ঢাকা , রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
প্রতিনিধি নিয়োগ
দৈনিক সময়ের প্রত্যাশা পত্রিকার জন্য সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ করা হচ্ছে। আপনি আপনার এলাকায় সাংবাদিকতা পেশায় আগ্রহী হলে যোগাযোগ করুন।

ফরিদপুরে ইউপি সচিবকে নির্যাতনের প্রতিবাদে স্মারকলিপি 

ফরিদপুর সদর উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো: গোলাম মোস্তফা কর্তৃক পরিষদের সচিব আয়ুব আলী মোল্লাকে শারিরীরিক ভাবে নির্যাতন করায়, নির্যাতনের প্রতিকার চেয়ে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বিভাগীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের আবেদন জানিয়ে ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেছে বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ সচিব সমিতি (বাপসা) এর ফরিদপুর জেলা শাখা।
(২৯ ডিসেম্বর) বৃস্পতিবার সকাল ৯ টায় ভুক্তভোগী আয়ুব আলী মোল্লাসহ সমিতির জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে এ স্মারকলিপি প্রদান করেন। (বাপসা) এর ফরিদপুর জেলা শাখার সভাপতি আবুল কালাম আজাদ স্বাক্ষরিত ঐ স্মারকলিপিতে বলা হয়েছে অফিস চলাকালীন চেয়ারম্যান মোস্তফা পরিষদের সচিব আয়ুব আলী মোল্লাকে শারিরীরিক ভাবে নির্যাতন করে। এমনকি এ নির্যাতনের বিষয় নিয়ে কোন কিছু করলে বস্তায় ভরে সচিবকে মেরে ফেলারো হুমকি দিয়েছেন বলে স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়েছে।
একই সাথে জেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের সচিবগন চেয়ারম্যান ও নেতাকর্মিদের দ্বারা শারিরিক ও মানসিক ভাবে নির্যাতনের শিকার হয়েও মান সম্মানের ভয়ে তা প্রকাশ না করায় বর্তমানে সচিবদের চাকরি করা দুরহের বিষয় উল্লেখ করে চেয়ারম্যান মোস্তফার দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন তারা। এ বিষয়ে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহনের আশ্বাস দিয়েছেন ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক মোঃ কামরুল আহসান তালুকদার ।
এর আগে (বাপসা) এর ফরিদপুর জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ সচিব আয়ুব আলী মোল্লাকে শারিরীরিক ভাবে নির্যাতন করায় একটি প্রতিবাদ সভা করেন জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বরে। এ সময় বক্তব্য রাখেন (বাপসা) এর কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও ফরিদপুর জেলা শাখার সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, সাধারন সম্পাদক বিষ্ণুপদ সাহা, ভুক্তভোগী আয়ুব আলী মোল্লাসহ জেলা ও উপজেলা শাখার নেতৃবৃন্দ।
এ বিষয়ে ভুক্তভোগী সচিব আয়ুব আলী মোল্লা জানায়, কয়েকদিন আগে কৃষ্ণনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ গোলাম মোস্তফা এর সাথে বাকবিতন্ডা জের ধরে নির্যাতনের শিকার হন তিনি। তবে ঘটনার পরপরই বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার জন্য ঐ চেয়ারম্যান সচিবকে নানা ভাবে হুমকি দিয়ে আসছে বলে অভিযোগ করেন।
এ বিষয়ে চেয়ারম্যান মোঃ গোলাম মোস্তফা জানান, সচিবের দাপ্তরিক কাজে অবহেলার কারনে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার এর বরাত দিয়ে তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য ফরিদপুর স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। তবে গত ১৮ তারিখে অসহায় দের জন্য বরাদ্দকৃত ভিজিএফ এর চাল বিতরণকালে তাকে পরিষদে না পেয়ে  পরবর্তিতে তার না আসার কারন জানতে চাইলেই আমার উপর চড়াও হন।
এরই ধারাবাহিকতায় নিয়মিত অফিস না করা ও বিভিন্ন ভাবে অর্থ হাতিয়ে নেওয়াসহ সচিবের নানা অনিয়মের অভিযোগ এনে একটি লিখিত অভিযোগ দায়েরের পর থেকেই সে আমার ভাবমুর্তি নষ্ট করার জন্যই বিভিন্ন যায়গায় মিথ্যাচার রটিয়ে বেরাচ্ছে। তাকে শারিরিক বা মানসিক কোন ভাবেই নির্যাতন করা হয়নি বলে চেয়ারম্যান মোঃ গোলাম মোস্তফা জানান।
Tag :
এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

জনপ্রিয় সংবাদ
error: Content is protected !!

ফরিদপুরে ইউপি সচিবকে নির্যাতনের প্রতিবাদে স্মারকলিপি 

আপডেট টাইম : ০৮:৩১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ডিসেম্বর ২০২২
ফরিদপুর সদর উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো: গোলাম মোস্তফা কর্তৃক পরিষদের সচিব আয়ুব আলী মোল্লাকে শারিরীরিক ভাবে নির্যাতন করায়, নির্যাতনের প্রতিকার চেয়ে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বিভাগীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের আবেদন জানিয়ে ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেছে বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ সচিব সমিতি (বাপসা) এর ফরিদপুর জেলা শাখা।
(২৯ ডিসেম্বর) বৃস্পতিবার সকাল ৯ টায় ভুক্তভোগী আয়ুব আলী মোল্লাসহ সমিতির জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে এ স্মারকলিপি প্রদান করেন। (বাপসা) এর ফরিদপুর জেলা শাখার সভাপতি আবুল কালাম আজাদ স্বাক্ষরিত ঐ স্মারকলিপিতে বলা হয়েছে অফিস চলাকালীন চেয়ারম্যান মোস্তফা পরিষদের সচিব আয়ুব আলী মোল্লাকে শারিরীরিক ভাবে নির্যাতন করে। এমনকি এ নির্যাতনের বিষয় নিয়ে কোন কিছু করলে বস্তায় ভরে সচিবকে মেরে ফেলারো হুমকি দিয়েছেন বলে স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়েছে।
একই সাথে জেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের সচিবগন চেয়ারম্যান ও নেতাকর্মিদের দ্বারা শারিরিক ও মানসিক ভাবে নির্যাতনের শিকার হয়েও মান সম্মানের ভয়ে তা প্রকাশ না করায় বর্তমানে সচিবদের চাকরি করা দুরহের বিষয় উল্লেখ করে চেয়ারম্যান মোস্তফার দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন তারা। এ বিষয়ে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহনের আশ্বাস দিয়েছেন ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক মোঃ কামরুল আহসান তালুকদার ।
এর আগে (বাপসা) এর ফরিদপুর জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ সচিব আয়ুব আলী মোল্লাকে শারিরীরিক ভাবে নির্যাতন করায় একটি প্রতিবাদ সভা করেন জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বরে। এ সময় বক্তব্য রাখেন (বাপসা) এর কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও ফরিদপুর জেলা শাখার সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, সাধারন সম্পাদক বিষ্ণুপদ সাহা, ভুক্তভোগী আয়ুব আলী মোল্লাসহ জেলা ও উপজেলা শাখার নেতৃবৃন্দ।
এ বিষয়ে ভুক্তভোগী সচিব আয়ুব আলী মোল্লা জানায়, কয়েকদিন আগে কৃষ্ণনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ গোলাম মোস্তফা এর সাথে বাকবিতন্ডা জের ধরে নির্যাতনের শিকার হন তিনি। তবে ঘটনার পরপরই বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার জন্য ঐ চেয়ারম্যান সচিবকে নানা ভাবে হুমকি দিয়ে আসছে বলে অভিযোগ করেন।
এ বিষয়ে চেয়ারম্যান মোঃ গোলাম মোস্তফা জানান, সচিবের দাপ্তরিক কাজে অবহেলার কারনে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার এর বরাত দিয়ে তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য ফরিদপুর স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। তবে গত ১৮ তারিখে অসহায় দের জন্য বরাদ্দকৃত ভিজিএফ এর চাল বিতরণকালে তাকে পরিষদে না পেয়ে  পরবর্তিতে তার না আসার কারন জানতে চাইলেই আমার উপর চড়াও হন।
এরই ধারাবাহিকতায় নিয়মিত অফিস না করা ও বিভিন্ন ভাবে অর্থ হাতিয়ে নেওয়াসহ সচিবের নানা অনিয়মের অভিযোগ এনে একটি লিখিত অভিযোগ দায়েরের পর থেকেই সে আমার ভাবমুর্তি নষ্ট করার জন্যই বিভিন্ন যায়গায় মিথ্যাচার রটিয়ে বেরাচ্ছে। তাকে শারিরিক বা মানসিক কোন ভাবেই নির্যাতন করা হয়নি বলে চেয়ারম্যান মোঃ গোলাম মোস্তফা জানান।