ঢাকা , রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

যারা বঙ্গবন্ধু ও ৭ই মার্চকে স্বীকার করে না, তারা পাকিস্তানীদের প্রতিনিধি -এসএম কামাল

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ ছিল মুক্তির দিক নির্দেশনা। যারা বঙ্গবন্ধু ও ৭ই মার্চকে স্বীকার করে না, তারা স্বাধীনতাকে স্বীকার করে না। তারা স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তি নয়। তারা পাকিস্তানীদের প্রতিনিধি।

মঙ্গলবার দুপুরে পাবনার আটঘরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

এস এম কামাল বলেন, বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনাকে নিয়ে যারা কটুক্তি করবে তারা রাস্তায় বের হতে পারবে না। আওয়ামী লীগের ওইসব ছেলের দরকার নেই, যারা বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনাকে নিয়ে কটুক্তির প্রতিবাদ করে না। ওইসব নেতাকর্মীদের আওয়ামী লীগের দরকার, যারা মানুষের বিপদে তাদের পাশে দাঁড়ায়। তিনি নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, সততার সাথে কাজ করলে সাধারণ জনগণ কখনও আওয়ামীলীগের বিপক্ষে যাবে না।

আটঘরিয়া সরকারি মহাবিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত সম্মেলনে উদ্বোধক হিসেবে বক্তব্য দেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রেজাউল রহিম লাল। প্রধান বক্তারা বক্তব্য দেন পাবনা সদর আসনের এমপি ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক প্রিন্স।

এমপি প্রিন্স বলেন, প্রধানমন্ত্রী উন্নয়নের যে অগ্রযাত্রা শুরু করেছেন তা সকল মানুষের মাঝে ছড়িয়ে দিতে হবে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের। সাধারণ মানুষকে উন্নয়নের সাথে সম্পৃক্ত করতে হবে। স্বাধীনতার বিরোধীরা বর্তমান সরকারকে বির্তকিত করার নানা ষড়যন্ত্র করছে। সকলেই সজাগ থেকে এই অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র শহিদুল ইসলাম রতনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল গফুর মিয়ার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, পাবনা-১ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট শামসুল হক টুকু, পাবনা-৪ আসনের সংসদ সদস্য নুরুজ্জামান বিশ্বাস, সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য নাদিরা ইয়াসমিন জলি, আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য আব্দুল আওয়াল শামীম প্রমুখ।

এর আগে অনুষ্ঠানের শুরুতে জাতীয় সঙ্গীতের সুরে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন এবং শান্তির প্রতিক পায়রা অবমুক্ত করার মাধ্যমে সম্মেলন শুরু হয়। অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে শুরু হয় কাউন্সিল।

Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

জনপ্রিয় সংবাদ
error: Content is protected !!

যারা বঙ্গবন্ধু ও ৭ই মার্চকে স্বীকার করে না, তারা পাকিস্তানীদের প্রতিনিধি -এসএম কামাল

আপডেট টাইম : ০৪:০৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ মার্চ ২০২১

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ ছিল মুক্তির দিক নির্দেশনা। যারা বঙ্গবন্ধু ও ৭ই মার্চকে স্বীকার করে না, তারা স্বাধীনতাকে স্বীকার করে না। তারা স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তি নয়। তারা পাকিস্তানীদের প্রতিনিধি।

মঙ্গলবার দুপুরে পাবনার আটঘরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

এস এম কামাল বলেন, বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনাকে নিয়ে যারা কটুক্তি করবে তারা রাস্তায় বের হতে পারবে না। আওয়ামী লীগের ওইসব ছেলের দরকার নেই, যারা বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনাকে নিয়ে কটুক্তির প্রতিবাদ করে না। ওইসব নেতাকর্মীদের আওয়ামী লীগের দরকার, যারা মানুষের বিপদে তাদের পাশে দাঁড়ায়। তিনি নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, সততার সাথে কাজ করলে সাধারণ জনগণ কখনও আওয়ামীলীগের বিপক্ষে যাবে না।

আটঘরিয়া সরকারি মহাবিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত সম্মেলনে উদ্বোধক হিসেবে বক্তব্য দেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রেজাউল রহিম লাল। প্রধান বক্তারা বক্তব্য দেন পাবনা সদর আসনের এমপি ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক প্রিন্স।

এমপি প্রিন্স বলেন, প্রধানমন্ত্রী উন্নয়নের যে অগ্রযাত্রা শুরু করেছেন তা সকল মানুষের মাঝে ছড়িয়ে দিতে হবে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের। সাধারণ মানুষকে উন্নয়নের সাথে সম্পৃক্ত করতে হবে। স্বাধীনতার বিরোধীরা বর্তমান সরকারকে বির্তকিত করার নানা ষড়যন্ত্র করছে। সকলেই সজাগ থেকে এই অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র শহিদুল ইসলাম রতনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল গফুর মিয়ার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, পাবনা-১ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট শামসুল হক টুকু, পাবনা-৪ আসনের সংসদ সদস্য নুরুজ্জামান বিশ্বাস, সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য নাদিরা ইয়াসমিন জলি, আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য আব্দুল আওয়াল শামীম প্রমুখ।

এর আগে অনুষ্ঠানের শুরুতে জাতীয় সঙ্গীতের সুরে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন এবং শান্তির প্রতিক পায়রা অবমুক্ত করার মাধ্যমে সম্মেলন শুরু হয়। অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে শুরু হয় কাউন্সিল।