ঢাকা , শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
Logo ঢাকায় সংবাদ সম্মেলনে কান্নাজড়িত কণ্ঠে আঞ্জুমান আরা Logo দৌলতপুরে ব্র্যাক শাখা অফিসের উদ্বোধন Logo তানোরে ইউপি চেয়ারম্যানের মৃত্যুতে শোকসভা ও মিলাদ Logo তানোরে গরু মোটাতাজা করণে নিষিদ্ধ ওষুধের রমরমা বাণিজ্যে Logo উচ্চ আদালতে রিট পিটিশন দায়েরঃ ভোট গ্রহণের ৫ দিন আগে যশোর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন স্থগিত Logo যশোরে ৭০ লাখ টাকা ফেরত না দিয়ে প্রতারণার অভিযোগে আদালতে মামলা Logo তানোর পোস্ট অফিস থেকে টাকা গায়েবঃ ফেরত পেতে গ্রাহকের আত্মহত্যার হুমকি Logo নড়াইল সদর উপজেলা নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ ও বিতর্কিত করার চেষ্টার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন Logo বোয়ালমারীতে চেয়ারম্যান প্রার্থী লিটু শরীফের গণমাধ্যম কর্মীদের সাথে মতবিনিময় Logo প্রেম প্রস্তাবে ব্যর্থ হয়ে এডিস নিক্ষেপকারী যুবকের যাবজ্জীবন কারাদন্ড
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

বিয়ের প্রলোভনে প্রতারণার শিকার

ঝিনাইদহে চার মাসের শিশুর পিতৃত্বের পরিচয় নিয়ে সংকটে অসহায় মা

 

ঝিনাইদহের লম্পট ইমরান বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে পরোকিয়ায় আবদ্ধ করে এক নারীকে। দুজনের মাঝে দীর্ঘদিন চলে আসছে এই সম্পর্ক।

ইতোমধ্যে এক সন্তানের জননী হয়ে গেছে ওই নারী। পরোকিয়ার ঘটনাটি জানাজানি হলে ওই মহিলার ঘর থেকে এলাকাবাসী দুজনকে আটকে পুলিশে দিলেও ছেলে পক্ষের তদবিরে তাদের কে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার রাধানগর গ্রামে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, হরিণাকুডু উপজেলার রায়পাড়া ভাতুড়িয়া গ্রামের মৃত আলম মন্ডলের ছেলে ইমরান (২৫) নামে এক যুবক পাশাপাশি গ্রামের ঝিনাইদহ সদরের রাধানগর গ্রামের অতি দরিদ্র পরিবারের মর্জেম মন্ডলের মেয়ে আনজিরা (২০) এর সাথে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে পরোকিয়ার সম্পর্ক গড়ে তোলে।

তারা দীর্ঘদিন ধরে অবৈধ শারীরিক সম্পর্কও চালিয়ে আসছিল। ৪বছর আগে বিয়ে হয় আনজিরার, তার ঘরে এখন ৪ মাসের একটি পূত্র সন্তান হয়েছে, তার পরেও ঐ লম্পট ইমরান আনজিরার পিছু ছাড়েনি।

অবশেষে গত ২৮জানুয়ারী ইমরান আনজিরার কাছে এলে এলাকার লোকজন টের পেয়ে দুজনকে ধরে মারধর করে স্থানীয় পুলিশ ফাঁড়িতে খবর দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেয়।

পরে স্থানীয় মাতবরদের সহায়তায় তাদের কে ছেড়ে দেওয়া হয়।  এব্যাপারে ভুক্তভোগি আনজিরা বলেন আমাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে দীর্ঘদিন শারীরিক সম্পর্ক করেছে।

আমার স্বামীকে তালাক দেওয়ার জন্য চাপ দিয়ে আসছে কিন্তু এখন বিয়ে করতে বললে ইমরান আর আমাকে বিয়ে করতে চাইনা এবং আমার স্বামীও সন্তানের পিতৃত্ব পরিচয় দিয়ে মেনে নিতে চাচ্ছে না।

আমি ইমরানের প্রতারনার শিকার, একজন অসহায় নারী হিসেবে আমি এই প্রতারক ইমরানের সঠিক বিচার চাই। ডাকবাংলা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্য বিল্লাল হোসেন বলেন আমরা তাদের চালান দিয়ে দিয়ে ছিলাম পরে কিভাবে জামিন নিয়েছে তা আমার জানা নাই।

Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

ঢাকায় সংবাদ সম্মেলনে কান্নাজড়িত কণ্ঠে আঞ্জুমান আরা

error: Content is protected !!

বিয়ের প্রলোভনে প্রতারণার শিকার

ঝিনাইদহে চার মাসের শিশুর পিতৃত্বের পরিচয় নিয়ে সংকটে অসহায় মা

আপডেট টাইম : ১১:৪১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২ ফেব্রুয়ারী ২০২১

 

ঝিনাইদহের লম্পট ইমরান বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে পরোকিয়ায় আবদ্ধ করে এক নারীকে। দুজনের মাঝে দীর্ঘদিন চলে আসছে এই সম্পর্ক।

ইতোমধ্যে এক সন্তানের জননী হয়ে গেছে ওই নারী। পরোকিয়ার ঘটনাটি জানাজানি হলে ওই মহিলার ঘর থেকে এলাকাবাসী দুজনকে আটকে পুলিশে দিলেও ছেলে পক্ষের তদবিরে তাদের কে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার রাধানগর গ্রামে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, হরিণাকুডু উপজেলার রায়পাড়া ভাতুড়িয়া গ্রামের মৃত আলম মন্ডলের ছেলে ইমরান (২৫) নামে এক যুবক পাশাপাশি গ্রামের ঝিনাইদহ সদরের রাধানগর গ্রামের অতি দরিদ্র পরিবারের মর্জেম মন্ডলের মেয়ে আনজিরা (২০) এর সাথে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে পরোকিয়ার সম্পর্ক গড়ে তোলে।

তারা দীর্ঘদিন ধরে অবৈধ শারীরিক সম্পর্কও চালিয়ে আসছিল। ৪বছর আগে বিয়ে হয় আনজিরার, তার ঘরে এখন ৪ মাসের একটি পূত্র সন্তান হয়েছে, তার পরেও ঐ লম্পট ইমরান আনজিরার পিছু ছাড়েনি।

অবশেষে গত ২৮জানুয়ারী ইমরান আনজিরার কাছে এলে এলাকার লোকজন টের পেয়ে দুজনকে ধরে মারধর করে স্থানীয় পুলিশ ফাঁড়িতে খবর দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেয়।

পরে স্থানীয় মাতবরদের সহায়তায় তাদের কে ছেড়ে দেওয়া হয়।  এব্যাপারে ভুক্তভোগি আনজিরা বলেন আমাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে দীর্ঘদিন শারীরিক সম্পর্ক করেছে।

আমার স্বামীকে তালাক দেওয়ার জন্য চাপ দিয়ে আসছে কিন্তু এখন বিয়ে করতে বললে ইমরান আর আমাকে বিয়ে করতে চাইনা এবং আমার স্বামীও সন্তানের পিতৃত্ব পরিচয় দিয়ে মেনে নিতে চাচ্ছে না।

আমি ইমরানের প্রতারনার শিকার, একজন অসহায় নারী হিসেবে আমি এই প্রতারক ইমরানের সঠিক বিচার চাই। ডাকবাংলা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্য বিল্লাল হোসেন বলেন আমরা তাদের চালান দিয়ে দিয়ে ছিলাম পরে কিভাবে জামিন নিয়েছে তা আমার জানা নাই।