ঢাকা , রবিবার, ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৩ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
জাতীয় সংসদ -৪৪, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের নব নির্বাচিত এমপিকে সংবর্ধনা নড়াইলে চিত্রশিল্পী এস এম সুলতান কমপ্লেক্স পরিদর্শন করলেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহা-পরিচালক চট্টগ্রাম ৮ আসনের সাংসদ মোছলেম উদ্দিন আহমদ এম পি’র রোগ মুক্তি কামনায় বোয়ালখালীতে দোয়া মাহফিল। সালথায় নবকাম পল্লী কলেজে নবীন বরণ, গুণীজন সংবর্ধনা ও পিঠা মেলা অনুষ্ঠিত পাংশার বাহাদুরপুর ইউপিতে এমপি জিল্লুল হাকিমের উদ্যোগে দ্বিতীয় দফায় কম্বল বিতরণ মিষ্টিকুমড়া ও সিম চাষে সাবলম্বী ওবায়দুর পাঠক বৃদ্ধির লক্ষ্যে তরুণ সংঘ ও পাঠাগারে সভা অনুষ্ঠিত পাংশায় সাহিত্য উন্নয়ন পরিষদের মাসিক সভা অনুষ্ঠিত ট্রেন থেকে ৩লাখ টাকার মাদকদ্রব্য উদ্ধার রোজা উপলক্ষে ভারত থেকে ৩৮০০ মেট্রিক টন মসুর ডাল আমদানি

ফরিদপুর কাজের মহিলা কর্তৃক চুরি করা প্রায় ১৮,০০,০০০/টাকার ডায়মন্ড ও স্বর্ণলংকার উদ্ধার

ফরিদপুরে কাজের মহিলা কর্তৃক চুরি করা প্রায় ১৮ লক্ষ টাকার ডায়মন্ড ও  স্বর্ণালঙ্কার উদ্ধার করেছে জেলা পুলিশ । এ ব্যাপারে এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়
ফরিদপুর কোতয়ালী থানার মামলা নং-৮২ তারিখ- ২৯/১১/২০২২খ্রিঃ ধারা- ৪৫৭/৩৮০ পেনাল কোড। গ্রেফতারকৃত আসামীর নাম ও ঠিকানা  : ১। রেনু আক্তার (৩৩), পিতা-গেনু হাওলাদার, মাতা-স্বপ্না বেগম, স্বামী-লিটন, সাং-দক্ষিণআলীপুর, এ/পি-কুটিবাড়ী কমলাপুর মোঃ এমদাদুল হক এর বাড়ীর ভাড়াটিয়া,  থানা-কোতয়ালী, জেলা-ফরিদপুর।
গ্রেফতারের সময়ঃ ২৯/১১/২০২২ খ্রিঃ বেলা ১৫.০০ ঘটিকার সময় আসামীর বর্তমান  ঠিকানা হতে । মামলার বাদী মোসা: পলি আক্তার (২৭), স্বামী- মো: আ: সালাম খলিফা, সাং- কমলাপুর, ফরিদপুর পৌরসভার ২২ নং ওয়ার্ড, থানা-কোতয়ালী, জেলা- ফরিদপুর থানায় হাজির হইয়া এই মর্মে এজাহার দায়ের করেন যে, তিনি তার ২য় তলার বাসার দরজা তালা না দিয়া দরজা ভিরাইয়া রাখিয়া গত ইং ২৭/১১/২০২২ তারিখ সন্ধ্যা আনুমানিক ০৬.০০ ঘটিকার সময় তাদের উক্ত ভবনের নিচ তলায় তার বড় ননদের রুমে কথা বলার জন্য যায়।
তিনি তার ননদের সহিত কথাবার্তা বলা শেষে ইং ২৭/১১/২০২২ তারিখ রাত আনুমানিক ০৮.০০ ঘটিকার সময় তার উক্ত ২য় তলার বাসায় গিয়া দেখেন যে, তার বাসার দরজা খোলা এবং তার বেড রুমের মধ্যে থাকা মালামাল ছাড়ানো ছিটানো অবস্থায় পরিয়া আছে ও ড্রেসিং টেবিলের ড্রয়ার ভাঙ্গা। তখন তিনি আশপাশের লোকজনদের বিষয়টি জানাইলে তাহারা আসিয়া ঘটনা দেখে ও শোনে। রুমের মধ্যে থাকা ছড়ানো ছিটানো মালামাল গোছগাছ করিয়া দেখেন যে, ড্রেসিং টেবিলের ড্রয়ারের মধ্যে থাকা ৬টি স্বর্ণের রুলি, যাহার ওজন ৬ ভরি, মূল্য আনুমানিক ৫,০০,০০০/- (পাঁচ লক্ষ) টাকা, ৩ জোড়া স্বর্ণের কানের দুল, যাহার ওজন ১ ভরি ৮ আনা, মূল্য আনুমানিক ১.২০,০০০/- (এক লক্ষ বিশ হাজার) টাকা, ১টি স্বর্ণের হার, যাহার ওজন ৪ ভরি, মূল্য আনুমানিক ৩,২০,০০০/- (তিন লক্ষ বিশ হাজার) টাকা, ১টি স্বর্ণের টিকলি, যাহার ওজন ৮ আনা, মূল্য আনুমানিক ৪০,০০০/- (চল্লিশ হাজার) টাকা, ১টি স্বর্ণের আংটি, যাহার ওজন ৮ আনা, মূল্য আনুমানিক ৪০,০০০/- (চল্লিশ হাজার) টাকা, সর্বমোট গহণার ওজন ১২ ভরি ৮ আনা, যাহার মূল্য সর্ব মোট ১০,০০,০০০/- (দশ লক্ষ) টাকা, ২টি ডায়মন্ডের চুড়ি, যাহার ওজন ৪ ভরি, মূল্য আনুমানিক ৮,০০,০০০/- (আট লক্ষ) টাকা এবং নগদ ১৩,০০০/- (তের হাজার) টাকা সর্বমোট ১৮,১৩,০০০/- (আঠারো লক্ষ তের হাজার) টাকার মালামাল  নাই।
বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করিয়া তার উক্ত মালামালের কোনো সন্ধান করিতে পারে নাই। ঘটনার ২ দিন পূর্বে তার বাসার কাজের মহিলা রেনু আক্তার (৩৬), স্বামী- লিটন, সাং- কমলাপুর, থানা- কোতয়ালী, জেলা- ফরিদপুর কে তার বাসায় কাজ করিতে নিষেধ করিলে আসামী তার বাসায় কাজ করিবে মর্মে আমাকে অনুরোধ করে কিন্তু সে তাহার অনুরোধ না রাখিয়া তাকে আর তার বাসায় কাজে রাখে নাই। তারা ধারণা যে, তার বাসার উক্ত কাজের মহিলা রেনু আক্তার উক্ত মালামাল গুলি চুরি করিয়া নিয়ে যাইতে পারে। ঘটনার বিষয়ে সুত্রে বর্নিত মামলা রুজু হইলে অফিসার ইনচার্জ সাহেবের  বলিষ্ঠ দিক নির্দেশনায় মামলার তদন্ত কারী অফিসার এসআই শ্রীবাস গাইন অত্যন্ত দক্ষতা ও বিচক্ষন পেশাদারিত্বের সাথে বিষয়টি উদঘাটন করেন এবং উক্ত সন্দিদ্ধ আসামীকে গ্রেফতার পুর্বক তাহাকে জিজ্ঞাসাবাদ করিয়া তাহার স্বীকারক্তি ও দেখানো মোতাবেক আসামীর বর্তমান ঠিকানার বসত ঘরের সামনে মাটির নিচ হইতে অত্র মামলার চোরাই স্বর্নালংকারের মধ্যে হইতে ১) পাথর সহ এক জোড়া স্বর্নের চুড় যার ওজন ০৫ ভরি ০৭ আনা ০৪ রতি, ২) স্বর্নের আংটি একটি যার ওজন ০৬ আনা ০২ রতি, ৩) সোনার ঝুমকা পাশা এক জোড়া যার ওজন ০৬ আনা ০২ রতি, ৪) স্বর্নের এক জোড়া চুড় যার ওজন ০২ ভরি ১৩ আনা, ৫) স্বর্নের সীতা হার এক পিচ যার ওজন ০৩ ভরি ০২ আনা, ৬) স্বর্নের কানের দুল এক জোড়া যার ওজন ০১ ভরি ০৩  রতি, ৭) এক টুকরা পাকা স্বর্নের পাত যার লম্বা অনুমান পোনে এক ইঞ্চি এবং চওড়া অনুমান ০০.৫০ ইঞ্চি যার ওজন ০৬ আনা ০৩ রতি, ৮) একটি গোল আকৃতি পাকা স্বর্নের চাকতি যার ওজন ০২ ভরি ০৫ আনা। সর্ব মোট ১৫ ভরি ০৯ আনা ০৩ রতি স্বর্ন এবং নগদ ৬৩০০০/- (তেষট্টি) টাকা উদ্ধার পুর্বক জব্দ করেন। মামলার তদন্ত অব্যাহত আছে।
Tag :

এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

জাতীয় সংসদ -৪৪, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের নব নির্বাচিত এমপিকে সংবর্ধনা

error: Content is protected !!

ফরিদপুর কাজের মহিলা কর্তৃক চুরি করা প্রায় ১৮,০০,০০০/টাকার ডায়মন্ড ও স্বর্ণলংকার উদ্ধার

আপডেট টাইম : ০৪:২৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২
ফরিদপুরে কাজের মহিলা কর্তৃক চুরি করা প্রায় ১৮ লক্ষ টাকার ডায়মন্ড ও  স্বর্ণালঙ্কার উদ্ধার করেছে জেলা পুলিশ । এ ব্যাপারে এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়
ফরিদপুর কোতয়ালী থানার মামলা নং-৮২ তারিখ- ২৯/১১/২০২২খ্রিঃ ধারা- ৪৫৭/৩৮০ পেনাল কোড। গ্রেফতারকৃত আসামীর নাম ও ঠিকানা  : ১। রেনু আক্তার (৩৩), পিতা-গেনু হাওলাদার, মাতা-স্বপ্না বেগম, স্বামী-লিটন, সাং-দক্ষিণআলীপুর, এ/পি-কুটিবাড়ী কমলাপুর মোঃ এমদাদুল হক এর বাড়ীর ভাড়াটিয়া,  থানা-কোতয়ালী, জেলা-ফরিদপুর।
গ্রেফতারের সময়ঃ ২৯/১১/২০২২ খ্রিঃ বেলা ১৫.০০ ঘটিকার সময় আসামীর বর্তমান  ঠিকানা হতে । মামলার বাদী মোসা: পলি আক্তার (২৭), স্বামী- মো: আ: সালাম খলিফা, সাং- কমলাপুর, ফরিদপুর পৌরসভার ২২ নং ওয়ার্ড, থানা-কোতয়ালী, জেলা- ফরিদপুর থানায় হাজির হইয়া এই মর্মে এজাহার দায়ের করেন যে, তিনি তার ২য় তলার বাসার দরজা তালা না দিয়া দরজা ভিরাইয়া রাখিয়া গত ইং ২৭/১১/২০২২ তারিখ সন্ধ্যা আনুমানিক ০৬.০০ ঘটিকার সময় তাদের উক্ত ভবনের নিচ তলায় তার বড় ননদের রুমে কথা বলার জন্য যায়।
তিনি তার ননদের সহিত কথাবার্তা বলা শেষে ইং ২৭/১১/২০২২ তারিখ রাত আনুমানিক ০৮.০০ ঘটিকার সময় তার উক্ত ২য় তলার বাসায় গিয়া দেখেন যে, তার বাসার দরজা খোলা এবং তার বেড রুমের মধ্যে থাকা মালামাল ছাড়ানো ছিটানো অবস্থায় পরিয়া আছে ও ড্রেসিং টেবিলের ড্রয়ার ভাঙ্গা। তখন তিনি আশপাশের লোকজনদের বিষয়টি জানাইলে তাহারা আসিয়া ঘটনা দেখে ও শোনে। রুমের মধ্যে থাকা ছড়ানো ছিটানো মালামাল গোছগাছ করিয়া দেখেন যে, ড্রেসিং টেবিলের ড্রয়ারের মধ্যে থাকা ৬টি স্বর্ণের রুলি, যাহার ওজন ৬ ভরি, মূল্য আনুমানিক ৫,০০,০০০/- (পাঁচ লক্ষ) টাকা, ৩ জোড়া স্বর্ণের কানের দুল, যাহার ওজন ১ ভরি ৮ আনা, মূল্য আনুমানিক ১.২০,০০০/- (এক লক্ষ বিশ হাজার) টাকা, ১টি স্বর্ণের হার, যাহার ওজন ৪ ভরি, মূল্য আনুমানিক ৩,২০,০০০/- (তিন লক্ষ বিশ হাজার) টাকা, ১টি স্বর্ণের টিকলি, যাহার ওজন ৮ আনা, মূল্য আনুমানিক ৪০,০০০/- (চল্লিশ হাজার) টাকা, ১টি স্বর্ণের আংটি, যাহার ওজন ৮ আনা, মূল্য আনুমানিক ৪০,০০০/- (চল্লিশ হাজার) টাকা, সর্বমোট গহণার ওজন ১২ ভরি ৮ আনা, যাহার মূল্য সর্ব মোট ১০,০০,০০০/- (দশ লক্ষ) টাকা, ২টি ডায়মন্ডের চুড়ি, যাহার ওজন ৪ ভরি, মূল্য আনুমানিক ৮,০০,০০০/- (আট লক্ষ) টাকা এবং নগদ ১৩,০০০/- (তের হাজার) টাকা সর্বমোট ১৮,১৩,০০০/- (আঠারো লক্ষ তের হাজার) টাকার মালামাল  নাই।
বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করিয়া তার উক্ত মালামালের কোনো সন্ধান করিতে পারে নাই। ঘটনার ২ দিন পূর্বে তার বাসার কাজের মহিলা রেনু আক্তার (৩৬), স্বামী- লিটন, সাং- কমলাপুর, থানা- কোতয়ালী, জেলা- ফরিদপুর কে তার বাসায় কাজ করিতে নিষেধ করিলে আসামী তার বাসায় কাজ করিবে মর্মে আমাকে অনুরোধ করে কিন্তু সে তাহার অনুরোধ না রাখিয়া তাকে আর তার বাসায় কাজে রাখে নাই। তারা ধারণা যে, তার বাসার উক্ত কাজের মহিলা রেনু আক্তার উক্ত মালামাল গুলি চুরি করিয়া নিয়ে যাইতে পারে। ঘটনার বিষয়ে সুত্রে বর্নিত মামলা রুজু হইলে অফিসার ইনচার্জ সাহেবের  বলিষ্ঠ দিক নির্দেশনায় মামলার তদন্ত কারী অফিসার এসআই শ্রীবাস গাইন অত্যন্ত দক্ষতা ও বিচক্ষন পেশাদারিত্বের সাথে বিষয়টি উদঘাটন করেন এবং উক্ত সন্দিদ্ধ আসামীকে গ্রেফতার পুর্বক তাহাকে জিজ্ঞাসাবাদ করিয়া তাহার স্বীকারক্তি ও দেখানো মোতাবেক আসামীর বর্তমান ঠিকানার বসত ঘরের সামনে মাটির নিচ হইতে অত্র মামলার চোরাই স্বর্নালংকারের মধ্যে হইতে ১) পাথর সহ এক জোড়া স্বর্নের চুড় যার ওজন ০৫ ভরি ০৭ আনা ০৪ রতি, ২) স্বর্নের আংটি একটি যার ওজন ০৬ আনা ০২ রতি, ৩) সোনার ঝুমকা পাশা এক জোড়া যার ওজন ০৬ আনা ০২ রতি, ৪) স্বর্নের এক জোড়া চুড় যার ওজন ০২ ভরি ১৩ আনা, ৫) স্বর্নের সীতা হার এক পিচ যার ওজন ০৩ ভরি ০২ আনা, ৬) স্বর্নের কানের দুল এক জোড়া যার ওজন ০১ ভরি ০৩  রতি, ৭) এক টুকরা পাকা স্বর্নের পাত যার লম্বা অনুমান পোনে এক ইঞ্চি এবং চওড়া অনুমান ০০.৫০ ইঞ্চি যার ওজন ০৬ আনা ০৩ রতি, ৮) একটি গোল আকৃতি পাকা স্বর্নের চাকতি যার ওজন ০২ ভরি ০৫ আনা। সর্ব মোট ১৫ ভরি ০৯ আনা ০৩ রতি স্বর্ন এবং নগদ ৬৩০০০/- (তেষট্টি) টাকা উদ্ধার পুর্বক জব্দ করেন। মামলার তদন্ত অব্যাহত আছে।