ঢাকা , শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

নড়াইলে স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদন্ড 

নড়াইলে স্ত্রী মর্জিনা বেগম কে হত্যার দায়ে স্বামী ফোরকান উদ্দিন কে ফাসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার (১৮ ফেব্রুয়ারী) সকালে নড়াইলের জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মুন্সী মো.মশিয়ার রহমান এই আদেশ দেন।
রায়ে ফাসির সাথে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে এক বছর বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়। এ সময় দন্ডপ্রাপ্ত শাকিল আদালতে উপস্থিত ছিলেন।
মামলার বিবরন থেকে জানা যায়, স্বামী ফোরকান উদ্দিন, স্ত্রী মর্জিনা বেগম ও এক শিশু সন্তান নিয়ে লোহাগড়া উপজেলার গোপীনাথপুর গ্রামে একটি
ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন।
২০১৫ সালের ১১ অক্টোবর রাতে পারিবারিক কলহের জেরে স্বামী ফোরকান উদ্দিন স্ত্রী মর্জিনা বেগম কে কুপিয়ে হত্যা করে ঘরের মধ্যে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। যা ৫ বছরের শিশু সন্তান মুস্তাফিজ দেখে ফেলে।
এই ঘটনায় স্ত্রী মর্জিনা বেগমের বাবা মুজিুবর রহমান সরকার বাদী হয়ে ১৩ অক্টোবর লোহাগড়া থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।
পরবতর্ীতে মামলা সি আইডিতে স্থানান্তর হলে আসামী আদালতে স্বাকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দেয়। সি আইডি কর্তৃক হত্যা মামলার চার্জ গঠনের মাধ্যমে আদালত ফাসির আদেশ দেন।
শাকিল পিরোজপুর সদরের তেজদাশকাটি গ্রামের তোফায়েল উদ্দিন খানের ছেলে। তিনি ও স্ত্রী মর্জিনা লোহাগড়া উপজেলা সদরের একটি হোটেল  বাবুর্চির কাজ করতেন।
Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

জনপ্রিয় সংবাদ
error: Content is protected !!

নড়াইলে স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদন্ড 

আপডেট টাইম : ০২:৫৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১
নড়াইলে স্ত্রী মর্জিনা বেগম কে হত্যার দায়ে স্বামী ফোরকান উদ্দিন কে ফাসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার (১৮ ফেব্রুয়ারী) সকালে নড়াইলের জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মুন্সী মো.মশিয়ার রহমান এই আদেশ দেন।
রায়ে ফাসির সাথে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে এক বছর বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়। এ সময় দন্ডপ্রাপ্ত শাকিল আদালতে উপস্থিত ছিলেন।
মামলার বিবরন থেকে জানা যায়, স্বামী ফোরকান উদ্দিন, স্ত্রী মর্জিনা বেগম ও এক শিশু সন্তান নিয়ে লোহাগড়া উপজেলার গোপীনাথপুর গ্রামে একটি
ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন।
২০১৫ সালের ১১ অক্টোবর রাতে পারিবারিক কলহের জেরে স্বামী ফোরকান উদ্দিন স্ত্রী মর্জিনা বেগম কে কুপিয়ে হত্যা করে ঘরের মধ্যে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। যা ৫ বছরের শিশু সন্তান মুস্তাফিজ দেখে ফেলে।
এই ঘটনায় স্ত্রী মর্জিনা বেগমের বাবা মুজিুবর রহমান সরকার বাদী হয়ে ১৩ অক্টোবর লোহাগড়া থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।
পরবতর্ীতে মামলা সি আইডিতে স্থানান্তর হলে আসামী আদালতে স্বাকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দেয়। সি আইডি কর্তৃক হত্যা মামলার চার্জ গঠনের মাধ্যমে আদালত ফাসির আদেশ দেন।
শাকিল পিরোজপুর সদরের তেজদাশকাটি গ্রামের তোফায়েল উদ্দিন খানের ছেলে। তিনি ও স্ত্রী মর্জিনা লোহাগড়া উপজেলা সদরের একটি হোটেল  বাবুর্চির কাজ করতেন।