ঢাকা , বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

আলোচিত রাজু হত্যা মামলার ৩ আসামির যাবজ্জীবন কারাদণ্ড। 

মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলার বিনোদপুরের খালিয়া গ্রামে রাজু আহম্মেদ হত্যা মামলা ৩ আসামীকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত।
মঙ্গলবার দুপুরে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ফারজানা ইয়াসমিন এ রায় ঘোষণা করেন। দন্ডপ্রাপ্তরা হলেন, খালিয়া গ্রামের কাশেস লস্কর, আলতু লস্কর ও ইদ্রিস আলী।
দন্ডপ্রাপ্তদের মধ্যে ইদ্রিস আলী পলাকত রয়েছে। রায় ঘোষণার পর দন্ডপ্রাপ্তদের পরিবারের সদস্য ও আত্মীয় স্বজনরা আদালতের মধ্যে হট্টগোল শুরু করে এবং বাদীর উপর হামলা চালায়। এ সময় আইনজীবি ও পুলিশ সদস্যরা পরিস্থিতি শান্ত করেন। পরে বাদীকে পুলিশ প্রহরায় তার বাড়িতে পৌঁছে দেওয়া হয়।
জেলা জজ আদালতের অতিরিক্ত পিপি অ্যাডভোকেট মশিউর রহমান জানান, অর্থনৈতিক লেনদেনকে কেন্দ্র করে ২০০৫ সালের ৯ জানুয়ারি মহম্মদপুর উপজেলার খালিয়া গ্রামের মাহবুবুর রহমানের পুত্র রাজু আহম্মেদ (২২) কে দন্ডপ্রাপ্ত আসামীরা কুপিয়ে হত্যা করে। এ ঘটনায় রাজুর পিতা দন্ডপ্রাপ্ত তিনজনসহ ৪ জনের নামে মহম্মদপুর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। পুলিশ ওই বছরের মে মাসে সকল আসামীদের নামে চার্জশীট প্রদান করেন। মামলার চলাকালে বাদী মাহবুবুর রহমান ও আলতু লস্কর নামে এক আসামীর মৃত্যুবরণ করেন।
পরে নিহত রাজু আহম্মেদ চাচা হাফিজুর রহমানকে মামলার বাদী করা হয়। মামলার স্বাক্ষি প্রমাণ গ্রহণ শেষে মঙ্গলবার দুপুরে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ফারজানা ইয়াসমিন মামলার অপর তিন আসামী কাশেস লস্কর, আলতু লস্কর ও ইদ্রিস আলীকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ড ও ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা প্রদানের রায় ঘোষণা করেন। দন্ডপ্রাপ্তদের মধ্যে ইদ্রিস আলী পলাতক রয়েছে।
আদালত প্রাঙ্গনে একাধিক পুলিশ কর্মকর্তা উপস্থিত থাকলেও বাদীর উপর হামলা ও আদলতে হট্টগোলের বিষয়ে কোন বক্তব্য প্রদান করতে রাজি হননি।
Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

জনপ্রিয় সংবাদ
error: Content is protected !!

আলোচিত রাজু হত্যা মামলার ৩ আসামির যাবজ্জীবন কারাদণ্ড। 

আপডেট টাইম : ০৮:২৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১
মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলার বিনোদপুরের খালিয়া গ্রামে রাজু আহম্মেদ হত্যা মামলা ৩ আসামীকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত।
মঙ্গলবার দুপুরে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ফারজানা ইয়াসমিন এ রায় ঘোষণা করেন। দন্ডপ্রাপ্তরা হলেন, খালিয়া গ্রামের কাশেস লস্কর, আলতু লস্কর ও ইদ্রিস আলী।
দন্ডপ্রাপ্তদের মধ্যে ইদ্রিস আলী পলাকত রয়েছে। রায় ঘোষণার পর দন্ডপ্রাপ্তদের পরিবারের সদস্য ও আত্মীয় স্বজনরা আদালতের মধ্যে হট্টগোল শুরু করে এবং বাদীর উপর হামলা চালায়। এ সময় আইনজীবি ও পুলিশ সদস্যরা পরিস্থিতি শান্ত করেন। পরে বাদীকে পুলিশ প্রহরায় তার বাড়িতে পৌঁছে দেওয়া হয়।
জেলা জজ আদালতের অতিরিক্ত পিপি অ্যাডভোকেট মশিউর রহমান জানান, অর্থনৈতিক লেনদেনকে কেন্দ্র করে ২০০৫ সালের ৯ জানুয়ারি মহম্মদপুর উপজেলার খালিয়া গ্রামের মাহবুবুর রহমানের পুত্র রাজু আহম্মেদ (২২) কে দন্ডপ্রাপ্ত আসামীরা কুপিয়ে হত্যা করে। এ ঘটনায় রাজুর পিতা দন্ডপ্রাপ্ত তিনজনসহ ৪ জনের নামে মহম্মদপুর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। পুলিশ ওই বছরের মে মাসে সকল আসামীদের নামে চার্জশীট প্রদান করেন। মামলার চলাকালে বাদী মাহবুবুর রহমান ও আলতু লস্কর নামে এক আসামীর মৃত্যুবরণ করেন।
পরে নিহত রাজু আহম্মেদ চাচা হাফিজুর রহমানকে মামলার বাদী করা হয়। মামলার স্বাক্ষি প্রমাণ গ্রহণ শেষে মঙ্গলবার দুপুরে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ফারজানা ইয়াসমিন মামলার অপর তিন আসামী কাশেস লস্কর, আলতু লস্কর ও ইদ্রিস আলীকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ড ও ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা প্রদানের রায় ঘোষণা করেন। দন্ডপ্রাপ্তদের মধ্যে ইদ্রিস আলী পলাতক রয়েছে।
আদালত প্রাঙ্গনে একাধিক পুলিশ কর্মকর্তা উপস্থিত থাকলেও বাদীর উপর হামলা ও আদলতে হট্টগোলের বিষয়ে কোন বক্তব্য প্রদান করতে রাজি হননি।