ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

নগরকান্দায় নতুন ঠিকানা ১০৫ টি ভুমিহীন পরিবারের

ফরিদপুরের নগরকান্দায় ১০৫ টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের ভাগ্য বদলে হচ্ছে নতুন ঠিকানা।-ছবি প্রতিনিধি।

ফরিদপুরের নগরকান্দায় ১০৫ টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের ভাগ্য বদলে হচ্ছে নতুন ঠিকানা। প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় এসব পরিবারের জন্য সরকারি খাস জমিতে গৃহ নির্মাণের কাজ পুরোদমে চলছে। গৃহহীনরা তাদের স্বপ্নের ঘর পাওয়ার অপেক্ষায় দিন গুনছেন। ‘আশ্রয়ণের অধিকার-শেখ হাসিনার উপহার’ এই শ্লোগানে নগরকান্দা উপজেলায় গৃহহীন ও ভূমিহীন মানুষদের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আবাসন উপহার হিসেবে প্রদত্ত খাস জমিতে গৃহনির্মাণের কাজ করছে উপজেলা প্রশাসন।

মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের জন্য দিনরাত পরিশ্রম করে গৃহনির্মাণ কাজ চলছে। ১৫ জানুয়ারির মধ্যে কাজ শেষ করে উপকারভোগীদের মাঝে ঘরের চাবি বিতরণ করা হবে বলে প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। এ ছাড়াও প্রত্যেক সুবিধাভোগীদের নামে সরকারি ২ শতাংশ জমির বন্দোবস্ত দলিল হস্তান্তর করা হবে।

ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের নতুন ঠিকানা নির্মাণের কাজ এগিয়ে চলছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জেতী প্রæ বলেন, নগরকান্দা উপজেলায় ১০৫টি ঘর বরাদ্দ পেয়েছি। নির্মাণ কাজ প্রায়ই শেষের দিকে। জেলা প্রশাসকের সার্বিক দিকনির্দেশনায় আমি নির্মাণকাজ তদারকি করছি। ফলে অসহায় পরিবারগুলো মাথা গোঁজার ঠাঁই পাচ্ছে।

উল্লেখ্য, নগরকান্দায় সরকারি খাস জায়গায় ১০৫টি গৃহনির্মাণ প্রকল্পের কাজ চলছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করলে উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন থেকে ভূমিহীন ও গৃহহীনেরা আবেদন করেন। এরই প্রেক্ষিতে আবেদনপত্র যাচাই-বাছাই করে উপকারভোগী নির্বাচন করে স্থানীয় প্রশাসন। প্রথম পর্যায়ে ‘ক’ শ্রেণিভুক্ত ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ২ শতাংশ খাস জমি বন্দোবস্ত দিয়ে ঐ জমির উপর ঘর তৈরি করে দেওয়া হচ্ছে। দুই কক্ষবিশিষ্ট প্রতিটি আধা পাকা ঘরের নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছে ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা। সবগুলো ঘর সরকার নির্ধারিত একই নকশায় হচ্ছে। রান্নাঘর, সংযুক্ত টয়লেটসহ অন্যান্য সুবিধা থাকছে এসব ঘরে।

Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

জনপ্রিয় সংবাদ
error: Content is protected !!

নগরকান্দায় নতুন ঠিকানা ১০৫ টি ভুমিহীন পরিবারের

আপডেট টাইম : ১২:৫০ অপরাহ্ন, সোমবার, ২১ ডিসেম্বর ২০২০

ফরিদপুরের নগরকান্দায় ১০৫ টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের ভাগ্য বদলে হচ্ছে নতুন ঠিকানা। প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় এসব পরিবারের জন্য সরকারি খাস জমিতে গৃহ নির্মাণের কাজ পুরোদমে চলছে। গৃহহীনরা তাদের স্বপ্নের ঘর পাওয়ার অপেক্ষায় দিন গুনছেন। ‘আশ্রয়ণের অধিকার-শেখ হাসিনার উপহার’ এই শ্লোগানে নগরকান্দা উপজেলায় গৃহহীন ও ভূমিহীন মানুষদের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আবাসন উপহার হিসেবে প্রদত্ত খাস জমিতে গৃহনির্মাণের কাজ করছে উপজেলা প্রশাসন।

মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের জন্য দিনরাত পরিশ্রম করে গৃহনির্মাণ কাজ চলছে। ১৫ জানুয়ারির মধ্যে কাজ শেষ করে উপকারভোগীদের মাঝে ঘরের চাবি বিতরণ করা হবে বলে প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। এ ছাড়াও প্রত্যেক সুবিধাভোগীদের নামে সরকারি ২ শতাংশ জমির বন্দোবস্ত দলিল হস্তান্তর করা হবে।

ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের নতুন ঠিকানা নির্মাণের কাজ এগিয়ে চলছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জেতী প্রæ বলেন, নগরকান্দা উপজেলায় ১০৫টি ঘর বরাদ্দ পেয়েছি। নির্মাণ কাজ প্রায়ই শেষের দিকে। জেলা প্রশাসকের সার্বিক দিকনির্দেশনায় আমি নির্মাণকাজ তদারকি করছি। ফলে অসহায় পরিবারগুলো মাথা গোঁজার ঠাঁই পাচ্ছে।

উল্লেখ্য, নগরকান্দায় সরকারি খাস জায়গায় ১০৫টি গৃহনির্মাণ প্রকল্পের কাজ চলছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করলে উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন থেকে ভূমিহীন ও গৃহহীনেরা আবেদন করেন। এরই প্রেক্ষিতে আবেদনপত্র যাচাই-বাছাই করে উপকারভোগী নির্বাচন করে স্থানীয় প্রশাসন। প্রথম পর্যায়ে ‘ক’ শ্রেণিভুক্ত ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ২ শতাংশ খাস জমি বন্দোবস্ত দিয়ে ঐ জমির উপর ঘর তৈরি করে দেওয়া হচ্ছে। দুই কক্ষবিশিষ্ট প্রতিটি আধা পাকা ঘরের নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছে ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা। সবগুলো ঘর সরকার নির্ধারিত একই নকশায় হচ্ছে। রান্নাঘর, সংযুক্ত টয়লেটসহ অন্যান্য সুবিধা থাকছে এসব ঘরে।