ঢাকা , রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

ভাঙ্গায় পিতাকে হত্যার ঘটনায় পলাতক পুত্র গ্রেপ্তার

ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলায় পিতাকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় পুত্র নাঈম ফকিরকে (১৫) গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৮।মঙ্গলবার (১৩ ডিসেম্বর) ভোররাতে সাভার বাসস্ট্যান্ড এলাকায় অভিযান চালিয়ে নাঈম ফকিরকে গ্রেপ্তার করা হয়।পরে তাকে ফরিদপুর র‌্যাব ক্যাম্পে আনা হয়।

এদিন বিকেলে ফরিদপুর র‌্যাব-৮ ক্যাম্পে এক প্রেস বিফ্রিংয়ে এ তথ্য নিশ্চিত করেন ক্যাম্পের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কমান্ডার মো. শহিদুল ইসলাম।

তিনি জানান, গত ১০ ডিসেম্বর দিবাগত রাত ৮টার দিকে ফরিদপুরের ভাঙ্গা পৌরসভার ছিলাধরচর সদরদী গ্রামের বাসিন্দা কিবরিয়া ফকিরকে (৪৫) ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে পুত্র নাঈম ফকির। হত্যাকান্ডের পর থেকেই আত্মগোপনে ছিল সে।

শহিদুল ইসলাম আরো জানান, ফরিদপুর র‌্যাব ক্যাম্প পিতার হত্যাকারী পুত্র নাঈমকে গ্রেপ্তারের জন্য গোয়েন্দা তৎপরতা বৃদ্ধি করে। এরই ধারাবাহিকতায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মঙ্গলবার ভোররাতে সাভার বাসস্ট্যান্ড এলাকায় অভিযান চালিয়ে মো. নাঈম ফকিরকে গ্রেপ্তার করা হয়।গ্রেপ্তার নাঈমকে ভাঙ্গা থানায় হস্তান্তর করা হয় বলে জানান তিনি।

ফরিদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ভাঙ্গা সার্কেল) মো. হেলাল উদ্দিন ভূঁইয়া বলেন, হত্যার ঘটনায় ১২ ডিসেম্বর নিহত কিবরিয়া ফকিরের ভাই মো. দেলোয়ার ফকির বাদী হয়ে নাঈমকে একমাত্র আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। বাবাকে কুপিয়ে হত্যার পর থেকেই ছেলে নাঈম পলাতক ছিলো। সাভার থেকে তাকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাবের একটি দল।

বুধবার (১৪ ডিসেম্বর) তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হবে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

জনপ্রিয় সংবাদ
error: Content is protected !!

ভাঙ্গায় পিতাকে হত্যার ঘটনায় পলাতক পুত্র গ্রেপ্তার

আপডেট টাইম : ১০:৫৯ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০২২

ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলায় পিতাকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় পুত্র নাঈম ফকিরকে (১৫) গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৮।মঙ্গলবার (১৩ ডিসেম্বর) ভোররাতে সাভার বাসস্ট্যান্ড এলাকায় অভিযান চালিয়ে নাঈম ফকিরকে গ্রেপ্তার করা হয়।পরে তাকে ফরিদপুর র‌্যাব ক্যাম্পে আনা হয়।

এদিন বিকেলে ফরিদপুর র‌্যাব-৮ ক্যাম্পে এক প্রেস বিফ্রিংয়ে এ তথ্য নিশ্চিত করেন ক্যাম্পের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কমান্ডার মো. শহিদুল ইসলাম।

তিনি জানান, গত ১০ ডিসেম্বর দিবাগত রাত ৮টার দিকে ফরিদপুরের ভাঙ্গা পৌরসভার ছিলাধরচর সদরদী গ্রামের বাসিন্দা কিবরিয়া ফকিরকে (৪৫) ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে পুত্র নাঈম ফকির। হত্যাকান্ডের পর থেকেই আত্মগোপনে ছিল সে।

শহিদুল ইসলাম আরো জানান, ফরিদপুর র‌্যাব ক্যাম্প পিতার হত্যাকারী পুত্র নাঈমকে গ্রেপ্তারের জন্য গোয়েন্দা তৎপরতা বৃদ্ধি করে। এরই ধারাবাহিকতায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মঙ্গলবার ভোররাতে সাভার বাসস্ট্যান্ড এলাকায় অভিযান চালিয়ে মো. নাঈম ফকিরকে গ্রেপ্তার করা হয়।গ্রেপ্তার নাঈমকে ভাঙ্গা থানায় হস্তান্তর করা হয় বলে জানান তিনি।

ফরিদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ভাঙ্গা সার্কেল) মো. হেলাল উদ্দিন ভূঁইয়া বলেন, হত্যার ঘটনায় ১২ ডিসেম্বর নিহত কিবরিয়া ফকিরের ভাই মো. দেলোয়ার ফকির বাদী হয়ে নাঈমকে একমাত্র আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। বাবাকে কুপিয়ে হত্যার পর থেকেই ছেলে নাঈম পলাতক ছিলো। সাভার থেকে তাকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাবের একটি দল।

বুধবার (১৪ ডিসেম্বর) তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হবে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।