ঢাকা , রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
Logo তানোরে সেচ মটর স্থাপন নিয়ে টানটান উত্তেজনা Logo মুকসুদপুরে দুর্বৃত্তের দেয়া আগুনে দুটি গরু পুড়ে নিঃস্ব পরিবার Logo একটি মৃত্যুর খবরে দু’জনই শেষ, গ্রামের বাড়িতে শোকের ছায়া ! Logo কবরে শায়িত দুই বন্ধু, বিষাদে পরিনত হলো আনন্দ Logo মধুখালী প্রকৃতি গ্রুপের এডমিন-মডারেটর ১ম মিলন মেলা-২০২৪ অনুষ্ঠিত Logo নলছিটিতে পৃথকভাবে পানিতে ডুবে এক শিশুর মৃত্যু ও স্কুলছাত্র নিখোঁজ Logo ১৯৮৯-৯০ সালের এস.এস.সি. ব্যাচের ছাত্র-ছাত্রীদের পুনর্মিলনী ও জ্ঞাণীজন সংবর্ধনা Logo ফরিদপুরের চরভদ্রাসনে শিশু কন্যাকে ধর্ষণের অভিযোগে পিতাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ Logo উৎসবমুখর পরিবেশে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর পালন করেছে ইতালির ভেনিস প্রবাসীরা Logo টাঙ্গাইলের সখীপুরে একসাথে ৬টি সন্তানের জন্ম দিলেন সুমনা আক্তার!
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

ভাঙ্গায় গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

হত্যা না আত্নহত্যা; সন্দেহ স্বজনদের

-প্রতীকী ছবি।

ফরিদপুরের ভাঙ্গায় চন্দ্রিকা চক্রবর্তী (২১) নামে এক গৃহবধূর লাশ তার স্বামীর বাড়ি থেকে উদ্ধার করেছে ভাঙ্গা থানা পুলিশ।বুধবার (৩ এপ্রিল) বিকেল ৩টার দিকে ভাঙ্গা উপজেলার নুরুল্লাগঞ্জ ইউনিয়নের আকনবাড়িয়া গ্রামের চক্রবর্তী বাড়ি থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। তিনি ওই গ্রামের দীপঙ্কর চক্রবর্তীর স্ত্রী।মৃত চন্দ্রিকার শ্বশুর চিত্তরঞ্জন চক্রবর্তী জানান, ২০২৩ সালের ১৫ ডিসেম্বর তার ছেলে দীপঙ্করের সঙ্গে চন্দ্রিকার বিয়ে হয়।

 

চন্দ্রিকার গ্রামের বাড়ি মাগুরার জেলার সদর উপজেলার শত্রুজিৎপুর গ্রামে। সে ওই গ্রামের চন্ডি চক্রবর্তী ও চায়না চক্রবর্তীর মেয়ে।২০২৩ সালের এইচএসসি পরীক্ষায় সে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ে ফেল করে। পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতে বাবার বাড়ি যাওয়ার জন্য সে কয়েকদিন ধরে আমাদেরকে বলে।
কিন্তু আমরা তাকে চৈত্র মাস শেষ হলে বৈশাখ মাসের প্রথম দিকে যাওয়ার জন্য বলি। এতে সে অভিমান করে।বুধবার সকাল ৯টায় সে গোসল করার জন্য প্রস্তুতি নেয়। প্রতিবেশী পায়েল নামের একটি মেয়ে তাকে গোসল করতে যাওয়ার জন্য ডাকতে আসে।
কিন্তু সে কোনো সাড়া না দিলে পায়েল তার ঘরের কাছে গিয়ে দরজা বন্ধ দেখতে পায়। পরে ঘরের ভেতরে উঁকি দিয়ে সে চন্দ্রিকাকে ঘরের আড়ার সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায়। তার চিৎকারে বাড়ির লোকজন এবং প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসে। তারা দরজা ভেঙে তাকে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করে সদরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পথে সদরপুর উপজেলার কদমতলা নামক স্থানে সে মারা যায়।অন্যদিকে খবর শুনে চন্দ্রিকার মা-বাবা ও স্বজনরা ভাঙ্গা থানায় আসেন।
তার মা চায়না চক্রবর্তী বলেন, ওরা আমার মেয়েকে মেরে ফেলেছে। আমার বুক খালি করেছে। আমার মেয়ে কখনোই আত্মহত্যা করতে পারে না। আমার মেয়ের শ্বশুর বাড়ির লোকজন ওকে মেরে ফেলেছে। তারা অনেক সময় আমার মেয়েকে নির্যাতন করত।
ভাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মামুন আল রশিদ বলেন, ওই গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। তদন্ত রিপোর্ট পেলে প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে এবং আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এ ঘটনায় থানায় একটি ইউডি মামলা দায়ের হয়েছে। 
Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

জনপ্রিয় সংবাদ

তানোরে সেচ মটর স্থাপন নিয়ে টানটান উত্তেজনা

error: Content is protected !!

ভাঙ্গায় গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

আপডেট টাইম : ০৯:১৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ এপ্রিল ২০২৪
ফরিদপুরের ভাঙ্গায় চন্দ্রিকা চক্রবর্তী (২১) নামে এক গৃহবধূর লাশ তার স্বামীর বাড়ি থেকে উদ্ধার করেছে ভাঙ্গা থানা পুলিশ।বুধবার (৩ এপ্রিল) বিকেল ৩টার দিকে ভাঙ্গা উপজেলার নুরুল্লাগঞ্জ ইউনিয়নের আকনবাড়িয়া গ্রামের চক্রবর্তী বাড়ি থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। তিনি ওই গ্রামের দীপঙ্কর চক্রবর্তীর স্ত্রী।মৃত চন্দ্রিকার শ্বশুর চিত্তরঞ্জন চক্রবর্তী জানান, ২০২৩ সালের ১৫ ডিসেম্বর তার ছেলে দীপঙ্করের সঙ্গে চন্দ্রিকার বিয়ে হয়।

 

চন্দ্রিকার গ্রামের বাড়ি মাগুরার জেলার সদর উপজেলার শত্রুজিৎপুর গ্রামে। সে ওই গ্রামের চন্ডি চক্রবর্তী ও চায়না চক্রবর্তীর মেয়ে।২০২৩ সালের এইচএসসি পরীক্ষায় সে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ে ফেল করে। পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতে বাবার বাড়ি যাওয়ার জন্য সে কয়েকদিন ধরে আমাদেরকে বলে।
কিন্তু আমরা তাকে চৈত্র মাস শেষ হলে বৈশাখ মাসের প্রথম দিকে যাওয়ার জন্য বলি। এতে সে অভিমান করে।বুধবার সকাল ৯টায় সে গোসল করার জন্য প্রস্তুতি নেয়। প্রতিবেশী পায়েল নামের একটি মেয়ে তাকে গোসল করতে যাওয়ার জন্য ডাকতে আসে।
কিন্তু সে কোনো সাড়া না দিলে পায়েল তার ঘরের কাছে গিয়ে দরজা বন্ধ দেখতে পায়। পরে ঘরের ভেতরে উঁকি দিয়ে সে চন্দ্রিকাকে ঘরের আড়ার সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায়। তার চিৎকারে বাড়ির লোকজন এবং প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসে। তারা দরজা ভেঙে তাকে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করে সদরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পথে সদরপুর উপজেলার কদমতলা নামক স্থানে সে মারা যায়।অন্যদিকে খবর শুনে চন্দ্রিকার মা-বাবা ও স্বজনরা ভাঙ্গা থানায় আসেন।
তার মা চায়না চক্রবর্তী বলেন, ওরা আমার মেয়েকে মেরে ফেলেছে। আমার বুক খালি করেছে। আমার মেয়ে কখনোই আত্মহত্যা করতে পারে না। আমার মেয়ের শ্বশুর বাড়ির লোকজন ওকে মেরে ফেলেছে। তারা অনেক সময় আমার মেয়েকে নির্যাতন করত।
ভাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মামুন আল রশিদ বলেন, ওই গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। তদন্ত রিপোর্ট পেলে প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে এবং আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এ ঘটনায় থানায় একটি ইউডি মামলা দায়ের হয়েছে।