ঢাকা , শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

বোয়ালমারীতে দুই পক্ষের সংঘর্ষ

দুই মামলায় আসামি আড়াই’শ

-ছবিঃ প্রতীকী।

ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার শেখর ইউনিয়নের চর শেখর ও দূর্গাপুর গ্রামে গত শনিবার ও রোববার দুইপক্ষের মধ্যে ঘোষণা দিয়ে সংঘর্ষের ঘটনায় বোয়ালমারী থানায় পৃথক দুটি মামলা হয়েছে। মামলায় বোয়ালমারী সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক প্রান্ত সিদ্দিকসহ দুইজনকে সোমবার রাতে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় আরো দুটি মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। মঙ্গলবার সকালে আসামিদের ফরিদপুর আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

থানা সূত্রে জানা গেছে, বোয়ালমারী উপজেলার শেখর ইউনিয়নের দুইগ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় একটি মামলার বাদি শেখর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান রইসুল ইসলাম পলাশের ভাই শিয়াবুল ইসলাম শিমুল (৪২)। সোমবার রাতে মামলাটি থানায় নথিভুক্ত করা হয়। মামলা নং-৬/২৭০। এ মামলায় ফরিদপুর জেলা পরিষদ সদস্য, শেখর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদকে প্রধান আসামি করা হয়েছে। এ মামলায় ৩১জনের নাম উল্লেখ করে আরো অজ্ঞাত ২০/২৫ জনকে আসামি করা হয়েছে।

আইনে বাধা দেওয়া ও পুলিশের ওপর আক্রমনের ঘটনায় অপর মামলাটি করেন বোয়ালমারী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মামুন ইসলাম। মামলা নং-৪/২৬৮।

এ মামলায় সাবেক দুই চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ, রইসুল ইসলাম পলাশসহ ৩৪জনের নাম উল্লেখ্য করে আরো ১৪০/১৫০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে। আরো দুটি মামলা তদন্তধীন রয়েছে। শিমুলের মামলায় আবুল কালাম আজাদের ভাতিজা প্রান্ত সিদ্দিক এবং পুলিশের ওপর আক্রমনের মামলায় আরো একজন গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বোয়ালমারী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল খায়ের মিয়া বলেন, সংঘর্ষের ঘটনায় দুই মামলায় দুইজনকে গ্রেপ্তার করে মঙ্গলবার আদালতে পাঠানো হয়েছে। আবুল কালাম আজাদ গ্রুপ এবং রইসুল ইসলাম পলাশ গ্রুপের আরো দুটি অভিযোগ পেয়েছি। সে দুটি অভিযোগ তদন্তধীন রয়েছে।

Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

জনপ্রিয় সংবাদ
error: Content is protected !!

বোয়ালমারীতে দুই পক্ষের সংঘর্ষ

দুই মামলায় আসামি আড়াই’শ

আপডেট টাইম : ০২:১৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১০ ডিসেম্বর ২০২০

ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার শেখর ইউনিয়নের চর শেখর ও দূর্গাপুর গ্রামে গত শনিবার ও রোববার দুইপক্ষের মধ্যে ঘোষণা দিয়ে সংঘর্ষের ঘটনায় বোয়ালমারী থানায় পৃথক দুটি মামলা হয়েছে। মামলায় বোয়ালমারী সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক প্রান্ত সিদ্দিকসহ দুইজনকে সোমবার রাতে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় আরো দুটি মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। মঙ্গলবার সকালে আসামিদের ফরিদপুর আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

থানা সূত্রে জানা গেছে, বোয়ালমারী উপজেলার শেখর ইউনিয়নের দুইগ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় একটি মামলার বাদি শেখর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান রইসুল ইসলাম পলাশের ভাই শিয়াবুল ইসলাম শিমুল (৪২)। সোমবার রাতে মামলাটি থানায় নথিভুক্ত করা হয়। মামলা নং-৬/২৭০। এ মামলায় ফরিদপুর জেলা পরিষদ সদস্য, শেখর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদকে প্রধান আসামি করা হয়েছে। এ মামলায় ৩১জনের নাম উল্লেখ করে আরো অজ্ঞাত ২০/২৫ জনকে আসামি করা হয়েছে।

আইনে বাধা দেওয়া ও পুলিশের ওপর আক্রমনের ঘটনায় অপর মামলাটি করেন বোয়ালমারী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মামুন ইসলাম। মামলা নং-৪/২৬৮।

এ মামলায় সাবেক দুই চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ, রইসুল ইসলাম পলাশসহ ৩৪জনের নাম উল্লেখ্য করে আরো ১৪০/১৫০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে। আরো দুটি মামলা তদন্তধীন রয়েছে। শিমুলের মামলায় আবুল কালাম আজাদের ভাতিজা প্রান্ত সিদ্দিক এবং পুলিশের ওপর আক্রমনের মামলায় আরো একজন গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বোয়ালমারী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল খায়ের মিয়া বলেন, সংঘর্ষের ঘটনায় দুই মামলায় দুইজনকে গ্রেপ্তার করে মঙ্গলবার আদালতে পাঠানো হয়েছে। আবুল কালাম আজাদ গ্রুপ এবং রইসুল ইসলাম পলাশ গ্রুপের আরো দুটি অভিযোগ পেয়েছি। সে দুটি অভিযোগ তদন্তধীন রয়েছে।