়ায় চলতি মৌসুমে রোপা আমন ধানের ফলন ভাল হয়েছে। উৎপাদন খরচ বাদ দিয়ে কৃষকরা এবছর ধান চাষে লাভের মুখ দেখবেন। তাই মাঠ ভরা ধানের ক্ষেতের মৌ মৌ গন্ধ আর প্রাণজুড়ানো হাসি নিয়ে কৃষকরা মনের আনন্দে ধান কাটা ও মাড়াইয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন। তবে সরকারের কাছে ধানের ন্যায্য মূল্য প্রত্যাশা করেছেন তারা।

কুষ্টিয়ায় চলতি মৌসুমে ৮৮ হাজার ৮৬২ হেক্টর জমিতে রোপা আমন ধানের চাষ হয়েছে। যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশী। এরমধ্যে দৌলতপুরে চাষ হয়েছে ১৯ হাজার ৮৬০ হেক্টর জমিতে। আর চলতি মৌসুমে জেলায় ২ লক্ষ ৯৩ হাজার ২৪৫ মেট্রিক টন ধান অর্জিত হবে। এবছর আবহাওয়া অনুকলে থাকায় ধানের ফলনও ভাল হয়েছে।

এখন ধান কাটা-মাড়াই শেষে ঘরে তুলতে ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষক-কৃষানীরা। অগ্রহায়নের সেই ভরা ক্ষেতের মত ধানের ফলন ভাল হওয়ায় কৃষকদের মুখ ভরা রয়েছে মধুর হাসি। এবছর ধান চাষে কৃষকদের বিঘা প্রতি খরচ হয়েছে ৫ থেকে ৭ হাজার টাকা। আর বিঘা প্রতি ধান উৎপাদন হচ্ছে ২০ থেকে ২৫ মন।
ধানের ন্যায্য মূল্য পেলে উৎপাদন খরচ বাদ দিয়ে কৃষকদের দ্বিগুনেরও বেশী লাভ হবে বলে জানিয়েছেন দৌলতপুর উপজেলার রিফায়েতপুর ইউনিয়নের ঝাউদিয়া গ্রামের কৃষক নজিবুল ইসলাম।

একই কথা জানিয়েছেন উপজেলার বোয়ালিয়া ইউনিয়নের গোয়ালগ্রামের কৃষক এমদদুল হক। তিনি জানিয়েছেন, এবছর সে ৫বিঘা জমিতে রোপা আমন ধান চাষ করেছেন। আবহাওয়া অনুকলে থাকায় ধানের ফলনও ভাল হয়েছে। ধান কাটা শুরু হয়েছে। খরচ বাদ দিয়ে ধান চাষে এবার লাভ হবে জানান তিনি। তবে তিনি ধানের ন্যায্যমূল্য দাবি করেছেন সরকারের কাছে।

কৃষি বিভাগের পরামর্শ ও প্রাকৃতিক দূর্যোগ না হওয়ায় এবছর ধানের ফলন ভাল হয়েছে। কৃষিবান্ধব সরকার কৃষকদের কাছ থেকে সরাসরি ধান ক্রয় করবে সেক্ষেত্রে তারা ধানের ন্যায্য মূল্যও পাবে এমন আশা ব্যক্ত করেছেন দৌলতপুর কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মোঃ নুরুল ইসলাম ।

কৃষকরা এদেশের প্রাণ। তাই মাথার ঘাম পায়ে ফেলে তাদের পরিশ্রমের উৎপাদিত ফসল সোনালী ধান যেন মধ্য ত্বভোগীরা সব সুবিধা ভোগ না করতে পারে সেদিক খেয়াল রাখার দাবি কৃষকদের।