ঢাকা , রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
Logo তানোরে সেচ মটর স্থাপন নিয়ে টানটান উত্তেজনা Logo মুকসুদপুরে দুর্বৃত্তের দেয়া আগুনে দুটি গরু পুড়ে নিঃস্ব পরিবার Logo একটি মৃত্যুর খবরে দু’জনই শেষ, গ্রামের বাড়িতে শোকের ছায়া ! Logo কবরে শায়িত দুই বন্ধু, বিষাদে পরিনত হলো আনন্দ Logo মধুখালী প্রকৃতি গ্রুপের এডমিন-মডারেটর ১ম মিলন মেলা-২০২৪ অনুষ্ঠিত Logo নলছিটিতে পৃথকভাবে পানিতে ডুবে এক শিশুর মৃত্যু ও স্কুলছাত্র নিখোঁজ Logo ১৯৮৯-৯০ সালের এস.এস.সি. ব্যাচের ছাত্র-ছাত্রীদের পুনর্মিলনী ও জ্ঞাণীজন সংবর্ধনা Logo ফরিদপুরের চরভদ্রাসনে শিশু কন্যাকে ধর্ষণের অভিযোগে পিতাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ Logo উৎসবমুখর পরিবেশে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর পালন করেছে ইতালির ভেনিস প্রবাসীরা Logo টাঙ্গাইলের সখীপুরে একসাথে ৬টি সন্তানের জন্ম দিলেন সুমনা আক্তার!
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

ফরিদপুরে ভাঙ্গায় স্কুলছাত্র‌ আদেল হত্যা মামলায় দুজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছে আদালত

ফরিদপুরের ভাঙ্গায় স্কুলছাত্র আদেল উদ্দিন হত্যা মামলায় দুই জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। একই সাথে প্রত্যেককে ২০ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়।আজ রোববার দুপুরে ফরিদপুরের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ২য় আদালতের বিচারক শিহাবুল ইসলাম এ রায় ঘোষণা দেন। দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলো- ভাঙ্গা উপজেলার মালিগ্রাম গ্রামের আয়ুব আলীর ছেলে সিকিম আলী ও সদরপুর উপজেলার চরমানাইর গ্রামের মালেক মাতুব্বরের ছেলে আকরাম মাতুব্বর। রায় ঘোষণার সময় আসামিরা আদালতে উপস্থিত ছিল। পরে পুলিশ পাহারায় তাদের কারাগারে প্রেরণ করা হয়।
মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০১২ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার চরদুয়াইর জয়নাল আবেদীন উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র আদেল উদ্দিন ওরফে আরিফ পাশের বাজারের দোকানে টেলিভিশন দেখতে যায়। রাতে আর ফিরে না আশায় বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করে তার পরিবারের সদস্যরা।
পরদিন ভাঙ্গা থানায় একটি নিখোঁজ জিডি করা হয়। নিখোঁজের ৮ দিন পর ব্রাহ্মণপাড়া বাওড়ের গম ক্ষেতের মধ্যে আরিফের মস্তকবিহীন ও দুই হাত বিচ্ছিন্ন অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে নিহতের বাবা খালেক সরদার বাদি হয়ে ভাঙ্গা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।
অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ২য় আদালতের পিপি মো. সানোয়ার হোসেন বলেন, নিহতের মায়ের বাবার বাড়ির পৈত্রিক সম্পত্তির বিরোধের জের ধরে এই হত্যাকাণ্ডটি সংগঠিত হয়েছে মর্মে পুলিশ তদন্ত করে ঘটনার সাথে জড়িত আসামিদের গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করেন। আসামিরা আদালতে তাদের দোষ স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেয়।
দীর্ঘ স্বাক্ষ্যপ্রমাণ শেষে আজ আদালত ৪ জন আসামির মধ্যে ২ জন আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ প্রদান করেন।এছাড়া মামলায় অপর দুই আসামি হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত প্রমাণ না হওয়ায় তাদের বেখসুর খালাস দেন আদালত।
Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

জনপ্রিয় সংবাদ

তানোরে সেচ মটর স্থাপন নিয়ে টানটান উত্তেজনা

error: Content is protected !!

ফরিদপুরে ভাঙ্গায় স্কুলছাত্র‌ আদেল হত্যা মামলায় দুজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছে আদালত

আপডেট টাইম : ০৬:৪৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩১ মার্চ ২০২৪
ফরিদপুরের ভাঙ্গায় স্কুলছাত্র আদেল উদ্দিন হত্যা মামলায় দুই জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। একই সাথে প্রত্যেককে ২০ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়।আজ রোববার দুপুরে ফরিদপুরের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ২য় আদালতের বিচারক শিহাবুল ইসলাম এ রায় ঘোষণা দেন। দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলো- ভাঙ্গা উপজেলার মালিগ্রাম গ্রামের আয়ুব আলীর ছেলে সিকিম আলী ও সদরপুর উপজেলার চরমানাইর গ্রামের মালেক মাতুব্বরের ছেলে আকরাম মাতুব্বর। রায় ঘোষণার সময় আসামিরা আদালতে উপস্থিত ছিল। পরে পুলিশ পাহারায় তাদের কারাগারে প্রেরণ করা হয়।
মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০১২ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার চরদুয়াইর জয়নাল আবেদীন উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র আদেল উদ্দিন ওরফে আরিফ পাশের বাজারের দোকানে টেলিভিশন দেখতে যায়। রাতে আর ফিরে না আশায় বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করে তার পরিবারের সদস্যরা।
পরদিন ভাঙ্গা থানায় একটি নিখোঁজ জিডি করা হয়। নিখোঁজের ৮ দিন পর ব্রাহ্মণপাড়া বাওড়ের গম ক্ষেতের মধ্যে আরিফের মস্তকবিহীন ও দুই হাত বিচ্ছিন্ন অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে নিহতের বাবা খালেক সরদার বাদি হয়ে ভাঙ্গা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।
অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ২য় আদালতের পিপি মো. সানোয়ার হোসেন বলেন, নিহতের মায়ের বাবার বাড়ির পৈত্রিক সম্পত্তির বিরোধের জের ধরে এই হত্যাকাণ্ডটি সংগঠিত হয়েছে মর্মে পুলিশ তদন্ত করে ঘটনার সাথে জড়িত আসামিদের গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করেন। আসামিরা আদালতে তাদের দোষ স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেয়।
দীর্ঘ স্বাক্ষ্যপ্রমাণ শেষে আজ আদালত ৪ জন আসামির মধ্যে ২ জন আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ প্রদান করেন।এছাড়া মামলায় অপর দুই আসামি হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত প্রমাণ না হওয়ায় তাদের বেখসুর খালাস দেন আদালত।