ঢাকা , শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

আধুনিক চরভদ্রাসন গড়তে সকলকে একসাথে কাজ করতে হবে -ফরিদপুর জেলা প্রশাসক

ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক কামরুল আহসান তালুকদার (পিএএ) বলেছেন“এ দেশের ভাগ্যেন্নয়নে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যেমন নিরলশ পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।এদেশে গৃহহীনদের ঘর নির্মান করে দিয়েছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সেখ হাসিনা। সেই উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রেখে আধুনিক চরভদ্রাসন গড়তে সকলকে একসাথে কাজ করতে হবে।

তিনি বলেন আমি যখন পানিসম্পদ মন্ত্রনালয়ে উপমন্ত্রীর পিএস ছিলাম তখন দেখেছি একটি উপজেলার সার্বিক উন্নয়ন ও জনগনের ভাগ্যেন্নয়নে ফরিদপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য মজিবুর রহমান চৌধুরী(নিক্সন)কিভাবে পরিশ্রম করেন।

আপনাদের সার্বিক উন্নয়নে এমপি নিক্সন চৌধুরী কিভাবে ডিও নিয়ে দপ্তরে দপ্তরে ঘুরে থাকেন; জানেন?। এই চরভদ্রাসন উপজেলার নদী ভাঙন রোধে স্থায়ী বাধঁ নির্মানের প্রকল্প পাশ করানোর জন্য দিনের পর দিন মন্ত্রনালয়ে কতবার গিয়েছেন তা নজীর বিহীন।একটি রাস্তা করার জন্য,একটি স্কুল করার জন্য,একটি কলেজের বরাদ্দ নেওয়ার জন্য মন্ত্রনালয়ে ঘুরেন তিনি।ইতিমধ্যে শীতার্ত মানুষের শীতবস্ত্র ক্রয়ের জন্য বরাদ্দ এনেছেন যা আমরা তিনটি উপজেলায় ভাগ করে দিয়েছি।আপনারা চিন্তাও করতে পারবেন না একজন সংসদ সদস্য হয়ে আপনাদের উন্নয়নে কতবার মন্ত্রনালয়ে যান এবং বসে থেকে কাজ সমন্ন করে আসেন নিক্সন চৌধুরী।তার সেই কষ্টের সুফল আজ আমরা সকলে ভোগ করছি।এই উপজেলায় স্থায়ী বাধঁ নির্মান কাজ চলমান রয়েছে।নদী ভাঙনের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে অনেক গ্রাম।

৫জানুয়ারী বৃহস্পতিবার দুপুর আরাইটার দিকে চরভদ্রাসন উপজেলার বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প পরিদর্শন শেষে উপজেলা পরিষদ চত্বরে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাদের উদ্দ্যেশে জেলা প্রশাসক বলেন আপনারা কাউকে হয়রানি না করে জনগনের সেবার জন্য কাজ করে যাবেন।বীর মুক্তিযোদ্ধারা আমাদের সূর্য সন্তান।তাদের আত্ম্য ত্যাগের বিনীময়ে আমরা পেয়েছি স্বাধীন রাষ্ট্র।আজ আমরা কেউ সচিব, কেউ ডিসি,কেউ অন্যান্য দপ্তরের কর্মকর্তা।এদেশ স্বাধীন বলেই আজ আমরা টাই ও সুট-বুট পরে সপ্নের পদ্মা সেতু দিয়ে গায়ে হাওয়া লাগিয়ে কর্মস্থলে যাই।আপনারা অনৈতিক উপায়ে অর্থ উপার্যন না করে দিন শেষে আপনার মাইনের হালাল উপার্যন নিয়ে সন্তুষ্ট চিত্তে বাড়ি ফিরবেন এটা আমার বিশ্বাস।এছাড়া একটি আধুনিক চরভদ্রাসন গড়তে সকলকে নিয়ে একসাথে কাজ করার আহবান জানান জেলা প্রশাসক।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার তানজিলা কবির ত্রপা’র সভাপতিত্বে ও সহকারী কমিশনা(ভূমি)মোঃ খাইরুল ইসলাম এর সঞালনায় সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃকাউছার,ভাইস চেয়ারম্যান মোঃমোতালেব হোসেন মোল্লা,ভাইস চেয়ারম্যন ফরিদা বেগম,সদর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃআজাদ খান ও মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম আজাদ প্রমুখ।এ সময় ইউপি চেয়ারম্যান গন বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা,বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।একই দিন উপজেলার একটি বিদ্যালয়,চরভদ্রাসন থানা,ভূমি অফিস,সদর ইউনিয়ন পরিষদ,আশ্রয়নকেন্দ্র ও গোপালপুর আন্তজেলা ফেরিঘাট পরিদর্শন করেন জেলা প্রশাসক।

Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

জনপ্রিয় সংবাদ
error: Content is protected !!

আধুনিক চরভদ্রাসন গড়তে সকলকে একসাথে কাজ করতে হবে -ফরিদপুর জেলা প্রশাসক

আপডেট টাইম : ০৬:৩১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৫ জানুয়ারী ২০২৩

ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক কামরুল আহসান তালুকদার (পিএএ) বলেছেন“এ দেশের ভাগ্যেন্নয়নে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যেমন নিরলশ পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।এদেশে গৃহহীনদের ঘর নির্মান করে দিয়েছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সেখ হাসিনা। সেই উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রেখে আধুনিক চরভদ্রাসন গড়তে সকলকে একসাথে কাজ করতে হবে।

তিনি বলেন আমি যখন পানিসম্পদ মন্ত্রনালয়ে উপমন্ত্রীর পিএস ছিলাম তখন দেখেছি একটি উপজেলার সার্বিক উন্নয়ন ও জনগনের ভাগ্যেন্নয়নে ফরিদপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য মজিবুর রহমান চৌধুরী(নিক্সন)কিভাবে পরিশ্রম করেন।

আপনাদের সার্বিক উন্নয়নে এমপি নিক্সন চৌধুরী কিভাবে ডিও নিয়ে দপ্তরে দপ্তরে ঘুরে থাকেন; জানেন?। এই চরভদ্রাসন উপজেলার নদী ভাঙন রোধে স্থায়ী বাধঁ নির্মানের প্রকল্প পাশ করানোর জন্য দিনের পর দিন মন্ত্রনালয়ে কতবার গিয়েছেন তা নজীর বিহীন।একটি রাস্তা করার জন্য,একটি স্কুল করার জন্য,একটি কলেজের বরাদ্দ নেওয়ার জন্য মন্ত্রনালয়ে ঘুরেন তিনি।ইতিমধ্যে শীতার্ত মানুষের শীতবস্ত্র ক্রয়ের জন্য বরাদ্দ এনেছেন যা আমরা তিনটি উপজেলায় ভাগ করে দিয়েছি।আপনারা চিন্তাও করতে পারবেন না একজন সংসদ সদস্য হয়ে আপনাদের উন্নয়নে কতবার মন্ত্রনালয়ে যান এবং বসে থেকে কাজ সমন্ন করে আসেন নিক্সন চৌধুরী।তার সেই কষ্টের সুফল আজ আমরা সকলে ভোগ করছি।এই উপজেলায় স্থায়ী বাধঁ নির্মান কাজ চলমান রয়েছে।নদী ভাঙনের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে অনেক গ্রাম।

৫জানুয়ারী বৃহস্পতিবার দুপুর আরাইটার দিকে চরভদ্রাসন উপজেলার বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প পরিদর্শন শেষে উপজেলা পরিষদ চত্বরে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাদের উদ্দ্যেশে জেলা প্রশাসক বলেন আপনারা কাউকে হয়রানি না করে জনগনের সেবার জন্য কাজ করে যাবেন।বীর মুক্তিযোদ্ধারা আমাদের সূর্য সন্তান।তাদের আত্ম্য ত্যাগের বিনীময়ে আমরা পেয়েছি স্বাধীন রাষ্ট্র।আজ আমরা কেউ সচিব, কেউ ডিসি,কেউ অন্যান্য দপ্তরের কর্মকর্তা।এদেশ স্বাধীন বলেই আজ আমরা টাই ও সুট-বুট পরে সপ্নের পদ্মা সেতু দিয়ে গায়ে হাওয়া লাগিয়ে কর্মস্থলে যাই।আপনারা অনৈতিক উপায়ে অর্থ উপার্যন না করে দিন শেষে আপনার মাইনের হালাল উপার্যন নিয়ে সন্তুষ্ট চিত্তে বাড়ি ফিরবেন এটা আমার বিশ্বাস।এছাড়া একটি আধুনিক চরভদ্রাসন গড়তে সকলকে নিয়ে একসাথে কাজ করার আহবান জানান জেলা প্রশাসক।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার তানজিলা কবির ত্রপা’র সভাপতিত্বে ও সহকারী কমিশনা(ভূমি)মোঃ খাইরুল ইসলাম এর সঞালনায় সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃকাউছার,ভাইস চেয়ারম্যান মোঃমোতালেব হোসেন মোল্লা,ভাইস চেয়ারম্যন ফরিদা বেগম,সদর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃআজাদ খান ও মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম আজাদ প্রমুখ।এ সময় ইউপি চেয়ারম্যান গন বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা,বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।একই দিন উপজেলার একটি বিদ্যালয়,চরভদ্রাসন থানা,ভূমি অফিস,সদর ইউনিয়ন পরিষদ,আশ্রয়নকেন্দ্র ও গোপালপুর আন্তজেলা ফেরিঘাট পরিদর্শন করেন জেলা প্রশাসক।