ঢাকা , সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৪ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
খোকসায় অবশেষে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে অসহায় বৃদ্ধ হারুন-অর-রশিদ প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়নের ঘর ফিরে পেলেন চলেন গেলেন দক্ষিণের অভিভাবক বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ বীর মুক্তিযোদ্বা মোছলেম উদ্দিন আহমদ এমপি ১ লক্ষ ২৯ হাজার টাকা পরিশোধ না করায় নড়াইলে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষন অধিদপ্তরে প্রতারনার অভিযোগ করে নিজেই প্রতারনায় ফেঁসে গেলেন জামী সাংবাদিক কৃষকের পেঁয়াজের ক্ষেত বিষ দিয়ে নষ্টের অভিযোগ নড়াইলের লোহাগড়ার দুই সন্তানের জননী কে গলা কেটে হত্যার অভিযোগ নড়াইলে দুগ্রুপের সংঘর্ষে অন্তত ১২জন আহত নগরকান্দায় শিশুর জন্ম হলেই উপহার ও মিষ্টি নিয়ে হাজির ইউএনও বাস্তব কাহিনীতে ইউএনও’র লেখায় নির্মিত হচ্ছে নাটক ‘স্বপ্নের ঠিকানা’ সালথায় ঘরের আড়ার সঙ্গে ঝুলছিল গৃহবধূর মরদেহ,পরিবারের দাবি হত্যা ভালোবাসা দিবসে উপহার নিয়ে এলো ইনফিনিক্স লাভ ফেস্ট

সদরপুরে তীব্র শীত ও ঘণ কুয়াশায় জন জীবন বিদ্ধস্ত

সদরপুরে প্রচন্ড শীত ও ঘন কুয়াশায় জনজীবন প্রায় অচল।

ফরিদপুরের সদরপুরে একটানা তীব্র শীত ও ঘনকুয়াশায় ৯টি ইউনিয়রে জনজীবন বিধ্বস্থ হয়ে পড়েছে। গত প্রায় ১৫ দিনের একটানা শীত ও কুয়াশায় বিশেষ করে পদ্মা ও আড়িয়াল খাঁ নদে নৌচলাচল ব্যাহত হচ্ছে।

কুয়াশার জন্য দুপুর ১২টার পূর্বে সদরপুরের পিয়াজখালী,চরবলাশিয়া ও চন্দ্রপাড়া ঘাট থেকে কোন নৌযান ছাড়ছেনা। নৌযান চরে ঠেকে দিনের পর দিন আটকা পড়ে আছে। মৎসজীবীরা ও দিনমজুর শ্রেণীর লোকজন কর্মহীন হয়ে পড়েছে। দরিদ্র ও হত দরিদ্র লোকজন শীতব¯্র ও অর্থ সংকটে ভুগছে।

উপজেলার প্রায় ২০ হাজার জনগণ নদীভাঙ্গনের শিকার হয়ে আশ্রয়হীন ভাবে ভাসমান জীবণ কাটাচ্ছে। শীতে তাদের অবস্থা আরো বেহাল। শিশু-বৃদ্ধরা ঠান্ডা জনিত রোগে ভুগছে। শীতে গরু-ছাগল খাদ্য অভাব ও বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে।

কুয়াশায় সদ্যরোপিত ইরি-বোর ধানের চারা মারা যাচ্ছে ও বীজতলা হলুদ বর্ণের হয়ে নষ্ট হচ্ছে।

Tag :

এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

খোকসায় অবশেষে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে অসহায় বৃদ্ধ হারুন-অর-রশিদ প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়নের ঘর ফিরে পেলেন

error: Content is protected !!

সদরপুরে তীব্র শীত ও ঘণ কুয়াশায় জন জীবন বিদ্ধস্ত

আপডেট টাইম : ১২:৫২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২ ফেব্রুয়ারী ২০২১

ফরিদপুরের সদরপুরে একটানা তীব্র শীত ও ঘনকুয়াশায় ৯টি ইউনিয়রে জনজীবন বিধ্বস্থ হয়ে পড়েছে। গত প্রায় ১৫ দিনের একটানা শীত ও কুয়াশায় বিশেষ করে পদ্মা ও আড়িয়াল খাঁ নদে নৌচলাচল ব্যাহত হচ্ছে।

কুয়াশার জন্য দুপুর ১২টার পূর্বে সদরপুরের পিয়াজখালী,চরবলাশিয়া ও চন্দ্রপাড়া ঘাট থেকে কোন নৌযান ছাড়ছেনা। নৌযান চরে ঠেকে দিনের পর দিন আটকা পড়ে আছে। মৎসজীবীরা ও দিনমজুর শ্রেণীর লোকজন কর্মহীন হয়ে পড়েছে। দরিদ্র ও হত দরিদ্র লোকজন শীতব¯্র ও অর্থ সংকটে ভুগছে।

উপজেলার প্রায় ২০ হাজার জনগণ নদীভাঙ্গনের শিকার হয়ে আশ্রয়হীন ভাবে ভাসমান জীবণ কাটাচ্ছে। শীতে তাদের অবস্থা আরো বেহাল। শিশু-বৃদ্ধরা ঠান্ডা জনিত রোগে ভুগছে। শীতে গরু-ছাগল খাদ্য অভাব ও বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে।

কুয়াশায় সদ্যরোপিত ইরি-বোর ধানের চারা মারা যাচ্ছে ও বীজতলা হলুদ বর্ণের হয়ে নষ্ট হচ্ছে।