ঢাকা , শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

কালুখালীতে যৌতুক লোভী স্বামী ও শ্বাশুরীর নির্যাতনে গৃহবধুর মৃত্যু

যৌতুক লোভী স্বামী আর শ্বাশুরীর নির্যাতনে রাজবাড়ীর  কালুখালীতে এক গৃহবধু খুন হয়েছে। মঙ্গলবার বিকেলে  কালুখালী উপজেলার গংগানন্দপুর গ্রামে এই খুনের ঘটনা ঘটে। নিহত গৃহবধুর নাম সানজিদা (২৫)। সে কুষ্টিয়ার খাজানগরের বাবলু গাজীর মেয়ে।
ঘটনার পরেই কালুখালী থানা পুলিশ নিহত সানজিদার লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।পুলিশ বুধবার লাশটি মর্গে পাঠায়।
বুধবার দুপুরে কালুখালী থানার সামনে কথা হয় নিহত সানজিদার বড় বোন বিউটি খাতুনের সাথে। তিনি জানান,৭ বছর আগে প্রেমের সম্পর্ক করে সানজিদার সাথে ও কালুখালীর গংগানন্দপুর গ্রামের শফি শেখের পুত্র রাশেদ এর বিয়ে হয়।
বিয়ের পর তাদের দাম্পত্য জীবনে ১ ছেলে সন্তানের জন্ম হয়। এরপর রাশেদ ও তার মাতা রাশিদা প্রায়ই তার বোন সানজিদাকে যৌতুকের জন্য নির্যাতন করতো।নির্যাতনের কারনে তারা কয়েক দফায় আড়াই লক্ষ টাকা,স্বর্ণালংকার, খাট ও টেলিভিশন প্রদান করেছে।কিন্তু এতেও যৌতুক লোভী স্বামী ও তার মায়ের মন ভরেনি।
মঙ্গলবার বিকেলে পাষন্ড স্বামী রাশেদ ও তার মাতা রাশিদা আমার নিরিহ বোনকে নির্হযাতনের পর হ ত্যা করে। পরে লাশটি ঘরের আড়ায় ঝুলিয়ে দিয়ে আত্মহত্যা বলে অপপ্রচার চালায়। তিনি এঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।
এঘটনার পরই ঘাতক রাশেদ পালিয়ে যায়।
রাশেদের মাতা রাশিদা জানায়, তার ছেলে রাশেদ গোপনে আরো একটি বিয়ে করেছে। রাশেদ সেই স্ত্রীর কাছে আছে।
রাশেদের পিতা শফি জানায়, রাশেদ আমার কথা শোনে না।আমি তার দায় দিতে পারেবো না। তার শাস্তি হওয়া দরকার।
Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

জনপ্রিয় সংবাদ
error: Content is protected !!

কালুখালীতে যৌতুক লোভী স্বামী ও শ্বাশুরীর নির্যাতনে গৃহবধুর মৃত্যু

আপডেট টাইম : ১১:৫৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০২৪
যৌতুক লোভী স্বামী আর শ্বাশুরীর নির্যাতনে রাজবাড়ীর  কালুখালীতে এক গৃহবধু খুন হয়েছে। মঙ্গলবার বিকেলে  কালুখালী উপজেলার গংগানন্দপুর গ্রামে এই খুনের ঘটনা ঘটে। নিহত গৃহবধুর নাম সানজিদা (২৫)। সে কুষ্টিয়ার খাজানগরের বাবলু গাজীর মেয়ে।
ঘটনার পরেই কালুখালী থানা পুলিশ নিহত সানজিদার লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।পুলিশ বুধবার লাশটি মর্গে পাঠায়।
বুধবার দুপুরে কালুখালী থানার সামনে কথা হয় নিহত সানজিদার বড় বোন বিউটি খাতুনের সাথে। তিনি জানান,৭ বছর আগে প্রেমের সম্পর্ক করে সানজিদার সাথে ও কালুখালীর গংগানন্দপুর গ্রামের শফি শেখের পুত্র রাশেদ এর বিয়ে হয়।
বিয়ের পর তাদের দাম্পত্য জীবনে ১ ছেলে সন্তানের জন্ম হয়। এরপর রাশেদ ও তার মাতা রাশিদা প্রায়ই তার বোন সানজিদাকে যৌতুকের জন্য নির্যাতন করতো।নির্যাতনের কারনে তারা কয়েক দফায় আড়াই লক্ষ টাকা,স্বর্ণালংকার, খাট ও টেলিভিশন প্রদান করেছে।কিন্তু এতেও যৌতুক লোভী স্বামী ও তার মায়ের মন ভরেনি।
মঙ্গলবার বিকেলে পাষন্ড স্বামী রাশেদ ও তার মাতা রাশিদা আমার নিরিহ বোনকে নির্হযাতনের পর হ ত্যা করে। পরে লাশটি ঘরের আড়ায় ঝুলিয়ে দিয়ে আত্মহত্যা বলে অপপ্রচার চালায়। তিনি এঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।
এঘটনার পরই ঘাতক রাশেদ পালিয়ে যায়।
রাশেদের মাতা রাশিদা জানায়, তার ছেলে রাশেদ গোপনে আরো একটি বিয়ে করেছে। রাশেদ সেই স্ত্রীর কাছে আছে।
রাশেদের পিতা শফি জানায়, রাশেদ আমার কথা শোনে না।আমি তার দায় দিতে পারেবো না। তার শাস্তি হওয়া দরকার।