ঢাকা , রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

শাওমির রেডমি স্মার্টফোন বিস্ফোরণে শিশুর মৃত্যু

-ফাইল ছবি।

শাওমির রেডমি নোট ৫ প্রো স্মার্টফোন বিস্ফোরণে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। আদিত্যশ্রী নামের ওই শিশুর বয়স মাত্র আট বছর।

জানা গেছে, ভারতের কেরালার থ্রিসুরে সোমবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে ঘটনাটি ঘটে। দাবি করা হয়েছে, মেয়েটি তখন রেডমি নোট ৫ প্রো ব্যবহার করছিল।

ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ঘটনার সময় ফোনটি চার্জে ছিল না। মনে করা হচ্ছে ফোনটি হঠাৎ অতিরিক্ত গরম হয়ে দুর্ঘটনা ঘটে।

শিশুটির মৃত্যুর পর ফরেনসিক টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে বিষয়টি তদন্ত করে। প্রাথমিক তদন্তে প্রাপ্ত তথ্য স্থানীয় পুলিশের কাছে জমা দেওয়া হয়েছে এবং বাকি প্রমাণ তদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, আদিত্যশ্রীর ডান হাতের আঙ্গুল এবং তালুতে ব্যাপক ক্ষত দেখা গেছে। ঘটনার পরপরই তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু তাকে বাঁচানো সম্ভব হয়নি।

কেরালার মন্ত্রী কে রাধাকৃষ্ণন জেলা প্রশাসনকে বিষয়টি কঠোরভাবে তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন।

মেয়েটির বাবা অশোক কুমার জানিয়েছেন, দুর্ঘটনার সময় তিনি তার মেয়ে ও দাদীর সঙ্গে বাড়িতে ছিলেন। মেয়েটি কম্বলের ভেতর শুয়ে মোবাইলে গেম খেলছিল। দাদি রান্নাঘরে খাবার আনতে গিয়েছিলেন। কিছুক্ষণ পরে তিনি একটি বিকট শব্দ শুনতে পান। সাথে সাথে মেয়ের কাছে ছুটে এসে রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে পড়ে থাকতে দেখেন। শিশুটির এমন আকস্মিক মৃত্যুতে সবাই হতবাক ও ক্ষুব্ধ।

উল্লেখ্য, স্মার্টফোনে আগুন লাগা বা বিস্ফোরণের ঘটনা মূলত ফোনের ওপর অতিরিক্ত চাপের কারণে বা ব্যাটারি গরম হওয়ার কারণে ঘটে। আসলে আকারে পাতলা ও হালকা স্মার্টফোন তৈরি করতে কোম্পানিগুলো ব্যাটারিকে ন্যূনতম স্পেসে ফিট করে এবং ক্রমাগত ব্যবহার বা চার্জিংয়ের ক্ষেত্রে এই ব্যাটারি গরম হতে শুরু করে। এরপর বিস্ফোরিত হয়।

Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

জনপ্রিয় সংবাদ
error: Content is protected !!

শাওমির রেডমি স্মার্টফোন বিস্ফোরণে শিশুর মৃত্যু

আপডেট টাইম : ১২:০৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৬ এপ্রিল ২০২৩

শাওমির রেডমি নোট ৫ প্রো স্মার্টফোন বিস্ফোরণে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। আদিত্যশ্রী নামের ওই শিশুর বয়স মাত্র আট বছর।

জানা গেছে, ভারতের কেরালার থ্রিসুরে সোমবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে ঘটনাটি ঘটে। দাবি করা হয়েছে, মেয়েটি তখন রেডমি নোট ৫ প্রো ব্যবহার করছিল।

ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ঘটনার সময় ফোনটি চার্জে ছিল না। মনে করা হচ্ছে ফোনটি হঠাৎ অতিরিক্ত গরম হয়ে দুর্ঘটনা ঘটে।

শিশুটির মৃত্যুর পর ফরেনসিক টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে বিষয়টি তদন্ত করে। প্রাথমিক তদন্তে প্রাপ্ত তথ্য স্থানীয় পুলিশের কাছে জমা দেওয়া হয়েছে এবং বাকি প্রমাণ তদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, আদিত্যশ্রীর ডান হাতের আঙ্গুল এবং তালুতে ব্যাপক ক্ষত দেখা গেছে। ঘটনার পরপরই তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু তাকে বাঁচানো সম্ভব হয়নি।

কেরালার মন্ত্রী কে রাধাকৃষ্ণন জেলা প্রশাসনকে বিষয়টি কঠোরভাবে তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন।

মেয়েটির বাবা অশোক কুমার জানিয়েছেন, দুর্ঘটনার সময় তিনি তার মেয়ে ও দাদীর সঙ্গে বাড়িতে ছিলেন। মেয়েটি কম্বলের ভেতর শুয়ে মোবাইলে গেম খেলছিল। দাদি রান্নাঘরে খাবার আনতে গিয়েছিলেন। কিছুক্ষণ পরে তিনি একটি বিকট শব্দ শুনতে পান। সাথে সাথে মেয়ের কাছে ছুটে এসে রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে পড়ে থাকতে দেখেন। শিশুটির এমন আকস্মিক মৃত্যুতে সবাই হতবাক ও ক্ষুব্ধ।

উল্লেখ্য, স্মার্টফোনে আগুন লাগা বা বিস্ফোরণের ঘটনা মূলত ফোনের ওপর অতিরিক্ত চাপের কারণে বা ব্যাটারি গরম হওয়ার কারণে ঘটে। আসলে আকারে পাতলা ও হালকা স্মার্টফোন তৈরি করতে কোম্পানিগুলো ব্যাটারিকে ন্যূনতম স্পেসে ফিট করে এবং ক্রমাগত ব্যবহার বা চার্জিংয়ের ক্ষেত্রে এই ব্যাটারি গরম হতে শুরু করে। এরপর বিস্ফোরিত হয়।